নাগরিক মতামত

বাম জোটে এখনও গন সংহতি ! রাজনৈতিক দেউলিয়াপনা আর কাকে বলে? 

হাসান তারিক চৌধুরী, সদস্য, কেন্দ্রীয় কমিটি, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি); আইনজীবী, সুপ্রিম কোর্ট

বিএনপি-হেফাজতের উপস্থিতে বক্তব্য রেখে বুর্জোয়া জোটের মেরুকরণের সভায় যেয়ে অনুশোচনা নেই !
বরং বীর দর্পে যুক্তি দিয়ে বলছেন, সবাই গেলে ভাল হোত !!
ভানুমতির খেলা আর কতো ??

১.
গনসংহতির নেতা জাতীয় সনদের কথা তুলে ধরতে ঐক্য প্রক্রিয়ার সভায় গিয়েছিলেন। এটা ওনাদের ব্যাখ্যা। ঐ সভায় বিএনপি, হেফাজত ছিল । ঐ সভা ছিল রাজনৈতিক মেরুকরন দেখানোর সভা । সংহতির নেতারা বলছেন ,তারা সুযোগ নিয়েছেন ।আর যে জাতীয় সনদের কথা বলেন ,তা আওয়ামী লীগ, বিএনপিকে সঙ্গে নিয়ে । তাহলে বলতে হয়, বিএনপি আর ১৪ দলের সভায় যেয়েও আপনাদের কথা বলতে পারেন । অনেককে শোনানোর সুযোগ পাবেন ।
এটি আপনাদের স্বাধীনতা। কে আপনাদের বাঁধা দেবে ?
২.
প্রশ্ন হলো; বাম জোট তো বলছে , আওয়ামী দু:শাসন এর অবসান চাই ।আর দ্বি-দলীয় রাজনীতির বাইরে বাম গনতান্ত্রিক বিকল্প শক্তি সমাবেশ গড়ে তুলতে চাই ।
বাহ !! ভাই জাতীয় সনদ করবেন বিএনপি- আওয়ামীলীগকে নিয়ে । আর বাম জোটের রাজনীতি , এদের বিপরীতে বিকল্প গড়ার । আপনারা আবার থাকতে চান বাম জোটে । এটা কি হয় ?
হয় ! বাম জোটকে ব্যবহার করার জন্য !!
৩.
এ বিষয়ে বাম জোটের সিদ্ধান্ত কি ? সচেতন দেশবাসী ও কর্মীরা জানতে চায় ?
বুর্জোয়া দলগুলোকে রক্ষায় অনেকের অনেক ভূমিকা দেখেছি । কর্মীদের রাজপথে মার খেতে দেখেছি , দেখেছি অভিনয় করতে । আর নয় !
নীতিনিষ্ঠ বাম জোট দেখতে চাই ।
এই জোটে থেকে জোটের রাজনীতি পরিত্যাগ করে, জাতীয় সনদ এর কথা প্রচারকেই কাজ মনে করবে , তার পরও বাম জোটে ??
দয়া করে লোক হাসাবেন না।
এটা রাজনীতি হলে । এই জোটের পরিনতি বুঝতে বুঝতে বাকী থাকবে না ।
৪.
বুর্জোয়া রাজনীতির খেলা, আর তার ফাদে পা দেওয়ার কথা নাই বা এখন বললাম। বামকর্মীরা সাবধান।

 

 

Close