সম্পাদকীয়-কলাম

কোপানির্কাসের সুখ দু:খ ও পহেলা বৈশাখ

-এহসানুল আমিন ইমন

পৃথিবী সূর্যের চারিদিকে ঘোরে…কথাটি চিরন্তন সত্য নয়! কেননা এ কথাটি বলায় জ্যতির্বিজ্ঞানী কোপানির্কাস কে অন্ধত্ব বরণ করতে হয়েছিল। তবে বিষয়টি স্বেচ্ছায় নয়, সে সময়ের মনুষ মনে করতে ঠিক এর উল্টোটা। অর্থাৎ কোপানির্কাস সে সময়ের মানুষের বিশ্বাসে আঘাত করায় তারা শাস্তি হিসেবে তারা তার দুটো চোখ উপড়ে ফেলে। এর পরে কোপার্নিকাসের এই সত্যকে সমর্থন করায় গ্যালিলিও’র পরিণতিও আমরা জানি। তাই যুগে যুগে ভিন্ন মত আছে থাকবে…এটাই চিরন্তন। তবে বিজ্ঞান এখনও পর্যন্ত কোপানির্কাস-গ্যালিলিওদের সমর্থন করে এসেছে তাই আমরাও বিশ্বাস করি ‘পৃথিবী সূর্যের চারিদিকে আবর্তিত হয়’। সূর্য বর্ষ হিসেবে বাংলার বর্ষ গণনা করা হয়, সে হিসেবে পৃথিবী সূর্যের চারিদিকে আবর্তিত হয়? না কি পৃথিবী স্থির বরং সূর্যই পৃথিবীর চারিদিকে ঘোরে-এ বিষয়টি জানা খুব দরকার। বাংলা একাডেমীর বর্তমান মহাপরিচালক একটি বেসরকারী টেলিভিষন চ্যানেলের টকশো তে যা বলছিলেন তার মমার্থ হল, যারা বিজ্ঞান বিশ্বাসী তার বাংলা সাল গননা করেন সায়ান পদ্ধতিতে। বাংলাদেশ, লাওস, কম্পোচিয়া, মায়নামার সহ বেশ কিছু রাষ্ট্র এই পদ্ধতি অনুসরণ করে থাকে। আর যাদের অপ-বিজ্ঞানে আস্থা অর্থাৎ জ্যাতিষ শাস্ত্রের অপব্যাখ্যায় বিশ্বাস করেন তারা নিউরায়ন পদ্ধতিতে বাংলা সাল গণনা করেন। এই পদ্ধতিতে বাংলা সাল ক্রমশ: পেছাবে এবং একটা সময় এসে জুন মাসে চৈত্র সংক্রান্তি হবে, ভাবুন কি ভয়াবাহ পরিস্থিতি। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কিছু পন্ডিত তাদের সংস্কার-সংকীর্ণতার উর্দ্ধে না উঠার কারনে দুই বাংলায় দুই সময়ে বর্ষবরণ হচ্ছে বলে মনে করেন ভারতের অন্য পন্ডিতরা যারা জ্যতির্বিজ্ঞান নিয়ে চর্চ্চা করছেন। দক্ষিণ ভারত, বিশ্ব ভারতী সায়ান পদ্ধতিতে বর্ষ বরনের কথা সমর্থন করলেও পশ্চিমবঙ্গে তা পালন করা হচ্ছে না, ফলে বাংলা নববর্ষ পালিত হচ্ছে দুই দিনে। এই শতাব্দীতেও গ্যালিলিও-কোপার্নিকাসের আত্মদান সূর্যেকে পৃথিবী চারিদিকে প্রদক্ষিন করা থেকে বিরত রাখতে পারে নি । শুধু পশ্চিমবঙ্গে নয়, বাংলাদেশের অনেক বাঙ্গালী বিশ্বাস করে পশ্চিমবঙ্গের সাথে নববর্ষ উদযাপন ভাগাভাগি করে নেয়। এখনও কোটি কোটি বাঙ্গালী সূর্যের পৃথিবী প্রদক্ষিন অপেক্ষার প্রহর গুনছে…..এই অপবিজ্ঞানেও রাষ্ট্র নিরব। যে সালটি একেবারেই কৃষকের, দিনমজুরের, বাংলার খেটে খাওয়া মানুষের জন্য সেই বর্ষবরণেই সম্প্রদায়িকতার ছোয়া…ঐ দিকে তান্ত্রিক এই দিকে মোল্লা..বাংলার মঙ্গল শোভা যাত্রা বাংলা প্রাণ উচ্ছাসের প্রতীক সেই মঙ্গল শোভা যাত্রাকে কলষিত করার প্রয়াস, সাম্প্রদায়িক প্রলেপ দেবার চেষ্টা, নিরাপত্তার অজুহাতে কালো থাবার কাছে মানুষের পরাজয়……..আর কত?
-লেখক: সম্পাদক, বরেন্দ্র বার্তা

Close