তানোরশিরোনাম-২

রাজশাহীর তানোর উপজেলায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে আহত ৬

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি: রাজশাহীর তানোর উপজেলায় জমি সংক্রান্ত জেরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে  ছয়জন আহত হয়েছে। মঙ্গলবার (২০ নভেম্বর ) সকাল ৮ টায় উপজেলার তালন্দ ইউনিয়নের মহর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে । সংঘর্ষে গুরুতর আহত আ: মান্নান, মিজানুর রহমান, আলাউদ্দিন, মাজেদা বেগম, বকুল সোনার, ও শিফা বিবি কে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, মহর গ্রামের মৃত হাজী মোবারক মন্ডল (ওরফে বলি মন্ডল) দ্বন্দকৃত জমির মূল রেকর্ডীয় মালিক যার খতিয়ান নং ৯২৮ দাগ নং ১৫৫৬ জমির পরিমান ৮৬ শতাংশ । তিনি জীবিত থাকা অবস্থায় তার বড় মেয়ে মাজেদা বেগমকে ৭ বিঘা জমিসহ একটি পুকুর মৌখিক দান করেন। যা দির্ঘদিন যাবত তার মেয়ে স্বামী সন্তানরা ভোগ দখল করে আসছিল। ভোগ দখলে থাকা অবস্থায় মাজেদা’র ভাইয়েরা নানা রকম প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করে। ফলে মাজেদা বেগম বাদী হয়ে ২০১২ সালে রাজশাহী জজ কোর্টে একটি বাটোয়ারা মামলা দায়ের করেন । এর পাঁচবছর পর বিবাদী পক্ষের মোহাম্মদ আলী ও আহম্মদ আলী এ জমির ওপর স্থগিতাদেশ চেয়ে কোর্টে পাল্টা মামলা করেন। এর প্রেক্ষিতে গত ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭ সনে স্থগিতা দেশের মামলাটি কোর্টে খারিজ হয়ে যায়।

এরপর থেকেই দুই পক্ষের দ্বন্দ চরম রুপ ধারণ করে। মঙ্গলবারের ঘটনা সম্পর্কে আহতের ছেলে জালাল উদ্দিন জানান. দির্ঘ দিন যাবতআমাদের মামা মোহাম্মদ আলী ও আহম্মদ আলীর সাথে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। ঘটনার দিন আমাদের ঐ জমিতে বীজ বপনের উদ্দেশে আমার বড় ভাই আঃ মান্নান ও মিজানুর রহমান স্যালো মেশিন দ্বারা পানি সেচ দিতে যায়। এ খবর পেয়ে আমার দুই মামা সহ তাদের  ছেলে রশিদ, মোস্তাকিম ও আব্দুল্লাহ আল জীবন সহ ৮-১০ জন হেলমেট পরিহিত ভাড়াটে মাস্তান হাসুয়া, লোহার রড ও লাঠি সোটা নিয়ে দুই ভাইয়ের ওপর আক্রমন চালায়। সেখানে আলাউদ্দিন ও মিজানুর কে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে । তাদের মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কোপানো হয়। আহত দুই ভাইকে উদ্ধার করতে এগিয়ে আসে ভগ্নিপতি বকুল সোনার ও শিফা বিবি তাদের কেউ প্রতি পক্ষের মর্জিনা বিবি ও মোমেনা বেগম কুপিয়ে আহত করে। এমনকি ছাড় পায়নি তাদের বৃদ্ধ মামাজেদা বেগম । তাকেও লাঠি পেটা করা হয়। বর্তমানে তিনি সজ্ঞাহীন অবস্থায় রামেক হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এ ঘটনায় তানোর থানায় প্রতি পক্ষের মোহাম্মদ ও আহম্মদ আলীসহ ৭ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বরেন্দ্র বার্তা/মার/এই

 

 

 

Close