বাগমারাশিরোনাম

বাগমারায় স্কুল শিক্ষকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

বাগমারা প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাগমারায় গলায় ফাঁস দিয়ে প্রশান্ত কুমার মন্ডল (৪২) নামে এক স্কুল শিক্ষক আত্মহত্যা করেছে। শুক্রবার রাতে কোন এক সময়ে সে বাড়ির পার্শ্বে ঝোপ জঙ্গলের মধ্যে গলায় ফাঁস দিয়ে মারা গেছে। গতকাল সকালে স্থানীয় এক প্রতিবেশী জঙ্গলে তার মৃত দেহ দেখে চিৎকার দিলে আশে পাশের লোকজন তার লাশ সনাক্ত করে।
জানা গেছে, বাগমারা উপজেলার বড়বিহানালী ইউনিয়নের বেড়াবাড়ি গ্রামের পরিমল মন্ডলের ছেলে প্রশান্ত কুমার মন্ডল। সে বড়বিহানালী বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক। সে এক পুত্র সন্তানের জনক। আত্মহত্যার আগে তার হাতের লেখা একটি চিরকুট লেখে রেখে গছেন। তার মৃত্যুর জন্য কাউকেও তিনি দোষারোপ করেনি। মৃত্যুর জন্য সে নিয়তির পরিনামকে দোষী করে পিতা-মাতাসহ সকলের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। প্রতিবেশী ও তার পিতা-মাতা সুত্রে জানা গেছে, পারিবারিক ভাবে স্ত্রীর সাথে বনিবনো না হওয়ায় দীর্ঘ দিন ধরে স্ত্রীর মামলায় শিক্ষক অস্থির জীবন যাপন করছিল। প্রতিদিনের মত গতকাল রাতে খাবার খেয়ে সে ঘুমিয়ে পড়ে। রাতের কোন এক সময় নিজ শয়ন কক্ষ হতে বের হয়ে পাশে জংগলে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করে প্রশান্ত কুমার। পরে গতকাল শুক্রবার সকালে তার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয় এক কৃষক সবাইকে ডাকা-ডাকি করে। বাড়ির লোকজন এসে তার লাশ দেখে থানায় খবর দেয়। পুলিশ দুপুরে লাশের ময়না তদন্তের জন্য উদ্ধার করে। এ বিষয়ে বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসিম আহম্মেদ বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে বলে তিনি জানান ।

বাগমারা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রাসেল কবির জানান, বনিবনা না হওয়ায় শিক্ষক প্রশান্ত কুমারের সঙ্গে তাঁর স্ত্রীর বিচ্ছেদ হয় কয়েক মাস আগে। স্ত্রী রাজশাহীর আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে তাঁর বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছেন। মামলাটি বিচারাধীন। এ ছাড়া প্রশান্ত কুমার আর্থিক সংকটেও ভুগছিলেন। বরেন্দ্র বার্তা/আম/নাশি/আসশ

Close