মহানগরশিরোনাম-২সাহিত্য ও সংস্কৃতি

কালচারাল একাডেমির রোকেয়া দিবস পালন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বেগম রোকেয়ার জন্ম ও মৃত্যু দিবস উপলক্ষে রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালাচারাল একাডেমির আয়োজনে আজ রোববার রোকেয়া দিবস পালিত হয়।

সেইসাথে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর নারীদের সম্মাননা প্রদান, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন অত্র একাডেমির উপ- পরিচালক ও স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন। প্রধান অতিথি ছিলেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার ও একাডেমির সভাপতি নূর-উর-রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার রেঞ্জ রাজশাহী ডিআইজির কার্যালয় আব্দুস সালাম, আরএমপি’র ডেপুটি পুলিশ কমিশনার জয়নাল আবেদীন, একাডেমির নির্বাহী সদস্য যোগেন্দ্রনাথ সরেন, কামিল্লা বিশ্বাস ও দিঘরী রাজাপাড়া পরিষদের উপদেষ্টা চিত্তরঞ্জন সরদার। আরো উপস্থিত ছিলেন, অত্র একাডেমির গবেষনা কর্মকর্তা বেঞ্জামিন হাঁসদা ও প্রশিক্ষক মানুয়েল সরেন। আলোচনার সভার পুর্বে সমাজ উন্নয়নে বিশেষ অবদান রাখায় দেওপাড়া ইউপি নারী সদস্য কস্তান্তিনা হাঁসদা, সমীরন কিস্কু, শিক্ষা ও চাকুরী ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখায় কল্যানী মিনজি ও ডাক্তার বর্ষা যাচিন্তা সরেনকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

কালচারাল একাডেমির রোকেয়া দিবস পালন

প্রধান অতিথি বলেন, এই সম্মাননার মাধ্যমে ক্ষুদ্রনৃগোষ্ঠীর নারীদের উদ্বুদ্ধ করায় কালচারাল একাডেমিকে ধন্যবাদ। সেইসাথে সম্মাননা পুরস্কার প্রাপ্তদের তাদের জাতী গোষ্ঠীর নারীদের সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখার আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, সমতলের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর থেকে পাহাড়িয়া নৃগোষ্ঠীর জনগণ সকল দিক থেকে এগিয়ে রয়েছে। তাদের মত হতে হলে লেখাপড়া শিখতে হবে, মাদক ছাড়তে হবে এবং বাল্য বিবাহ বন্ধ করতে হবে।
উপস্থিত আদিবাসী নেতৃবৃন্দ বলেন, আদিবাসী জনগণ এখনো উপেক্ষিত রয়ে গেছে। প্রতিনিয়ত তারা নির্যাতনের স্বীকার হচ্ছে, জমি হারাচ্ছে। এই সকল নির্যতিন থেকে পরিত্রাণের জন্য প্রধান অতিথির হস্তক্ষেপ কামনা করেনতাঁরা। আলোচনা শেষ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

বরেন্দ্র বার্তা/ নাসি

Close