চারঘাটজাতীয়শিরোনাম

রাজশাহী-৬ আসনে চাঁদের প্রার্থীতা বাতিল, প্রার্থীশূন্য আসনে পুনঃতফসিল চায় বিএনপি

বিশেষ প্রতিনিধিঃ আদালতের রায়ে রাজশাহী-৬ আসনে বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যজোটের প্রার্থী আবু সাঈদ চাঁদের প্রার্থীতা বাতিল। বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যজোটের এই আসনসহ আটটি আসন প্রার্থীশূন্য,এসব আসনে পুনঃতফসিল চায় বিএনপি।

রাজশাহী-৬ (চারঘাট-বাঘা) আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থী পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের প্রতিদ্বন্দ্বী কারাবন্দি বিএনপি প্রার্থী আবু সাঈদ চাঁদের প্রার্থিতা স্থগিত করে হাইকোর্ট।

পৃথক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি খায়রুল আলমের বেঞ্চ শুনানি শেষে চাঁদসহ বিএনপির ৮ প্রার্থীর বৈধতা স্থগিত করেন। ফলে নির্বাচনে চাঁদ অযোগ্য ঘোষিত হলেন। তবে চারঘাট উপজেলা বিএনপির দফতর সম্পাদক জালাল উদ্দিন জানান, তারা হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করবেন। প্রার্থিতা স্থগিত হওয়া চাঁদসহ বিএনপির দলীয়  ৮ প্রার্থী উপজেলা পদ ছেড়ে নির্বাচন করছিলেন বলে জানা গেছে।

বিএনপির দলীয় সূত্র জানায়, উপজেলা চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করা সংক্রান্ত জটিলতায় শুরুতেই বিএনপি নেতা আবু সাঈদ চাঁদের মনোনয়নপত্র বাতিল করেন রাজশাহী জেলা রিটার্নিং অফিসার। তবে নির্বাচন কমিশনে আপিল করে পরে মনোনয়নপত্রের বৈধতা ফিরে পান তিনি।

এদিকে বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত পৃথক আবেদনের সঙ্গে অন্য ৭ প্রার্থীর সঙ্গে চাঁদের মনোনয়নপত্রের বৈধতা সংক্রান্ত দেয়া কমিশনের আদেশ স্থগিত করা হয়।

আদালতের রায়ে যেসব আসন বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যজোটের প্রার্থীশূন্য হয়ে গেছে, সেসব আসনে পুনঃতফসিল ও বিকল্প প্রার্থী দেওয়ার দাবি করেছে বিএনপি। বৃহস্পতিবার বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সাক্ষাত শেষে সাংবাদিকদের এ দাবির কথা জানান।
নজরুল ইসলাম খান বলেন, আমরা জানি যে নির্বাচন নিয়ে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত। এক্ষেত্রে নির্বাচনি ট্রাইব্যুনালে যাওয়া যায়। কিন্তু, আমাদের প্রার্থীদের নির্বাচন কমিশন বৈধতা দেওয়ার পর আদালত তা বাতিল করছেন। আমরা একজন প্রার্থীকে তো নির্বাচনি এলাকায় পরিচিত করেছি। এখন এসে আমাদের প্রার্থী বাতিল করা হলো। নির্বাচন কমিশন বৈধ ঘোষণার পর আদালত অবৈধ ঘোষণা করায় আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি। ইসির ভুলে আমরা কেন শাস্তি পাবো? তিনি বলেন, আমরা নির্বাচন কমিশনের কাছে দু’টি প্রস্তাব করেছি। প্রথমত:  আদালতে রায়ে যে ৮টি আসন আমাদের প্রার্থী শূন্য হয়ে গেছে, সেসব আসনে পুনঃতফসিল দেওয়া হোক অথবা আমাদের অন্য যে বৈধ প্রার্থী ছিল তাদের মধ্য থেকে প্রার্থিতা দেওয়া হোক। নির্বাচন কমিশন আমাদের বক্তব্য শুনে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানিয়েছে।
রিটার্নিং কর্মকর্তা ও নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তে বিএনপির যেসব প্রার্থী বৈধ হয়েছে, তাদের মধ্যে অন্তত আটটি আসনে আটজন প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল করেছেন আদালত।

বিএনপি প্রার্থীশূন্য আসনগুলোর মধ্যে রয়েছে জামালপুর-৪ আসন, বগুড়া-৩, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪, রংপুর-১, ময়মনসিংহ-৮, ঝিনাইদহ-২, জয়পুরহাট-১, রাজশাহী-৬।বরেন্দ্র বার্তা/এই

Close