ট্রাভেল ও ট্যুরিজমশিরোনামসাহিত্য ও সংস্কৃতি

পৌষের অন্তিম

পৌষ,মকর সংক্রান্তি,সাকরাইন বা ঘুড়ি উড়ানো উৎসব

পৌষ তোদের ডাক দিয়েছে, আয় রে চলে,   আ য় আ য় আয়।
ডালা যে তার ভরেছে আজ পাকা ফসলে,   মরি   হায়   হায়   হায়॥
          হাওয়ার নেশায় উঠল মেতে   দিগ্‌বধূরা ধানের ক্ষেতে–
রোদের সোনা ছড়িয়ে পড়ে মাটির আঁচলে,   মরি   হা য়   হা য়   হায়॥

বরেন্দ্র বার্তা ডেস্কঃপৌষ মাসের শেষ দিনে আয়োজন করা হয় এই উৎসবের।  পৌষ সংক্রান্তিতে মূলত নতুন ফসলের উৎসব ‘পৌষ পার্বণ’ উদযাপিত হয়। গ্রাম বাংলায় এই উৎসবে বাড়িতে বাড়িতে পিঠার আয়োজন করা হয়। আয়োজন করা হয় ঘুড়ি উৎসবের। কোথাও কোথায় এই সংক্রান্তিতে মেলাও হয়।

ভারতীয় জ্যোতিষ শাস্ত্র অনুযায়ী সংক্রান্তি’ একটি সংস্কৃত শব্দ, এর দ্বারা সূর্যের এক রাশি থেকে অন্য রাশিতে প্রবেশ করাকে বোঝানো হয়ে থাকে। ১২টি রাশি অনুযায়ী এরকম সর্বমোট ১২টি সংক্রান্তি রয়েছে।
মহাভারতেও এই দিনের তাৎপর্য সম্পর্কে উল্লেখ রয়েছে। তাই সামাজিক এবং ভৌগোলিক গুরুত্ব ছাড়াও এই দিনটি ঐতিহাসিক এবং ধর্মীয় গুরুত্ব বহন করে। ধর্মীয় গুরুত্বের জন্য বিভিন্ন স্থানে দিবসটিতে কীর্তন, পালা গানের আয়োজন করা হয়ে থাকে। মকর সংক্রান্তি বা পৌষ সংক্রান্তিতে মূলত নতুন ফসলের উৎসব ‘পৌষ পার্বণ’ উদযাপিত হয়। নতুন ধান, খেজুরের গুড় এবং পাটালি দিয়ে বিভিন্ন ধরনের ঐতিহ্যবাহী পিঠা তৈরি করা হয়, যার জন্য প্রয়োজন হয় চালের গুঁড়া, নারিকেল, দুধ আর খেজুরের গুড়। পৌষ সংক্রান্তির মাধ্যমে আমরা পৌষ মাসকে বিদায় জানাই ও মাঘ মাসকে আলিঙ্গন করি। সংক্রান্তির দিনে বাংলার বধূরা নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী বিভিন্ন নকশা ও সুস্বাদু পিঠা তৈরী করে।

এছাড়া পৌষ সংক্রান্তির অন্যতম আকর্ষণ হলো সাকরাইন বা ঘুড়ি উৎসব। রাজধানীর পুরান ঢাকায় এই উৎসব মহাসমারোহে পালিত হয়। চলে আতশবাজি ও ফানুসের ওড়াউড়ি। সকাল থেকেই চলছে ঘুড়ি উড়ানোর প্রতিযোগিতা। রাতে আতশবাজি কিংবা ফানুস দেখতে চাইলে মিস করবেন না, এখনই চলে যান পুরান ঢাকার কোনও বাড়ির ছাদে। পরিচিত- অপরিচিত যেই হন না কেনও, আপ্যায়নের ত্রুটি নেই এই উৎসবে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে, বিশেষত দক্ষিণ এশিয়ায় এই দিবস বা ক্ষণকে ঘিরে উদযাপিত হয় উৎসব। নেপালে এই দিবসটি মাঘি নামে, থাইল্যান্ডে সংক্রান, লাওসে পি মা লাও, মিয়ানমারে থিং ইয়ান এবং কম্বোডিয়ায় মহাসংক্রান নামে উদযাপিত হয়। অবশ্যিকভাবে দেশ ভেদে এর নামের মতোই উৎসবের ধরণে থাকে পার্থক্য। বরেন্দ্র বার্তা/ অপস

Close