মহানগরশিরোনাম-২

রাজনীতি ও কর্মক্ষেত্রে নারী পুরুষের কোন ভেদাভেদ নাই-আসাদ

বিশেষ প্রতিনিধি : নারীর জয়ে সবার জয় এই প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে ইউএসএআইডি, ডেমোক্রসি ইন্টারন্যাশনাল ও ইউকেএইড এর আয়োজনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে অগ্রগতির জন্য সমতা, রাজনীতিতে নারী বিষয়ে  সোমবার আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

নগরীর সাহেব বাজারস্থ একটি কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জমান আসাদ, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান চঞ্চল, আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও মহানগর মহিলা লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মালিহা জামান মালা, সোনার দেশ পত্রিকার সম্পাদক হাসান মিল্লাত, জেলা পরিষদের সংরক্ষিত নারী আসনের সদস্য কৃষ্ণা দেবী, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি সালমা রেজা, সাধারণ সম্পাদক নিলুফার ইয়াসমিন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মর্জিনা পারভীনসহ রাজশাহী বিভাগের ৫টি জেলার মহিলা লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের সমন্বয়কারী আফসানা মিমি।
উপস্থিত নারী নেতৃগণ বলেন, তারা রাজনীতিতে এখনো সমসুযোগ পাননি। দলীয় কমিটিতে ৩৩% পার্সেন নারী কোটা থাকলেও বিভিন্ন কমিটিতে এর সংখ্যা মাত্র ৪%। এছাড়াও একাদশ জাতয়ি সংসদ নির্বাচনে সরসরি ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন মাত্র ২৩ জন নারী। সংরক্ষিত আসনে ৫০জন নারী সংসদ সদস্য হলেও তারা পুর্নাঙ্গ ক্ষমতা পুরুষ সংসদ সদস্যর জন্য প্রয়োগ করতে পারেনা। সেইসাথে স্থানীয় সরকারে নারী সদস্যদের অবস্থা আরো করুন বলে জানান তারা। বিভিন্ন সভা ও সেমিনার এবং সিন্ধান্তের জায়গায় স্থান পাননা বলেও অভিযোগ করেন তারা। সরকার ঘোষিত ২০২০ সালের মধ্যে রাজনৈতিক সকল কমিটিতে ৩৩% নারী অন্তর্ভূক্তি ও নারী সদস্যদের পূর্নাঙ্গ ক্ষমতা প্রদানের দাবী জানান।
এবিষয়ে আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, রাজনীতিতে কেউ কাউকে জায়গা করে দেয়না। নিজের স্থান নিজেকে গড়ে নিতে হয়। বর্তমান প্রদানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও রওশন এরশাদকে করো সঙ্গে দন্দ করে দলের সভাপতির পদ নিতে হয়নি। তাঁদের রাজনৈতিক প্রজ্ঞা, সাহস, একাগ্রতা, দেশ প্রেম এবং জনগণের প্রতি ভালবাসা ও সর্বপরি যোগ্যতা দেখে এই গুরুত্বপূর্ন পদ তাঁরা পেয়েছেন। জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও স্থানীয় সংসদ নির্বাচনে সরসরী নির্বাচন করার জন্য নারীদের প্রতি আহবান জানান। সেইসাথে কাউন্সিলে প্রতিদন্দিতা করে যোগ্যতা দেখিয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদে আসিন হওয়ার আহবান জানান তিনি। এদিকে ডাবলু সরকার বলেন, নারীরা নিজেরদের যোগ্য করে গড়ে তোলার থেকে অন্য নারী এগিয়ে গেলে তাকে কিভাবে পেছনে নেওয়া যায় তার জন্য তৎপর হয়ে উঠে। এক ধরনের হিংসা তাদের মধ্যে কাজ করে। নিজেদের মধ্যে হিংসা বিদ্বেষ এবং দলাদলি না করে নিজেকে রাজনীতি করার উপযোগি করে গড়ে তোলার আহবান জানান ডাবলু। বরেন্দ্র বার্তা/ফকবা/অপস

Close