মহানগরশিরোনাম

অবশেষে ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ রাজশাহীতে পৌছেছে, বৃহ:স্পতিবার উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক: অবশেষে ঢাকা-রাজশাহী-ঢাকা রুটে চলাচলের জন্য বিরতিহীন ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ ট্রেনটি রাজশাহী ষ্টেশনে আনা হয়েছে। আগামী বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) উদ্বোধন করা হবে ট্রেনটির। বুধবার সকালে স্টেশনের প্লাটফর্মে আনা হয়।এখন শুধু উদ্বোধনের জন্য অপেক্ষা।
বৃহস্পতিবার সকালে ট্রেনটি ভিডিও কনফারেন্সিং-এর মাধ্যমে উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগদানের জন্য রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে উপস্থিত থাকবেন। তিনি আগামীকাল বুধবার ঢাকা থেকে রাজশাহীর উদ্দেশে রওনা হবেন
বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টায় রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে উপস্থিত থেকে রেলমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর সাথে যুক্ত হবেন। রেলমন্ত্রী সকাল ১১টা ১০ মিনিটে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন হতে ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ ট্রেনযোগে ঢাকার উদ্দেশে রাজশাহী ত্যাগ করবেন।
দেশের প্রথম ও সর্বাধুনিক হাইস্পিড ট্রেনের তালিকায় যোগ হওয়া ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ট্রেনটিতে যোগ হচ্ছেনা নতুন কোনো ইঞ্জিন। বরং নতুন বডির সাথে জুড়ে দেয়া হচ্ছে পুরোনো দুটি ইঞ্জিন। ফলে প্রত্যাশিত গতিবেগ পাওয়ার সম্ভাবনা নেই রাজশাহী-ঢাকা রুটের প্রথম ও একমাত্র বিরতিহীন ও আধুনিক এই ট্রেনটির।
পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বলছে, বনলতা চলাচলের জন্য যে দুটি ইঞ্জিন প্রস্তুত রাখা হয়েছে সেগুলো ২০১৩ সালে ভারত থেকে আমদানি করা। এই ইঞ্জিনে ঘণ্টায় সর্ব্বোচ্চ গতিবেগ ৯০ থেকে ৯৫ কিলোমিটার।অবশেষে ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ রাজশাহীতে পৌছেছে, বৃহ:স্পতিবার উদ্বোধন
অন্যদিকে, বনলতার সর্বাধুনিক হাইস্পিড কোচের ঘণ্টায় গতিবেগ ১৪০ কিলোমিটার। নতুন ইঞ্জিন পেলে এটি প্রতি মিনিটে পাড়ি দিতে সক্ষম আড়াই কিলোমিটার পথ। ৩৪৩ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে এই ট্রেন ৪ থেকে সাড়ে ৪ ঘণ্টায় পৌঁছে যেতো গন্তব্যে।
বিরতিহীন হওয়ায় বনলতায় ভ্রমণকারীদের বিদ্যমান ভাড়ার সঙ্গে অতিরিক্ত ১০ শতাংশ ভাড়া গুনতে হবে। এর সঙ্গে ১৮০ টাকা গুনতে হবে খাবার বিল। এই খাবার সরবরাহ সৌজন্যমূলক বলা হলেও মূল্য পরিশোধ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।
ঈশ্বরদীতে অবস্থিত রেলের ক্যারেজ অ্যান্ড ওয়াগন বিভাগের ইনচার্জ একেএম গোলাম হাক্কানি জানান, নতুন ট্রেনের মোট বগির সংখ্যা ১২টি। এর মধ্যে শোভন চেয়ারের বগি ৭টি, যার আসন সংখ্যা ৬৬৪টি। এসি বগি ২টি, আসন সংখ্যা ১৬০টি। একটি পাওয়ার কারের আসন সংখ্যা ১৬টি। দুটি গার্ডব্রেকের আসন সংখ্যা ১০৮টি। ট্রেনটিতে থাকছে একটি খাওয়ার বগি। বনলতায় মোট আসন হবে ৯৪৮টি।
রেলের ডিজেল ও লোকমোটিভ বিভাগে ঈশ্বরদীতে দায়িত্বে থাকা উপ-সহকারী প্রকৌশলী ইনচার্জ আবু উসমান জানান, বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের যে ইঞ্জিন দুটি ব্যবহৃত হবে সেগুলো সৈয়দপুর রেল কারখানায় রয়েছে। সোমবার ঈশ্বরদী জংশনে পৌঁছাবে। ভারত থেকে আনা এই ইঞ্জিনগুলো খুবই ভালো মানের বলে জানান তিনি।বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close