অর্থ ও বাণিজ্য

মেয়াদোত্তীর্ণ খেজুর, জরিমানা ৩৫ লাখ

অর্থ-বাণিজ্য ডেস্ক : রমজানকে সামনে রেখে ফের সক্রিয় হয়ে উঠছে এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী। এক বছর আগেই শেষ হয়ে যাওয়া খেজুরের মেয়াদ আরও এক বছর বাড়িয়ে বিক্রির পায়তারা নস্যাৎ করে দিয়েছে র‌্যাব। বুধবার রাতে রাজধানীর ফরাসগঞ্জের একটি কোল্ড স্টোরেজে অভিযান চালিয়ে ১১০ টন পচা খেজুর জব্দ ও দুটি প্রতিষ্ঠানকে ৩৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া, পচা খেজুর বিক্রির উদ্দেশ্যে মজুদের দায়ে এক ব্যবসায়ীকে দুই বছরের কারাদণ্ড দেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।
আসন্ন রমজানকে কেন্দ্র করে এই খেজুরগুলোই বাজারে ছেড়ে দেয়ার পায়তারা করছিলেন কিছু বিক্রেতা। তবে র‌্যাব বলছে, এসব খেজুরের প্যাকেটে যদিও লেখা রয়েছে ২০২০ সাল মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ তবে আরেও এক বছর আগেই এই খেজুরের মেয়াদ শেষ হয়েছে।
বুধবার (২৪ এপ্রিল) রাতে পুরান ঢাকার ফরাশগঞ্জের সিটি আইস অ্যান্ড কোল্ড স্টোরেজে অভিযানে যায় র‌্যাব। তিন তলার এই কোল্ড স্টোরেজে নানা ধরণের ফলের মাঝে সব থেকে বেশি পাওয়া যায় খেজুর।
তবে এসব খেজুরের প্যাকেট খুলতেই বেরিয়ে আসে উৎকট গন্ধ। স্বাভাবিক দৃষ্টিতেই বোঝা যায়, অনেকটা কালচে রূপ ধারণ করা খেজুরগুলো খাওয়ার যোগ্যতা হারিয়েছে অনেক আগেই। ভোক্তার চোখ ফাঁকি দিতে মানহীন এসব খেজুরের গায়ে এক প্রকার তৈলাক্ত দ্রব্য মিশিয়ে ছাড়া হতো বাজারে।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট র‌্যাব সারোয়ার আলম বলেন, প্রচুর পরিমাণ খেজুর রয়েছে, যেগুলোর একবছর আগেই মেয়াদ শেষ হয়েছে। কিন্তু সেই খেজুরগুলোই নতুন করে প্যাকেট করে বিক্রি করা হচ্ছে। এগুলো অনেক বড় অপরাধ।
অভিযানে মানহীন খেজুর মজুদের দায়ে সিটি কোল্ড স্টোরেজকে ২০ লাখ টাকা জরিমানা এবং ফল বিক্রির প্রতিষ্ঠান আহনাফ এন্টারপ্রাইজকে ১৫ লাখ টাকা জরিমানা করে র‌্যাব। এছাড়া, পচা খেজুর বিক্রির পায়তারার দায়ে আহনাফ এন্টারপ্রাইজের মালিক ইয়াসিন ব্যাপারীকে ২ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।
সিটি আইস এন্ড কোল্ডস্টোরেজ ইনচার্জ ফকির মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান বলেন, আমরা তো প্যাকেট খুলে আগে দেখতে পারিনা। ব্যবসায়ীদের একটা নিষেধ আছে। এখন যা দেখলাম, এতে পরবর্তীতে প্যাকেট খুলে দেখতেই হবে।
যেকোনো প্রকার ভেজাল বন্ধে পুরো রমজান মাস জুড়েই অভিযান চলবে বলে জানিয়েছেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close