জাতীয়শিরোনাম-২

খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জয়ী তালুকদার আবদুল খালেক

ডেক্স রিপোট: মঙ্গলবার (১৫ মে) অনুষ্ঠিত খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক মেয়র পদে বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন।  মঙ্গলবার রাতে ঘোষিত ফলাফলে তিনি বিএনপির প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জুর চেয়ে ৬৭ হাজার ৯৪৬ ভোটের ব্যবধানে জয়ী হন।

এ নির্বাচনে  মোট ভোটার ছিল ৪ লাখ ৯৩ হাজার ৯৩ জন। মোট ২৮৯টি কেন্দ্রের মধ্যে ঘোষিত ২৮৬টি কেন্দ্রের অনানুষ্ঠানিক ফলাফলে নৌকা প্রতীকের তালুকদার আবদুল খালেক পেয়েছেন ১ লাখ ৭৬ হাজার ৯০২ ভোট। ধানের শীষ প্রতীকের নজরুল ইসলাম মঞ্জু পেয়েছেন ১ লাখ ৯ হাজার ২৫১ ভোট।

আওয়ামী লীগ এই নির্বাচন নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছে। বিজয়ের পর তালুকদার আবদুল খালেক খুলনাবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেছেন, সবাইকে সঙ্গে নিয়ে তিনি খুলনাকে নতুনভাবে সাজাতে চান।

রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, নির্বাচন কমিশন সন্তুষ্ট। দু-একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুন্দর হয়েছে।

তবে নির্বাচনের আগে ও পরে বিএনপির পক্ষ থেকে পোলিং এজেন্টদের ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে বাধা দেওয়া, কেন্দ্র দখল, জাল ভোট প্রদান, নেতা-কর্মীদের চাপের মুখে রাখাসহ নানা অভিযোগ করা হয়েছে।

নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রত্যক্ষ মদদে ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মীরা ফলাফল নিজেদের পক্ষে নেওয়ার চেষ্টা চালিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। গতকাল নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কয়েক দফা সংবাদ সম্মেলন করে এসব অভিযোগ করেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, তাঁদের কাছে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ২৮৯টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ১৫০ টির অধিক কেন্দ্র দখল হয়েছে।

খুলনা সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী ছিলেন পাঁচজন। অন্য প্রার্থীদের মধ্যে হাতপাখা প্রতীকের মেয়র পদপ্রার্থী মুজ্জাম্মিল হক ১৪ হাজার ৩৬৩ ভোট, জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রার্থী এস এম শফিকুর রহমান (লাঙ্গল) ১০৭২ এবং কাস্তে প্রতীকে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) মিজানুর রহমান ৫৩৪ ভোট পেয়েছেন।

খুলনা সিটি নির্বাচনে ৩১টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী ছিলেন ১৪৮ জন। এ ছাড়া ১০টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৩৫ জন নারী কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

বরেন্দ্র বার্তা/অপস

 

 

Close