মহানগরশিরোনাম

বুধবার ঈদ, চাঁদ দেখা কমিটির নতুন সিদ্ধান্ত: জেনে নিন রাজশাহীতে কখন কোথায় ঈদের জামাত

কাল ঈদ
আরএমপির নির্দেশনা ও তিন স্তরের নিরাপত্তা
জেনে নিন কখন কোথায় ঈদের জামাতের সময়সূচী

নিজস্ব প্রতিবেদক: আজ রাত পোহালেই পবিত্র ঈদ উল ফিতর। ১৪৪০ হিজরি সনের শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে। বুধবার সারা দেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। ধর্মপ্রতিমন্ত্রী শেখ আবদুল্লাহ রাত সোয়া ১১টার দিকে সংবাদ ব্রিফিং করে এ কথা জানিয়েছেন।
এর আগে আজ মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠকের পর জানানো হয় দেশের কোথাও চাঁদ দেখা যায়নি। তাই বৃহস্পতিবার ঈদ উদযাপনের সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। এর ঘণ্টা দুয়েক পরে নতুন সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।
এই সংবাদ ও আবাহাওয়া অফিসের তথ্য বিশ্লেষণ করে তখন কমিটি জানায়, চলতি বছর দেশে ৩০টি রোজা পালিত হবে এবং ঈদ উদযাপিত হবে বৃহস্পতিবার। তবে এর কিছুক্ষণ পর আবারও বৈঠকে বসে কমিটি।
লালম‌নিরহা‌টের পাটগ্রা‌মে ৭ জন সরাস‌রি চাঁদ দে‌খে‌ছে এবং আরও ১১ জন দে‌খে‌ছেন ব‌লে জা‌নি‌য়ে‌ছেন স্থানীয় জেলা প্রশাসক। ‌বেশ ক‌য়েকজন আলেম ওলামা চাঁদ দেখার বিষয়‌টি নি‌শ্চিত ক‌রেন। চাঁদ দেখার সিদ্ধান্ত‌টি ইসলা‌মি শরিয়ত মোতা‌বেক করা হ‌চ্ছে ব‌লে জানান। চাঁদ দেখার মধ্য দিয়ে এক মাস ধরে সংযম সাধনার ইতি ঘটল। এরইমধ্যে শুরু হয়ে গেছে শুভেচ্ছা বিনিময়। রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
বুধবার শুরু হবে ঈদের নামাজ আদায়ের মধ্য দিয়ে। বিভিন্ন ঈদগাহে আজকের মধ্যেই সে জন্য প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। প্রস্তুত রাজধানীর জাতীয় ঈদগাহ প্রাঙ্গণ। বৃষ্টি বা দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া প্রতিবন্ধকতা হিসেবে দাঁড় হতে পারে। সে জন্য অবশ্য বিকল্প ব্যবস্থা রাখা হয়েছে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে।
নামাজের পরপরই ঈদগাহগুলোতে চিরচেনা এবং কাঙ্ক্ষিত দৃশ্যের অবতারণা হবে। প্রত্যেক মুসলমান একে অপরের সঙ্গে কুশল বিনিময় করবেন। শ্রেণি-বর্ণ-বয়সনির্বিশেষে হবে সেই আলিঙ্গন। ভ্রাতৃত্বের বন্ধনের এ এক মধুর বহিঃপ্রকাশ।

আরএমপির নির্দেশনা ও তিন স্তরের নিরাপত্তা
রাজশাহীতে নিবিঘ্নে ঈদ উদযাপনের জন্য আরএমপির তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে। জনসচেতনতায় এরইমধ্যে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছে নগর পুলিশ।
গুজব সৃষ্টিকারীদের বিষয়ে সবাইকে সর্তক থাকার পরামর্শ দিয়েছে আরএমপি। এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে দ্রুত নিকটস্থ পুলিশকে অবহিত করার আহ্বান জানিয়েছে।
অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সকল প্রকার অস্ত্রশস্ত্র বহন, আতশবাজি পোড়ানো, পটকা ফোটানো, বিস্ফোরক দ্রব্য বহন, সংরক্ষণ, ক্রয়-বিক্রয় এমনকি উচ্চস্বরে মাইকিংও নিষিদ্ধ করেছে নগর পুলিশ।
আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ারও ঘোষণা দেয়া হয়েছে।
ঈদের জামায়াতে আগত মুসল্লিদের জায়নামাজ ব্যতীত অতিরিক্ত কোনো কিছু সঙ্গে না আনার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে নগর পুলিশ। নির্ধারিত গেট দিয়ে শৃঙ্খলা মেনে প্রবেশ এবং নামাজ শেষে সারিবদ্ধভাবে বের হবারও অনুরোধ জানানো হয়েছে।
নগর পুলিশের মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তিনি বলেন, নিরাপদ ও নির্বিঘ্নে উদযাপনে নগরজুড়ে বিশেষ নিরাপত্তা পরিকল্পনা নিয়েছে নগর পুলিশ। জনসচেতনতায় গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।
আরএমপির তরফ থেকে থাকছে পুলিশ কন্ট্রোল রুম। সহায়তায় যে কেউ ০৭২১-৭৬০১৭০, ০১৭৬৯-৬৯০৫১৬ এবং ৯৯৯ নম্বরে যোগাযোগ করতে পারেন। নগরীর নিরাপত্তায় সবার সর্বাত্মক সহায়তা চান এই নগর পুলিশ কর্মকর্তা।

জেনে নিন কখন কোথায় ঈদের জামাতের সময়সূচী
রাজশাহীতে ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে ঐতিহ্যবাহী শাহ মখদুম (রহ.) কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে সকাল ৮টায়। জামাতে এবারও ইমামতি করবেন হযরত শাহ মখদুম (রহ.) জামিয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মুফতি শাহাদাৎ আলী।
বৈরী আবহাওয়া বিরাজ করলে একই সময়ে হযরত শাহ মখদুম (রহ.) দরগা মসজিদে একাধিক ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে।
সিটি করপোরেশন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের রাজশাহী বিভাগীয় অফিস ও মহানগরীর শাহ মখদুম দরগা ট্রাস্ট এসব তথ্য জানিয়েছে।
রাজশাহী মহানগরীতে প্রধান ঈদগাহ ছাড়াও ২৫টি ঈদগাহ প্রস্তুত করেছে। এসব ঈদগাহের বেশিরভাগেই সকাল ৮টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। জেলা-উপজেলা পর্যায়েও ও সকাল সাড়ে ৭টা থেকে সাড়ে ৮টার মধ্যেই ঈদ জামাত সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
রাজশাহী শাহ মখদুম দরগা ট্রাস্ট এবং স্থানীয় সূত্রে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, নগরীতে প্রথম ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে ৭টায় মহানগরীর নওদাপাড়া আমচত্বর আহলে হাদিস মাঠে। এরপর সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত বিভিন্ন পয়েন্টে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।
সকাল ৮টায় যেসব ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে সেগুলো- মহানগরীর সাহেব বাজার বড় রাস্তা, হাজী লাল মুহাম্মদ ঈদগাহ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ঈদগাহ, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ঈদগাহ, বুলনপুর ঈদগাহ, মসজিদ-ই-নূর ঈদগাহ, কয়েরদাড়া ঈদগাহ, মদিনাতুল উলুম কামিল মাদ্রাসা, ডিঙ্গাডোবা ঈদগাহ মাঠ, কাশিয়াডাঙ্গা সিটি গেট ঈদগাহ, কাশিয়াডাঙ্গা ঈদগাহ, মির্জাপুর পূর্বপাড়া ঈদগাহ, ফিরোজাবাদ ঈদগাহ এবং বালিয়াপুকুর জামে মসজিদ।
সকাল সোয়া ৮টায় ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে- বিভাগীয় স্টেডিয়াম (তেরখাদিয়া) ঈদগাহ, শিরোইল সরকারি হাই স্কুল ঈদগাহ, মালদা কলোনী ঈদগাহ, শিরোইল স্কুল ঈদগাহ এবং রামচন্দ্রপুর মহলদারপাড়া ঈদগাহ।
সকাল সাড়ে ৮টায় রাজশাহী জজ কোর্ট ঈদগাহ, লক্ষ্মীপুর ভাটাপাড়া ঈদগাহ, রায়পাড়া বশরী ঈদগাহ, কাঁঠালবাড়ীয়া ঈদগাহ, আসাম কলোনী বায়তুল আমান জামে মসজিদ, রায়পাড়া ঈদগাহ, রাজশাহী কোর্টস্টেশন ঈদগাহ, শালবাগান গণপূর্ত মাঠ, মোল্লাপাড়া ঈদগাহ, কোর্ট বুলনপুর ঈদগাহ মাঠ, খোজাপুর গোরস্থান ঈদগাহ মাঠ, সাতবাড়িয়া কেন্দ্রীয় ঈদগাহ, জাহাজঘাট মোড় ঈদগাহ মাঠ, খোজাপুর ১নং ঈদগাহ, পাঁচানী ঈদগাহ মাঠ সাতবাড়িয়া ঈদগাহ, বিনোদপুর আহলে হাদিস জামে মসজিদ, শহীদবাগ জামে মসজিদ, মহেরচন্ডি বুধপাড়া কেন্দ্রীয় ঈদগাহ এবং ধরমপুর মধ্যপাড়া ঈদগাহে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।
এদিকে জেলার বাঘায় ঐতিহাসিক শাহী মসজিদ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে প্রধান ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়। জেলার মোহনপুর ঈদগাহ মাঠে সাড়ে ৮ টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া বাগমারা, তানোর, দুর্গাপুর, পুঠিয়া, চারঘাট, পবা ও গোদাগাড়ীতে সকাল ৮টা থেকে সাড়ে ৮টার মধ্যে প্রধান ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। বৈরী আবহাওয়া বিরাজ করলে এক্ষেত্রে স্থানীয় মসজিদসমূহে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close