অর্থ ও বাণিজ্যনাগরিক মতামত

কনজ্যুমার রাইটসঃ আড়ং চ্যাপ্টার

মারুফ রেজা বায়রন: দেশের মানুষ, মূলতঃ শিক্ষিত মধ্যবিত্ত বা উচ্চ মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষ, দীর্ঘদিন থেকেই আড়ং এর মতো তথাকথিত ফ্যাশন হাউসগুলোর প্রতি অ্যাডিক্টেড। আবার এই মানুষই এসব ফ্যাশন আউটলেটের অতিরিক্ত দামের ব্যাপারে অভিযোগ ক’রে আসছে শুরু থেকেই। অনেকেই সরাসরি প্রতারিত হয়েছে, অনেকেই ফাঁকিটা ধরতে পেরেছে, কিন্তু প্রতিবাদ করতে পারে নাই। আবার অনেকের প্রতিবাদ শুধু ব্যক্তিগত পর্যায়েই সীনাবদ্ধ ছিলো। সো, এবার কেউ একজন যখন হাতেনাতে প্রমাণটা দিলো এবং আড়ং প্রকাশ্য দিবালোকে ধরা খেলো তখন মানুষ তো খেপবেই। অনেক দিনের পুরনো ক্ষোভের স্বতঃস্ফূর্ত  বহিঃপ্রকাশ একটু এলোমেলো হতেই পারে। বাট মোটাদাগে জনতার এই প্রতিবাদ নায্য বলেই আমি মনে করি। আড়ং, কেএফসি, বা পারসোনার বিরুদ্ধে মানুষের এই জাগরণে আমি কিছুটা আশাবাদী।

দেশে ভোক্তা অধিকারের আন্দোলনটা শুরু হয়ে গ্যালো। একদিন হয়তো এ ধরনের প্রতারণা পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাবে এই দেশে – এটাই প্রত্যাশা। বরেন্দ্র বার্তা/হাপি

Close