জাতীয়

কর্মসংস্থান আছে বলেই ধান কাটার লোকের অভাব : প্রধানমন্ত্রী

বরেন্দ্র বার্তা ডেস্ক: কর্মসংস্থান মানে শুধু চাকরি দেওয়া নয় বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেই কর্মসংস্থানের জন্য এবারের বাজেটে ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে বলেও জানান তিনি। আজ শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাজেট পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এ কথা জানান।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘কর্মসংস্থানের সুযোগ আছে বলেই এখন ধান কাটার লোকের অভাব হচ্ছে। ধান কাটার জন্য এখন লোক পাওয়া যাচ্ছে না কেন? যদি এত বেশি বেকার থাকে, তাহলে তো ধান কাটলে দিনে ৪০০-৫০০ টাকা পাবে, প্লাস তার সাথে আরও তিনবেলার খাবার, দুই বেলা খেতে পারবে, এক বেলার খাবার বাড়ি নিয়ে যেতে পারবে। সেই লোক কেন পাওয়া যাচ্ছে না, এটা কি একবার বিবেচনা করেছেন?’
সরকারের নেওয়া প্রতিটি প্রজেক্টে অনেক কমংস্থানের সৃষ্টি হচ্ছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘১৬ কোটি মানুষকে কি চাকরি দেওয়া যায়? পৃথিবীর কোনো দেশ দেয়? কোনো মানুষ একটা চাকরি নিয়েই বসে থাকে সারা জীবন? কিন্তু মানুষ যেন কাজ করে খেতে পারে, সেই সুযোগটা সৃষ্টি করা। এই যে ১০০টা অঞ্চল আমরা তৈরি করেছি, প্রতিনিয়তই যে প্রজেক্টগুলো হচ্ছে, একেকটা প্রজেক্ট সম্পন্ন হলে কত মানুষের কাজ হবে, চাকরি হবে।’
বাজেটে ব্যক্তি উদ্যোগে কাজের সুযোগ তৈরির ওপর জোর দেওয়া হয়েছে জানিয়ে সরকার প্রধান বলেন, ‘শুধু চাকরির মাধ্যমে কি কর্মসস্থান হয়? কর্মসংস্থানের কথা আমরা বলেছি, চাকরি দেওয়ার কথা বলিনি। ১০০ কোটি টাকা থোক বরাদ্দ রেখেছি। শিক্ষার কথা বলেছি, প্রযুক্তি শিক্ষা, কারিগরি শিক্ষা, ভোকেশনাল ট্রেনিং। আর আমরা চাই, ট্রেনিং নিয়ে শিক্ষিত হয়ে নিজের কাজ নিজে করার একটা সুযোগ পাক।’
২০৩০ সালের মধ্যে তিন কোটি মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে বেকারত্বের অবসান ঘটানো কথা বলা হয়েছে এবারের প্রস্তাবিত বাজেটে। এ ছাড়া বিশেষ জনগোষ্ঠীর প্রশিক্ষণ ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাবও করা হয়েছে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close