পবাশিরোনাম

ভোটারশূন্য পবা উপজেলা নির্বাচনে

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্থগিত হয়ে যা্ওয়া রাজশাহীর পবা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোট গ্রহন চলছে। এ এলাকায় একাধিকবার তফসিল ঘোষণা হয়েছিল। কিন্তু সীমানা সংক্রান্ত জটিলতার কথা বলে বার বার উচ্চ আদালতে রিট করেছে একটি পক্ষ। সেখানে নির্বাচন স্থগিত হয়ে গেছে। অবশেষে পবার এই প্রতিক্ষিত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে ভোটগ্রহণ চলছে। তবে ভোটার উপস্থিত কম রয়েছে।একটি কেন্দ্রে চার ঘন্টায় ৪০০ ভোট পড়েছে। উপজেলার নওহাটা ভোট কেন্দ্রে ভোটার প্রায় ৪ হাজার ৮০০। তবে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এ কেন্দ্রে ভোট পড়েছে ৪০০টি বলে জানিয়েছেন এখানকার প্রিজায়ডিং অফিসার অধ্যক্ষ আফসার আলী।
ভোট কেন্দ্রগুলোতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর সদস্যদের উপস্থিত লক্ষ্য করা গেছে।
নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী মুনসুর রহমান, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির হাতুড়ি প্রতিকের প্রার্থী এসএম আশরাফুল হক তোতা এবং আনারস প্রতিক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আফজাল হোসেন সুমন।
নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন ৫ জন। তারা হলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক (বই), উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি ওয়াজেদ আলী খান (তালা), নওহাটা পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল জামাল বাবলু (উড়োজাহাজ), এএফএম আহাসান উদ্দিন মামুন (মাইক) ও আলমগীর হোসেন (টিউবওয়েল)।
অপরদিকে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন ৩ জন। তারা হলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বেগম সুফিয়া হাসান (হাঁস), আওয়ামী লীগ নেত্রী আরজিয়া বেগম (কলস) ও রীতা বিবি (ফুটবল)।
রাজশাহীর পবা উপজেলা নির্বাচনে ৭৯ টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ৬৮টি ঝুঁকিপূর্ণ। আর ১১টি সাধারণ ভোট কেন্দ্র বলে জানানো হয়েছে রাজশাহী মেট্রোপলিন পুলিশের পক্ষ থেকে। সকাল ৯ টা থেকে বিরতিহীন ভাবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত রাজশাহী মেট্রোপলিটন এলাকার আওতাধীন ১০ টি থানাধীন ৭৯ টি ভোটকেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
নির্বাচনে সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে ভোটকেন্দ্র সমূহে এবং নগরীর আইন শৃংখলারক্ষার্থে পোষাকে ও সাদা পোষাকে পুলিশ মাঠে থাকবে। এই সাধারণ নির্বাচনে ৭৯ ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ১১ টি সাধারণ এবং ৬৮ টি গুরুত্বপূর্ণ (ঝুঁকিপূর্ণ) ভোটকেন্দ্র রয়েছে।
এই উপজেলায় মোট ভোটার ২ লাখ ২৮ হাজার ১২৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছে ১ লাখ ১৪ হাজার ৪৫৬ জন এবং মহিলা ভোটার ১ লাখ ১৩ হাজার ৬৭১ জন। তবে নারী ভোটারের চেয়ে এই উপজেলায় পুরুষ ভোটারের সংখ্যাই বেশি।
নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েন রয়েছে। নির্বাচনী এলাকায় রয়েছে তিন স্তরের নিরাপত্তা। পবার ২ পৌরসভা ও ৮ ইউনিয়নে রয়েছে ১০ জন ম্যাজিস্ট্রেট। এছাড়াও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন ১ জন। বিভিন্ন এলাকায় দায়িত্বে রয়েছে দুই প্লাটুন র‌্যাব, ৪ প্লাটুন বিজিবি এবং স্ট্রাইকিং ফোর্স। প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে রয়েছেন ৪ জন পুলিশ সদস্য ও ১২ জন আনসার সদস্য। এর মধ্যে দুইজন অস্ত্রধারী আনসারও রয়েছেন।
এর আগে গত ১০ মার্চ রাজশাহীর অপর ৮টি উপজেলার ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। সেগুলোতেও ভোটার উপস্থিতি কম ছিল। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close