অর্থ ও বাণিজ্যমহানগরশিরোনাম

টিসিবি’র পণ্য বিক্রিতে অনিয়ম, পণ্যের মান নিয়ে সংশয়

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীতে টিসিবি‘র পণ্য বিক্রিতে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে৤ ক্রেতারা চাহিদা অনুযাযী পণ্য পাচ্ছেনা বলে অযোগ পাওয়া গেছে৤ পর্যাপ্ত পণ্য থাকলেও ক্রেতাদের না দেয়া, প্যাকেজ কিনতে শর্ত আরোপ, তেল না দেয়া, ব্যাগ সরবরাহে অনীহাসহ নানান ধরনের হয়রানী করা হচ্ছে করে অভিযোগ উঠেছে। অন্যদিকে এবারে টিসিবি পণ্যের গুনগত মান নিয়েও প্রশ্ন আছে ক্রেতা মহলে।

রাজশাহী মহানগরীতে গত ১০ মে থেকে টিসিবি‘র উদ্যোগে পণ্য বিক্রি শুরু হয়। মহানগরীর সাহেববাজার, বহরমপুর মোর, শালবাগান, রেলগেট, ছোট বনগ্রামসহ বিভিন্ন পয়েন্টে গাড়ীতে করে ভ্রাম্যমান বিক্রয়কেন্দ্রে থেকে পণ্য বিক্রয় হচ্ছে। প্রতিদিন প্রচুর ক্রেতা লাইনে দাড়িয়েও পণ্য কিনতে পারছেনা। টিসিবি’র পণ্যের ভেতরে তেলের চাহিদা সরচেয়ে বেশি। এখানে ৮৬ টাকা লিটার দরে যে পুষ্টি তেল বিক্রি হচ্ছে, বাজারে সেই ব্রান্ডের দাম লিটারে ৯৭ টাকা। ক্রেতাদের অভিযোগ বাজারে তেলের দাম বেশি হওয়ায় টিসিবি’র তেল বাইরে পাচার করে দিচ্ছে।

বড়কুঠি ক্যাম্পের বহিমা বেগম এসেছিলেন বুট আর তেল নিতে। তাকে বুট দেয়া হলেও তেল দেযা হয়নি, কারণ হিসেবে বলা হয় সে যদি প্যাকেজ কিনে অর্থাৎ সব পণ্য ২ কেজি করে তবেই তেল বিক্রি করা হবে। কারো কাছে শুধু তেল বিক্রি করা হবে না। এই ঘটনার আধা ঘন্টা পরেই নগরীর কুমারপাড়ার মোজাম্মেল হক প্যাকেজ কিনতে গেলে তাকে সব পণ্য দেয়া হলেও তাঁর কাছে তেল বিক্রি করা হয়নি। কারণ হিসেবে বলা হয় তেল শেষ হয়ে গিয়েছে। এ প্রসঙ্গে প্রতিবেদকের কাছে অনেকেই অভিযোগ করে বলেন যে, যদি প্যাকেজ ছাড়া তেল বিক্রি না হয় তবে তেল তো বেচে যাবার কথা। টিসিবি বাইরে তেল বিক্রি করছে বলে অভিযোগ করেন। এদিকে টিসিবি’র পণ্য বিক্রেতা নাম প্রকাশ না করার শর্ত বলেন, এই অভিযোগ ঠিক না, তবে পরিচিতদের কাছে তেল কিছু বিক্রি করা হচ্ছে তবে পরিমানে খুব কম। টিসিবি থেকে পণ্য দেবার যে পলি ব্যাগ দেয়া হয় সেটারও সাপ্লাই নেই। তারা নিজেরা কিনে এনে পণ্য বিক্রি করছে।

অন্যদিকে টিসিবি’র পণ্যের মান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। একই কোম্পানীর তেল হলেও বাজারে যে তেল বিক্রি হচ্ছে তার গুনগতমান টিসিবি পণ্যের চেয়ে ভাল বলে দাবী করছেন দোকানীরা। অন্য পণ্যের ক্ষেত্রেও একই অবস্থা। চিনি যে দামে বিক্রি হচ্ছে সেই দেশী লাল চিনি বাজারেএকই দামে বিক্রি হচ্ছে। অস্ট্রেলিয়ার মসুরের ডাল আরও কম দামে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে বলে মতামত দেন সাহেব বাজারের খোকন ট্রেডার্রস দোকানিরা। টিসিবি’তে চিনি প্রতি কেজি ৫৫ টাকা, সয়াবিন তেল প্রতি কেজি ৮৫ টাকা, মশুরডাল প্রতি কেজি ৫৫ টাকা, ছোলা প্রতি কেজি ৭০ টাকা ও খেজুর প্রতি কেজি ১২০টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বরেন্দ্রবার্তা/এই/আসশ

 

Close