শিরোনামসিরাজগঞ্জ

উল্লাপাড়া ও রায়গঞ্জে গড়ে উঠছে অবৈধ ঝুঁকিপূর্ণ ভ্রাম্যমান সিএনজি স্টেশন

বরেন্দ্র বার্তা ডেস্ক: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া ও রায়গঞ্জ উপজেলায় গড়ে উঠেছে অবৈধ ভ্রাম্যমান সিএনজি স্টেশন। এসব সিএনজি স্টেশনে প্রতিদিন ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশে কাভার্ড ভ্যানে থাকা গ্যাস সিলিন্ডারের দ্বারা বিভিন্ন যানবাহনে পাইপের মাধ্যমে গ্যাস দেয়া হচ্ছে।
এতে যেকোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তাদের। ভ্রাম্যমান এসব সিএনজি ষ্টেশনের কোনো প্রকার অনুমতি নেই জানিয়ে দ্রুত আইনি ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানায় উপজেলা প্রশাসন।
নিয়মনীতির কোন তোয়াক্কা না করে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার সলঙ্গা থানার রামারচর এলাকায় মহাসড়কের পাশে এবং রায়গঞ্জ উপজেলার ধানগড়া বাজারে গড়ে উঠেছে ভ্রাম্যমান সিএনজি স্টেশন। প্রতিদিন ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশে কাভার্ড ভ্যানে গ্যাস সিলিন্ডার রেখে পাইপের মাধ্যমে সিএনজি, প্রাইভেটকারসহ বিভিন্ন যানবাহনে গ্যাস দেয়া হচ্ছে। ভ্রাম্যমান এসব সিএনজি স্টেশনে গ্যাস পরিমাপের জন্য মিটার থাকলেও নেই অগ্নি নির্বাপকের কোন ব্যবস্থা। এতে স্থানীয় যানবাহন চালকদের কিছুটা সুবিধা হলেও অপরিকল্পিতভাবে গ্যাস বিক্রি করায় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে।
রায়গঞ্জ উপজেলার ভ্রাম্যমান সিএনজি স্টেশনের মালিক আব্দুল্লাহ আল পাঠান বলেন, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গ্যাস দিচ্ছি। আমি আমার মতো করে চালাচ্ছি।দুর্ঘটনার আতঙ্কে থাকা এলাকাবাসী দ্রুত ভ্রাম্যমান সিএনজি স্টেশন বন্ধের দাবি জানিয়েছেন।
অধিক চাপে অথবা তাপে কাভার্ড ভ্যানে থাকা গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হতে পারে বলে জানিয়েছেন সিরাজগঞ্জে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের উপ-পরিচালক আব্দুল হামিদ মিয়া।
তিনি বলেন, এসব স্টেশনে আমাদের অনুমোদন নেয়া হয় না। সেখানে কোনো রকম প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাও নেই। কখনও সেখানে দুর্ঘটনা ঘটলে একটা বোমার মতো অবস্থা হবে।
ভ্রাম্যমান সিএনজি ষ্টেশনের কোনো অনুমতি নাই, দুর্ঘটনা এড়াতে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান উল্লাপাড়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আরিফুজ্জামান।
তিনি বলেন, যেহেতু এগুলো অননুমোদিত এবং যেকোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে তাই আমরা এগুলোর বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেব।
ভ্রাম্যমান সিএনজি ষ্টেশনের এক একটি কাভার্ড ভ্যানে বড় বড় দেড়শ গ্যাস সিলিন্ডার রয়েছে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close