পুঠিয়াশিরোনাম

১০ দিন পেরিয়ে গেলেও পুঠিয়ায় ঘুমন্ত নারীকে কুপিয়ে হত্যার রহস্য উৎঘাটন হয়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক:রাজশাহীর পুঠিয়ায় ঘুমন্ত নারী কারিনা বেগমকে (৪২) কুপিয়ে হত্যার ১০ দিন পেরিয়ে গেলেও এর কোনো রহস্য উৎঘাটন করতে পারেনি থানা পুলিশ। এ ঘটনায় স্থানীয় সাধারণ লোকজনের মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে।
নিহতের পরিবারের অভিযোগ থানা পুলিশের গাফলতির কারণে এই হত্যাকান্ডের মূল রহস্য উৎঘাটন ও সঠিক বিচার না পাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
নিহত কারিনা বেগমের ছেলে ও হত্যা মামলার বাদী খায়রুল ইসলাম বলেন, মা একজন সাদা-সিদে মানুষ ছিলেন। আমার খুবই গরীব মানুষ। তাকেও এই নির্মম ভাবে হত্যাকান্ডের শিকার হতে হয়েছে। তবে কি কারণে এই হত্যাকান্ড তা আমি জানতেই পারলাম না। জানি না এই আমার মায়ের হত্যাকারীর বিচার কোনো দিন হবে কিনা। তবে আল্লাহর কাছে বিচার দিয়ে রাখলাম।
এলাকাবাসী সাদিয়া জামান ও হামিদুল ইসলাম বলেন, কারিনা বেগমকে কুপিয়ে হত্যার ১০ দিন পেরিয়ে গেছে। আমরা বুঝতে পারছি না কি কারণে বা কারা এই হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে সন্ধ্যা নামলেই পুরো এলাকার জুড়ে সাধারণ মানুষের মাঝে চরম আতঙ্কে রাত্রী যাপন করে।
এ ব্যাপারে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকিল উদ্দীন আহম্মেদ বলেন, কারিনা বেগম হত্যা রহস্য উৎঘাটনের চেষ্টায় কোনো গাফলতি হচ্ছে না। অপরদিকে ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ওই এলাকার আবুল কাশেম নামে একজনকে আটক করেজেল-হাজতে পাঠানো হয়েছিল। তাকে পূর্ণরায় জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য আজ-কালকের মধ্যে থানায় আনা হবে।
উল্লেখ্য, গত ৩০ জুন রাতে উপজেলার শিলমাড়িয়া ইউনিয়নের লেপপাড়া গ্রামের রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় দুর্বৃত্তের ধারালো অস্ত্রের কোপে গুরুতর আহত হন স্বামী পরিত্যাক্তা কারিনা বেগম। পরে স্থানীয় লোকজন মূর্মর্ষ অবস্থায় তাকে রামেক হাসপাতালে নিলে সেখানে চিকিৎসাধিন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close