চারঘাটশিরোনাম

চারঘাটে ৩য় শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ

মো: সজিব ইসলাম,চারঘাট: রাজশাহীর চারঘাটে ৩য় শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে চারঘাট উপজেলার কালুহাটি গ্রামে।এ বিষয়ে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর মা দিলারা বেগম বাদী হয়ে চারঘাট মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।
অভিযুক্ত শাহবাজ হোসেন (কালু) একজন দোকানী।কালুহাটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশেই তার চা বিস্কুটের দোকান রয়েছে।সে কালুহাটি গ্রামের মৃত তফেজ উদ্দীনের ছেলে। কালু নিজেও দুই সন্তানের জনক।
থানায় অভিযোগ সূত্রে ও সরেজমিন জানা যায়,ভুক্তভোগী মেয়েটি কালুহাটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণীর শিক্ষার্থী। সে প্রতিদিন স্কুল টিফিনের সময় অভিযুক্ত কালুর চা বিস্কুটের দোকানে নাশতা কিনতে যেত। কালু মাঝে মধ্যেই ওই শিক্ষার্থীকে নানা রকম বাজে কথা বলতো।মেয়েটি বাসায় ফিরে তার অভিভাবক কে বলতো।তার অভিভাবক কালু কে এর আগেও ডিস্টার্ব করতে নিষেধ করেছে।
এরপর গত ৬ জুলাই শনিবার ঐ শিক্ষার্থী টিফিনের সময় কালুর দোকানে বিস্কুট কিনতে যায়।কালু তাকে দোকানের ভেতরে এসে বিস্কুট নিতে বলে।মেয়েটি দোকানের ভেতরে গেলে কালু দোকানের দরজা আটকে দেয়,এবং মেয়েটিকে ধর্ষনের চেষ্টা করে।এমতবস্থায় মেয়েটি চিৎকার করলে কালু দোকানের দরজা খুলে দেয়।এবং মেয়েটিকে এসব কিছু কাউকে না বলতে ভয় দেখায়।
তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ুয়া ঐ শিক্ষার্থী ক্লাসে ফিরে তার দুই ক্লাসমেট কে,এবং বাসায় ফিরে তার পাশের বাসার ভাবিকে সবকিছু কাঁদতে কাঁদতে বলে দেয়।পরবর্তীতে বিষয়টি অভিভাবক সহ শিক্ষকদের মাঝে জানাজানি হয়ে যায়।
ভুক্তভোগী ঐ শিক্ষার্থীর মামা বেলাল হোসেন জানান, ৬ জুলাই শনিবার ঘটনাটি ঘটলেও কালুহাটি গ্রামের স্থানীয় প্রভাবশালী একটি মহল ভুক্তভোগীর পরিবারকে থানায় অভিযোগ দিতে বাধা প্রদান করেন।এবং তারা সামাজিক ভাবে বিষয়টা মিমাংসা করবেন বলে জানায়।সেজন্য থানায় অভিযোগ দিতে দেরি হয়।এ সুযোগে অভিযুক্ত কালু পালিয়ে যায় বলে জানান তিনি।এ ব্যাপারে চারঘাট মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ নজরুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় একটি মামলা রুজু হয়েছে। আসামীকে ধরার চেষ্টা অব্যাহত আছে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close