বাগমারাশিরোনাম-২

বাগমারায় কোলা বিল মৎস্য চাষ প্রকল্পের জাল দড়ি বাঁশের ফারাশ পুড়িয়ে ফেলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

বাগমারা প্রতিনিধিঃ রাজশাহীর বাগমারা উপজেলা নরদাশ ইউনিয়নের কোলা বিল মৎস্য চাষ প্রকল্পের মৎস্য চাষী ও মৎস্যজীবীদের জাল,দড়ি, বাঁশের ফারাশ (বানা) পুড়িয়ে নষ্ট করার অভিযোগে উপজেলা প্রশাসনের হটকারী সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে কোলা বিল মৎস্য চাষ প্রকল্পের সভাপতি হাসান আলী নরদাস্থ প্রকল্প কার্যালয়ে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন, আমরা বিলের চারি ধারের ভূমি মালিকদের প্রতি শতক চারশত টাকা হারে এবং বুরো ফসলের সেচ সুবিধা দিয়ে মাছ চাষ করে আসছিলাম। হাজার হাজার মানুষের জীবন ও জীবিকা এর সাথে জড়িত। বাগমারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব জাকিউল ইসলামের নির্দেশে আমাদের জাল,দড়ি,বাঁশের ফারাশ (বানা) পুড়িয়ে ও কেটে লক্ষ লক্ষ টাকার ক্ষতি করা হয়েছে।
কারণ আমরা বিলে কোন স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ করি নাই। এছাড়াও কোলা বিলে এখন পর্যন্ত বৃষ্টির জমাকৃত পানি ছাড়া কোন পানি নাই বা পানির প্রবাহ বন্ধ করি নাই। উক্ত বিলে মালিকানাধিন ছাড়া কোন খাস জমিজমা নাই। সব জমিজমা প্রকৃত মালিকদের নিকট থেকে বন্দোবস্ত নিয়ে মৎস্য চাষ করা হচ্ছে। ফলে এক দিকে যেমন বেকারত্ব দূর হচ্ছে, অন্যদিকে তেমনি আমিষের চাহিদা পূরণ হচ্ছে।
কোলা বিল থেকে পার্শবর্তী বিলের পানির ব্যবধান সামান্য ছিল। আমাদের কোনরূপ নোটিশ না করে এবং বিকল্প ব্যবস্থা করার সুযোগ না দিয়ে, বানা অপসারণ করায় লক্ষ লক্ষ টাকার মাছ পানিতে ভেসে গেছে।
এতে প্রকল্পের শত শত গরীব, দুঃখী সদস্যদের পেটে লাথি মারা হয়েছে।
লক্ষ লক্ষ টাকার ক্ষতিপূরণ ও দ্রুত বাগমারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকিউল ইসলামের অন্যত্র বদলী বিষয়ে রাজশাহী জেলা প্রশাসক, বিভাগীয় কমিশনার, এবং বাগমারা উপজেলা চেয়ারম্যান বাবু অনিল কুমার সরকার, রাজশাহী-৪ বাগমারা আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট লিখিত বক্তব্যে জোর দাবী জানিয়েছেন ।
জানকীর্ণ সাংবাদিক সম্মেলনে ইলেকট্রিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সংবাদকর্মী, কোলাবিল মৎস্য চাষ প্রকল্পের সদস্য শামসুল ইসলাম, মোজাফোর আলী, রহিদুল ইসলাম, আঃ জব্বার, আমিনুল ইসলাম, আলতাফ হোসেন, মাসুদ রানা, আব্দুস সালাম,কফিল উদ্দীন, শহিদুল ইসলাম, জালাল উদ্দীন, জীতেন্দ্রনাথ,আঃ মালেক, ফজের আলী, রেজাউল করিম, দেলোয়ার হোসেন, আঃ কুদ্দুস, মকছেদ আলী , ফরহাদ হোসেন, কোবাদ আলী, সাহেব আলী, ইনতাজ, মোজাম্মেল হক ,গোলাম হোসেন, প্রকল্পের উপদেষ্টা ও ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম রফিকসহ আরও অনেকে উক্ত সাংবাদিক সম্মেলনের সময় উপস্থিত ছিলেন। বরেন্দ্র বার্তা/আহো/অপস

Close