খেলা

নতুন করে বিক্রি হচ্ছে বিপিএলের দল গুলো

খেলা ডেস্কঃ পরবর্তী বিপিএলকে সামনে রেখে ইতোমধ্যেই দেশি-বিদেশি ক্রিকেটারদের দলে ভেড়াতে শুরু করে দিয়েছে দলগুলোর মালিকরা। তবে ক্রিকেটার কিনলেও দলের মালিকানা নেই কোনো ফ্রাঞ্চাইজির। চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ায় নতুন করে বিক্রি হবে বিপিএলের সব কয়টি দল। এছাড়া পরবর্তী বিপিএলে যুক্ত হতে পারে নতুন একটি দলও।

চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ায় ফ্রাঞ্চাইজিদের নতুন করে আবার চুক্তিবদ্ধ হয়ে ও অর্থ দিয়ে দলগুলোর মালিকানা স্বত্ব কিনে নিতে হবে। আজ বিকালে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের এক সভা শেষে এমন ঘোষণা দেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের অন্যতম শীর্ষ কর্মকর্তা মাহবুব আনাম। তিনি বলেন, ‘এ মুহূর্তে কোন ফ্র্যাঞ্চাইজিরই মালিকানা স্বত্ব নেই। তাদের আবার নতুনভাবে চুক্তি ও অর্থ দিয়ে দলের মালিকানা স্বত্ব কিনতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখন পর্যন্ত বিপিএলে বিসিবির সঙ্গে কারও চুক্তি হয়নি। তারা যা করেছে নো রিলেশনশিপ টু বিসিবি অথবা বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। এটা উল্লেখ করার কিংবা স্মরণ করিয়ে দেয়ারও দরকার নেই। আমাদের আলোচনা করারও দরকার নেই বিসিবির পক্ষ থেকে।’

আগের ছয়টি ফ্রাঞ্চাইজিকে নতুন করে চুক্তিপত্র দেয়া হবে। তারা চুক্তিবদ্ধ হলে ও নতুন করে দলগুলো কিনে নিলেই কেবল মালিকানা পাবেন। মাহবুব আনাম বলেন, ‘৬টা ফ্র্যাঞ্চাইজিকে পত্র দেয়া হচ্ছে যে, আপনারা মিউচুয়ালি এগ্রিমেন্টের জন্য আসেন। ধরে নিলেও ওই ছয়টা যে থাকবে তার কোনো শিউরিটি নেই। ডিফল্ট করলেও কেউ তার ওই পজিশন ক্লিয়ার না করলে তো বিসিবি সেটাও করবে না।’

এছাড়া নতুন করে মালিকানা চূড়ান্ত না হলে কোনো খেলোয়াড়কেই কোনো দল কিনতে পারবে। এ ব্যাপারে মাহবুব আনাম বলেন, ‘যেহেতু বোর্ড ও বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের পক্ষ থেকে দুটি নতুন দলের মালিকানা স্বত্বের আবেদন চাওয়া হয়েছে, তাই এ মুহূর্তে কোন দলের খেলোয়াড় রিটেইন করার বিষয়টিও চূড়ান্ত নয়। যেমন চূড়ান্ত নয়, নতুন করে ক্রিকেটার দলে ভেড়ানোর কাজও।’

অন্যদিকে বিপিএলের এবারের আসরে যুক্ত হচ্ছে নতুন একটি দল। তাই নতুন করে প্লেয়ার ড্রাফট হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। ফলে তামিম, মুশফিক, সাকিবরা এখন কোনো দলেরই অংশ নন।
বরেন্দ্র বার্তা/ নাসি

Close