মহানগরশিরোনাম

চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল কর্মকর্তার বিরুদ্ধে তদন্ত

নিজস্ব প্রতিনিধি: চিকিৎসক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারসহ নানা অভিযোগ রয়েছে রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সিনিয়র প্রশাসনিক ইনচার্জ সাইফুল আলমের বিরুদ্ধে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সাইফুলের বিরুদ্ধে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে তদন্ত শুরু করেছে। রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. সানাউল হককে তদন্ত কমিটির প্রধান করা হয়েছে। কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন- চক্ষু বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. সুলতানুল হক আফতাবি এবং অর্থোপেডিক বিভাগের রেজিস্ট্রার ডা. সাফায়েত জিলানী। জানতে চাইলে ডা. সুলতানুল হক আফতাবি বলেন, কয়েকদিন পূর্বে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তদন্ত কমিটি গঠন করে দিয়েছে। ইতিমধ্যে কাজ শুরু করা হয়েছে বলে জানান তিনি। এ বিষয়ে হাসপাতালের চিকিৎসক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। সাইফুল আলমের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ উঠেছে সেগুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্ত কাজ শেষ হলেই হাসপাতাল পরিচালকের নিকট প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে জানান এবই তদন্ত কর্মকর্তা।
তদন্ত কমিটির আরেক সদস্য ডা. সাফায়েত জিলানী অবশ্য এ ব্যাপারে কোনো কথা বলতে চাননি। আর ফোন ধরেননি তদন্ত কমিটির প্রধান ডা. সানাউল হক। কথা বলতে রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. এসআর তরফদারকেও ফোন করা হয়। তবে তিনি ব্যস্ত আছেন জানিয়ে কথা বলেননি।
হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অভিযোগ রয়েছে, সিনিয়র প্রশাসনিক কর্মকর্তা সাইফুল আলম তাদের সঙ্গে প্রচন্ড- দুর্ব্যবহার করেন। তাই অনেক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক হাসপাতাল ছেড়ে চলে গেছেন। তার কারণে ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশন পরিচালিত রাজশাহীর সবগুলো প্রতিষ্ঠানে চরম অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। ঝিনাইদহ জেলা ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি সাইফুল আলমের বিরুদ্ধে এখন হাসপাতালের ভেতরেই স্থানীয় জামায়াতের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করার অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া অর্থ কেলেঙ্কারি এবং অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়াসহ নানা অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এসব ব্যাপারে হাসপাতালটির কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারী সম্প্রতি রাজশাহী মহানগর পুলিশে অভিযোগ দেন। পুলিশের কর্মকর্তারা অভিযোগটির তদন্তও করতে যান। কিন্তু হাসপাতাল পরিচালক ডা. এসআর তরফদার তাদের বলেন, অভিযোগ সত্য নয়। তারপর বিষয়টি প্রকাশ হয় গণমাধ্যমে। এর পরিপ্রেক্ষিতে কয়েকদিন পুর্বে হাসপাতাল পরিচালকই আবার তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে দিয়েছেন।
অভিযোগের বিষয়ে কথা বলতে হাসপাতালের সিনিয়র প্রশাসনিক ইনচার্জ সাইফুল আলমকে ফোন করা হয়। তবে তিনি মুঠোফোনে কথা বলবেন না বলে জানিয়েছেন। সাইফুল তার সঙ্গে দেখা করার অনুরোধ করেন।বরেন্দ্র বার্তা/ফকবা/অপস

Close