মহানগরশিরোনাম-২

বঙ্গবন্ধুর ঘোষণা নিমিষেই ছড়িয়ে পড়তো সারাদেশে : রাসিক মেয়র লিটন

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি: কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের অন্যতম কার্যনির্বাহী সদস্য, মহানগর সভাপতি ও সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের পূর্ব মুহুর্তে ফেসবুক, টুইটার কিছুই ছিল না। তারপরও ঢাকায় বঙ্গবন্ধু যে ঘোষণা দিতেন, নির্দেশনা দিতেন, নিমিষেই ছড়িয়ে পড়তো সারাদেশে। আর সেই নির্দেশনা অনুযায়ী মিছিল হতো। বঙ্গবন্ধুকে মানুষের মধ্যে স্বাধীনতার চেতনা জাগ্রত করে দিয়েছিলেন, তাইতো মানুষ মুক্তিযুদ্ধের ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। কিন্তু পরবর্তীতে দেশ স্বাধীনের পর বঙ্গবন্ধু যখন দেশকে গড়ার কাজ শুরু করলেন, তখনই তাকে নির্মমভাবে শহীদ হতো হয়।
১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদত বার্ষিকী এবং ২১ আগস্ট গ্রেডেন হামলায় সকল শহীদদের স্মরণে আজ রোববার বিকেলে রাজশাহী ওয়াসা শ্রমিক লীগ আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সভায় মেয়র লিটন বলেন, রাজশাহীতে আমাদের বাড়ি ছিল উত্তরবঙ্গের আন্দোলনের সুতিকাগার। আমার বাবা জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামানের নেতৃত্বে উত্তরবঙ্গের ১৬টি জেলা আন্দোলন হতো। বঙ্গবন্ধু ঢাকায় কী বলেছেন, কী নির্দেশনা দিয়েছেন, সেই নির্দেশনা তিনি নিয়ে এসে রাজশাহীতে মানুষকে সংগঠিত করতেন।
মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি মেয়র লিটন আরো বলেন, ১৯৭৫ সালের পর সুশাসন কাকে বলে, সেটি দেশের মানুষ দেখতে পেয়েছিলেন ১৯৯৬ সালে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর। এরপর থেকে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে কাজ করে চলেছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য ও দক্ষ নেতৃত্বে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সেরা অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির দেশ এখন বাংলাদেশ। দেশের দৃশমান উন্নয়নের পাশাপাশি মানুষের জীবনমানেরও উন্নয়ন হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জাতীয় চার নেতাসহ সকল শহীদদের আত্মহুতি বৃথা যায়নি।
সিটি মেয়র বলেন, রাজশাহী ওয়াসার কার্যক্রম হতে হবে ব্যাপক। সেই লক্ষ্যে এখনো ওয়াসা পৌছাতে পারেনি। তবে ইতোমধ্যে চার হাজার ৬২ কোটি ২২ লাখ টাকা ব্যয়ে রাজশাহীতে ভূ-উপরিস্থিত পানি শোধনাগার নির্মাণ প্রকল্প অনুমোদিত হয়েছে। এই প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন হলে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন এলাকাসহ আশপাশের এলাকার মানুষ সুপেয় পানি পাবেন।
রাজশাহী ওয়াসা শ্রমিক লীগের সভাপতি আশরাফ আলীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নওশের আলী, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি ও ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মোমিন, জাতীয় শ্রমিক লীগ রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সোহেল, ওয়াসা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহির হোসেন লালা। সভায় রাজশাহী ওয়াসা ব্যবস্থাপক সুলতান আব্দুল হামিদ, উপ-ব্যবস্থাপক এসএম তুহিনুর ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close