মহানগরশিরোনাম

নগরীর কাজলায় জোরপূর্বক জমি দখলের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ  রাজশাহী কাজলায় জোর করে জমি দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জমির মালিক মতিহার থানার কাজলা এলাকার মৃত সাহাদুল মন্ডলের ছেলে সাইদুর রহমান বলেন, জেলা রাজশাহী, থানা বোয়ালিয়া মৌজা কাজলা, জে.এল ১৪৪, আর.এস ৭১৫ খতিয়ানের আর.এস ১৫৯৬ দাগের .০৬৬২ শতক সম্পত্তিতে বাড়িঘর করে বসবাস করছিলেন। এই জমি তার বাবা মৃত সাহাদুল মন্ডল মৃত হযরত আলী মন্ডল দিগরের নিকট হতে ক্রয় করে খারিজ করে সকল প্রকার প্রদেয় খাজনা পরিশোধপূর্বক জমি দখল করে আসছেন। বাবার মৃত্যুর অত্র সম্পত্তি সাইদুরের মায়ের নামে রেজিষ্ট্রি হয়। পরে দুই ভাই ও দুই বোনের মধ্যে জমি বন্টন হলেও ওয়ারিসগণ জমিটি সাইদুরকে দিয়ে দেন বলে জানান তিনি। সাইদুর রহমান জমিটি নিজ নামে খাজনা খারিজ করে সেখানে বসবাস করছিলেন এবং অনেক গাছ রোপন করেন। ২০১৮ সাল পর্যন্ত তিনি অত্র জমির কাজনা পরিশোধ করেছেন। এছাড়াও সিটি কর্পোরেশনেরও সমুদয় ট্যাক্স ২০১৮ সাল পরিশোধ করা আছে মর্মে পেপার দাখিল করেন। সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গেলে জমির উপর নতুন করে বেড়া, সাইনবোর্ড ও পেয়ারার চারা রোপন করা দেখা যায়।

তিনি বলেন, এ সম্পত্তি দখলের জন্য পিয়ারুল ইসলাম কালু (৩৫), পিতা- মৃত সৈয়দ মন্ডল, লুৎফর রহমান খোকন (৪৬), পিতা- আবুল আলী মন্ডল, নাজমুল হক পলাশ (৪৫), পিতা- মৃত হযরত আলী মন্ডল, আমফারুল মন্ডল, পিতা- মৃত আসরাফ মন্ডল, এছাড়াও আন্যান্য আসামী ফেরদৌস, পিতা- আবুল আলী, মইনুল ইসলাম কালু, পিতা- মৃত. নজরুল ইসলাম উক্ত আসামীগণ বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত, রাজশাহী মামলা নং- ৪০২/পি/২০১৯ (মতিহার) ধারা: ১৪৫ কাঃবিঃ এবং বিজ্ঞ আদালতের প্রসেস নং- ৯১২(৩) তারিখ: ০৯/০৭/১৯ইং আদেশ অমান্য পূর্বেও জমি দখলে চেষ্টা করে এবং জীবন নাসের হুমকী দেয়। এবিষয়ে সাইদুল ধারা ফৌজদারী কার্য বিধির ১৪৫ ধারায় রাজশাহী অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেন। যা চলমান। মামলায় আবেদনে অত্র সম্পত্তিতে কোনভাবেই প্রতিপক্ষ প্রবেশ করে কোন প্রকার ক্ষতি করতে না পারে তার জন্য সংশ্লিষ্ট থানাকে নির্দেশ দানে উল্লেখ রয়েছে। কিন্তু আজ শনিবার প্রতিপক্ষগণ আদালতে নির্দেশ অমান্য করে আইন-শৃংখলা ভঙ্গ করে জোর পূর্বক নিম্নে বর্ণিত
তফসিল ভুক্ত জমিতে প্রবেশ করে গেটের তালা, ঘর-বাড়ী, সাইনবোর্ড ভেঙ্গে ফেলে এবং গাছের চারা রোপন করে। এসময় তারা দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত ছিল বলে সাইদুর জানান। প্রতিপক্ষ ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে ঘরের মালামাল ভাংচুর করে ও মালামাল লুট করে নিয়ে যায় এবং তাঁকে এবং পরিবারকে প্রাণের ভয়ে পালিয়ে যায়। এতে প্রায় ৮,০০,০০০/- (আট লক্ষ) টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি দাবী করেন। কোর্টের অমান্যকারী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আইনশৃংখলা বাহিনীর প্রতি দাবী জানান সাইদুর।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাইদুরের প্রতিপক্ষ পলাশ তাঁর উকিলের সাথে কথা বলার কথা বলেন, তিনি কোন প্রকার মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে গতকাল জায়গা দখল এবং টিনসেড বাড়ি ঘর ভাঙ্গচুর, সাইন বোর্ড স্থাপন ও নতুন করে বাঁশ দিয়ে বেড়া দেওয়ার কথা স্বীকার করেন তিনি। মতিহার থানার অফিসার ইনচার্জ হাফিজুর রহমান হাফিজের নিকট এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি ঘটনা  সম্পর্কে জানেন না বলে জানান। তবে অভিযোগ পেলে এবং কোর্টের নির্দেশনা থাকলে আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন বলে জানান এই কর্মকর্তা।
বরেন্দ্র বার্তা/ফকবা/ নাসি

Close