নাগরিক মতামতসাহিত্য ও সংস্কৃতি

ড. হকের জীবনানন্দ ভাবনা

হুমায়ূন সিরাজ

প্রফেসর সিরাজুল হকের জন্ম ৫ ভাদ্র ১৩৪৬ বঙ্গাব্দে রাজশাহী শহরে। তাঁর কৃতিত্বপূর্ন ছাত্রজীবন অতিবাহিত হয়েছিল রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলে। তিনি কলেজিয়েট স্কুলে ১ম স্থানে অধিষ্ঠিত হয়ে উত্তির্ণ হয়ে ছিলেন। তারপর অতিবাহিত হয়েছিল রাজশাহী কলেজ ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো খ্যাতনামা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে । ১৯৬৪ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্য প্রথম শ্রেনিতে উর্ত্তীন হয়ে পরবর্তী বছরই ঐ বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা বিভাগের প্রভাষক হিসাবে যোগদান করে ছিলেন।
তিনি সাহিত্যিকী শরৎ সংখ্যা ১৩৭২ এ লিখলেন- বিশ্বের অন্যান্য মহৎ সাহ্যিত্যের তুলনায় রবীন্দ্র সাহ্যিত্যের ঐতিহ্য আমাদের নিকট অধিকতর আপনার এই কারণে যে, রবন্দ্রীনাথ আমাদের ভাষাতেই সাহিত্য সাধনা করে গেছেন। যে সমাজ ও পরিবেশ তাঁর রচনায় প্রধান অনুপ্রেরণা দান করেছে অধ্যাপক খোন্দকার সিরাজুল হকতা বাংলাদেশেরই সমাজ ও পরিবেশ এবং পূর্ব-পাকিস্তান সেই বাংলাদশের বৃহত্তর অংশ। সেই ধারাবাহিকতায় ১৯৭১ সালে প্রকাশিত রবীন্দ্রনাথের সমাজ চিন্তা ও সাহিত্য সংকলন পঁচিশে বৈশাখে প্রকাশিত হয়েছিল। তাঁর মতে, বাংলা সাহিত্যের রবীন্দ্র-উত্তর কবিদের মধ্যে জীবনানন্দ দাশের (১৮৯৯-১৯৫৪) স্থান অতি উচ্চে। জীবিতকালে তিনি বাঙালি পাঠক সমাজে মনোযোগ খুব একটা আকর্ষণ করতে পারেননি। কিন্তু তাঁর অকাল ও আকষ্মিক মৃত্যু বাঙ্গালি পাঠক ও সমালোচক সমাজকে সচকিত করে তোলে। তাঁর মৃত্যুর পরে অর্ধ-শতাব্দী অতিক্রান্ত হয়েছে। ইতোমধ্যে তিনি কবি ছাড়াও কথা সাহিত্যিক হিসাবে পাঠক সমাজের সম্মুখে নতুন ভাবে উপস্থাপিত হয়েছেন।
যতই দিন যাচ্চে জীবনানন্দ দাসের সাহিত্য প্রতিভার বিভিন্ন দিকে সম্পর্ক গবেষনা ও সমালোচকবৃন্দ সচেতন হয়ে উঠছেন। ফলে জীবনানন্দ দাসের কবি প্রতিভা সম্পর্কে বেশ কিছু মূল্যবান গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে।
প্রফেসর সিরাজুল হক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্য অধ্যাপনা করেছিলেন দীর্ঘ কাল। অবসর নিয়ে নানা মূল্যবান গবেষণায় নিয়োজিত ছিলেন।
তাঁর উচ্চতর গবেষণা গ্রন্থে মুসলিম সাহিত্য সমাজ : সমাজচিন্তা ও সাহিত্যকর্ম বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত হয় ১৯৮৪ সালে। তাঁর রচিত ও সম্পাদিত গ্রন্থ এবং সাহিত্য ও গবেষণাকর্মে অনদানের জন্য তিনি লাভ করেন বাংলা একাডেমি পরিচালিত সা’দত আলী আখন্দ পুরস্কার (২০১১) ও বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার (২০১২) । তাঁর জীবন অবসান ঘটে ৬ ই এপ্রিল ২০১৫ সালে।

Close