সাহিত্য ও সংস্কৃতি

হুমায়ূন সিরাজের কবিতা ‘ অনুভূতি’

কোন স্বচ্ছ জলধরে সূর্য্যরি ঘনঘটায়
দিগন্তের ওই দৃষ্টি তেপান্তরে
ব্রন্মান্ড ছেড়ে খোদার আরশে অদূরে কোন দেবদূত
তিক্ষন কোন বুদ্ধির মননে ভিন্ন কোন কৃষ্টিতে
চিত্রপটে রঙতুলিতে আঁকা ছবির মত
রৌদ্দূরে যেন লাল টিপের মত সূর্য্যি
কখনও কোন মেঘের প্রস্বরে কখনও-বা প্রচ্ছায়ারা যেন
রঙধনুতে আঁকা
কোন প্রচ্ছন্নে জেগে ছায়াছন্নে কোন সংস্কৃতি
কোন শিল্পের সচলে ললিত কলার মত কোন আর্টে
দেখ কোন ভাষিক চিত্রে প্রাণ পাচ্ছে ভাষান্তরে
ভাষা আন্দোলনের এই উন্মেষে
সত্য কোন সুন্দর সুন্দরই সত্যের মত কোন রেঁনেসার ডাকে
স্বাধিকারের কোন মুক্তির চাকা
কোন কৃষ্টিতে দাঁড়কাকের মত স্বচ্ছ দৃষ্টিতে
আর চিলের মত স্বচ্ছ নতুন কোন দৃষ্টিতে এই সংস্কৃতি সৃষ্টি
কোন ক্রীড়াণকের স্ফটিকের মত কোন শাসনে
আর জি.বি.র মত রঙে রঙ্গিন সেই যষ্টি
মেঘাচ্ছন্ন আকাশে অশনির কোন স্পর্শে ঘুরে ঘুরে আসে
ষড় ঋতুতে কোন গতি
কোন এক সুন্দর সময়ে পৌছে
রঙে রঙ্গিন বায়োবটের মত বিজয় ক্ষনে ক্ষনে
বাতাসে ভেসে চলেছে ঈগল পাখির মত কোন উড়োজাহাজ
আর নিম্নে মানচিত্রে বন্ধুর অন্তঃজালে
বাংলা ভাষায় উৎপাত্তি
বসুমতিতে সৃষ্টি নতুন কোন সঙ্গীতের তাল লয় ছন্দ সুর ও যতিতে
জাতীয় সঙ্গীতের মত সুরে
অপরূপ এই সংস্কৃতি কোন দার্শনিক মন্ত্রণায়
রচিত একাত্তরের এই প্রক্ষণে
হাউই উড়েছে কোন অজানায় নক্ষত্রের কোন সঙ্গীতে
অদৃশ্য কোন রঙধনু সৃষ্টিতে নতুন কোন সঙ্গীতে
আমার সোনার বাংলার প্রতিপত্তি
বিশ্ব মানচিত্রে মন:পুত কোন সাড়া পরম অথিতির কোন স্বরে
চন্দ্র জ্যোৎস্নায় কখনও কোন ভাষিক চিত্রে
স্ফুলিঙ্গের মত কোন চিত্রের প্রহড়ায়
কোন বালিকার কেশের মত শক্তিতে
প্রথমা সৃষ্টির পরে এই সেটেলাইটের যুগে
সলিলের মত সহজ কোন ব্রত
কোন অনুভুতিতে আলোক রশ্মির
এই কসমিক রশ্মীর বেশে
পৃথিবীর সমন্ত চরাচর ছয় দিনে সৃষ্টি
বাংলাদেশের স্বাধীনতা নয় মাসে
স্বর্গের আহবানে হে সর্বশ্রেষ্ট বসুমতিতে
সত্যের পরিক্রমনে দিন রাত্রি ক্ষনে ক্ষনে পতাকার মত
এগারটি মেঘ আর সাতটি রঙে রঙধনুতে জেগে
বিশ্ব ব্রাহ্মন্ডে লেখকের মত সুফী দরবেশ বাউলেরা স্বাগতম
যেন প্রস্ফুটিত ফুলের মত সৌরভে
তবুও সৎ মানুষের কষ্ঠের অধিকার খর্ব হচ্ছে কখনও কখনও ।

Close