ছবি ঘরনাগরিক মতামতশিরোনাম-২সাহিত্য ও সংস্কৃতিস্বাস্থ্য বার্তা

উনিশ শতকে ডেঙ্গুজ্বর

অর্ণব পাল সন্তু

বর্তমান ইতিহাস উপাত্ত বলছে ডেঙ্গু নিতান্তই হালের ব্যাধি নয়। বহু প্রাচীন অন্তত উনবিংশ শতাব্দি ত বটেই। সেই সময়েই পত্র পত্রিকায় এসেছিল ডেঙ্গুর খবর। এমনকি রচিত হয়েছিল আস্ত একখানা ডেঙ্গু জ্বরের পাঁচালি!
১৮৭২ সালে কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে ডেঙ্গু জ্বরের বেশ প্রকোপ দেখা দেয় । সেসময় শ্রী মহেশ্চন্দ্র দাস এই পাঁচালী রচনা করেন। ডেঙ্গুর প্রকোপের বর্ণনা দিতে গিয়ে লিখেছেন:
“ভাই এমন জ্বর কোথায়[ও] দেখি নাই। ঘরে ঘরে পড়ে আছে সারি সারি দেখতে পাই।।
কার মুখে না সরে কথা, অচেতন আছে তথা, দশ ডাক দিলে পরে শুনিতে না পায়।।
শবের মতন যেন গড়াগড়ি যায়। কম্পজ্বরে ধরেছে যারে হেন জ্বরের মুখে ছাই।।”
মহেশ্চন্দ্র দাসের মতে ডেঙ্গুর কারণ কলিকালের অধর্মাচারণ:
”শুন শুন সর্ব্বজন । করনাক কেহ কুআচরণ।।
মন্দ কর্ম্ম কল্লে পরে, ডেঙ্গু ধরিবে তাহারে, যাবেন তিনি যমের ঘরে, তাইতে করি নিবারণ।।
ডেঙ্গু জ্বরের পাঁচালীটি বিক্রয় মূল্য ছিল এক আনা।
পুরো পাঁচালিটি পড়তে ক্লিক করুন
এছাড়া তৎকালিন পত্রিকায় প্রকাশিত ডেঙ্গু রির্পোট পড়তে ক্লিক করুন।উনিশ শতকে ডেঙ্গুজ্ব
কৃতজ্ঞতা: বাংলাদেশ অন রেকর্ড

Close