মহানগরশিরোনাম-২

তীব্র আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারের পতন ঘটানো হবে : মিনু

নিজস্ব প্রতিবেদক: বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) রাজশাহী মহানগর ও জেলা বিএনপি’র এবং অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের আয়োজনে বেলা ১১টায় নগরীর মালোপাড়াস্থ বিএনপি কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি , সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিনু বলেন, এই সরকার বেগম খালেদা জিয়াকে আইনের মাধ্যমে জেল হতে বের হতে দেবেনা। দীর্ঘ ১৮মাস ধরে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য নিয়নতান্ত্রিকভাবে আন্দোলন করা হচ্ছে। কিন্তু বর্তমান অনির্বাচিত সরকার বেগম জিয়াকে ভয়ে জেল হতে মুক্ত হতে দিচ্ছেনা।

বৃহস্পতিবার সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশমাতা বেগম খালেদা জিয়া ও বিএনাপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক সাজা প্রদানের প্রতিবাদে এবং দেশমাতার নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবীতে মানবন্ধনে এই কথা বলেন তিনি । বর্তমান সরকারকে গণতন্ত্র হত্যাকারী ও লুটেরা আখ্যা দিয়ে মিনু বলেন, দূর্নীতি ও লুটপাটে সকল রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে বর্তমান সরকারের মন্ত্রী এমপি ও দলীয় নেতাকর্মীরা। মেগা প্রকল্প বানিয়ে হার্জা হাজার কোটি টাকা দূর্নীতি করে বিদেশে বাড়ি গাড়ী করেছে। সুইচ ব্যাংকে টাকার পাহাড় গড়ে তুলেছে। তিনি আরো বলেন, বর্তমান অবৈধ প্রধানমন্ত্রী সংসদের দাঁড়িয়ে মিথ্যাচার করছেন। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে নিয়ে এই সরকার মিথ্যাচারের সীমা ছাড়িয়ে গেছে। বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য সর্বদা চেষ্টা করেও কোন লাভ করতে না পেরে এখন ক্ষমতা হারানোর ভয়ে আবোল তাবোল বকা শুরু করেছে।
মিনু বলেন, ২৯ সেপ্টেম্বর রাজশাহী বিভাগীয় মহাসমাবেশ হতে এই সরকারের পতনের রেড এ্যালাড জারী করা হবে। আর এই রেড এ্যালার্ড সারা দেশে ছড়িয়ে দিয়ে যতক্ষণ না পর্যন্ত এই বিনা ভোটরে সরকারের পতন না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত সকল নেতাকর্মী সে সময়ে জীবন দিয়ে রাজপথে থাকবে বলে তিনি সরকারকে হুশিয়ারী দেন। এই আন্দোলনে বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মী ও দেশবাসিকে রাজপথেধ নামার আহবান জানান মিনু।
উপস্থিত বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলেন, অফিসের সামনে আর মানববন্ধনসহ কোন কর্মসূচী বিএনপি পালন করবে না। সরকারের আজ্ঞাবহ নামমাত্র দলগুলো যদি সাজেহব বাজার জিরো পয়েন্টে কর্মসূচী পালন করতে পারে তাহলে দেশের সব থেকে জনপ্রিয় ও বৃহত্তর দল কেন গুটিয়ে থাকবে। গুটিয়ে থাকার দিন শেষ। এখন বাঁচা মরার লড়াই শুরু করতে হবে। এই সরকারকে আর স্থায়ী হতে দেওয়া হবে না। বর্তমান সরকারকে ভোট চর ও বাকশাল আখ্যায়িত করে তারা আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার মুখে বলে এক, করে আরেক। তাদের কথার সাথে কাজের কোন মিল নেই। বর্তমান সরকার হায়নার রুপ ধারন করে দেশ পরিচালনা করছে। জনগণের নেই বাক স্বাধীনতা। আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে পড়েছে দেশবাসি। দেশের জনগণ এখন মুক্তি চায়। আর এই মুক্তির আন্দোলনে সকলকে অংশগ্রহন করার আহবান জানান বক্তারা।
মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আবু সাইদ চাঁদ, যুগ্ম আহবায়ক সাইফুল ইসলাম মার্শাল ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সহিদুন্নাহার কাজী হেনা।
আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব বিশ্বনাথ, সদস্য সৈয়দ মহসিন, আব্দুস সামাদ, নওহাটা পৌর মেয়র শেখ মকবুল হোসেন, বোয়ালিয়া থানা বিএনপি’র সভাপতি সাইদুর রহমান পিন্টু, রাজপাড়া থানা বিএনপি’র সভাপতি শওকত আলী, মহানগর বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক আসলাম সরকার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউল হক রানা, শাহ্ মখ্দুম থানা বিএনপি’র সভাপতি মনিরুজ্জামান শরীফ, বোয়ালিয়া থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক রবিউল আলম মিলু, সংগঠনিক সম্পাদক দিলদার হোসেন, রাজপাড়া থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মুরাদ পারভেজ পিন্টু, শাহ্ মখ্দুম থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন, মতিহার থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক ডিকেন, রুয়েটের শিক্ষক আকতার হোসেন, বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন উজ্জল, চারঘাট চেয়ারম্যান আমিনুল হক মিন্টু ও সাবেক কাউন্সিলর টুটুল ।
এছাড়াও মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হাসনাইন হিকোল, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুজ্জামান টিটু, জেলা যুব দলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, মহানগর সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জাকির হোসেন রিমন, সাধারণ সম্পাদক আবেদুর রেজা রিপন, সাংগঠনিক সম্পাদক আনন্দ কুমার, মহানগর মহিলা দলের যুগ্ম আহবায়ক রওশন আরা পপি, সামসুন্নাহার, নুরুন্নাহার, শামসুনন্নাহার, পুতুল, গুলশান আরা মমতা ও নলুফা মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবি, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম জনি, মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আকবর আলী জ্যাকি ও নাহিনসহ মহানগর বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বরেন্দ্র বার্তা/ফকবা/অপস

Close