বিনোদন

আত্মহত্যার চেষ্টা মীরের!

বিনোদন ডেস্কঃ আত্মহত্যা করতে গিয়েছিলেন মীরাক্কেলের উপস্থাপক মীর আফসার আলী। তাও একবার নয়, কয়েকবার। নিজেকে শেষ করতে ৮৭টি ঘুমের ওষুধ খেয়েছেন এক রাতেই। গত দুই বছরে ৪ বার আত্মহত্যা করার চেষ্টা কররেও বারবার মৃত্যুর কাছ থেকে ফিরে এসেছেন বলে এক সাক্ষাৎকারে জানালেন তিনি।

বাইরে থেকে যতটা বর্ণিল দেখায় ভেতরে আসলে ততটা বর্ণিল হয়না মানুষের জীবন। কমবেশি অপূর্ণতা থাকে। সেই অপূর্ণতা থেকে তৈরি হওয়া হতাশাও থাকে। হয়তো এই হতাশা আর কোন না পাওয়ার কষ্টের কারণেই নিজেকে শেষ করে দেয়ার পথে গিয়েছিলেন মীর।

মীর বলেন, ‘গত দু’বছরে আমি চারবার সুইসাইড অ্যাটেম্পট করেছি। চারবারের মধ্যে তিনবার আমাকে আনোয়ার শাহ রোডের হসপিটালে ভর্তি করা হয়েছিল। চারবারের মধ্যে একবার তো আমি নিজের বাড়িতে সুইসাইড অ্যাটেম্পট করতে গিয়েছিলাম।’

যে রাতে ৮৭টি ঘুমের ওষুধ খেয়েছিলেন। সেবারও ফিরে এসেছেন। সেই ফিরে আসার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করে মীর বলেন, ‘বাসায় যখন জানতে পারলো আমার এই অবস্থা। আমাকে হসপিটালে নিয়ে যাওয়া হয়। ডাক্তারদের আপ্রাণ চেষ্টায় মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসি। সেইবার আমার মনে হয়েছিল আমি বোধহয় আর ফিরব না। তারপর কাউন্সেলিং হয়েছিল, ওষুধ খাওয়া শুরু হলো। আমাকে বাড়ির লোক আমেরিকা পাঠিয়ে দিয়েছিল ছুটিতে।’

কোন কিছুরই তো অভাব নেই মীরের। নাম-যশ-টাকা সবই আছে তার। তবুও কেন এমন পথ বেছে নেন মীর? এই তারকা বললেন, ‘সবকিছু রয়েছে আমার। আল্লাহ সবকিছু দিয়েছেন। আমি যা যা কিছু স্বপ্নেও ভাবতে পারিনি সে সব কিছু আমার দখলে রয়েছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও কিছু একটার পেছনে ছুটতে থাকা, কিছু একটা তাগিদ, কোনো একটা জেদের বশে, করেছি এই কাজ।’

তবে আর এ পথে যেতে চাননা এ উপস্থাপক। যেতে দিতে চাননা অন্যকেও। তাই মানুষকে আত্মহত্যা থেকে ফেরানোর চেষ্টা করে যাচ্ছেন তিনি।

যারা এখন সুসাইড করার কথা চিন্তা করছেন বা কখনও যদি এমন সুসাইড করার চিন্তা মাথায় আসে তাদের উদ্দেশ্য করে মীর বলেন, ‘এরকম সুইসাইডের চিন্তা যদি কখনও মাথায় আসে, তাহলে সঙ্গে সঙ্গে কাছের কোনো মানুষকে বলে ফেলুন। পাশে কেউ না থাকলে তাকে ফোন করে কথাটা বলুন। সেই মানুষটির সঙ্গেই কথা বলবেন যিনি আপনাকে অপমান করবেন না। যারা ডাক্তার বা মনোবিদের সাহায্য নিচ্ছেন, তাদের পায়ে পড়ে বলছি, চিকিৎসকের কাছে কিছুই লুকোবেন না।’
বরেন্দ্র বার্তা/ নাসি

Close