খেলা

নিজের বয়স নিয়ে কি বললেন রশিদ খান?

খেলা ডেস্কঃ বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা লেগস্পিনার। ছোট দলের বড় তারকা বলা হয় রশিদ খানকে। নিজের যোগ্যতাবলেই রশিদ আজ এতদূর ওঠে এসেছেন। জাতীয় দলের হয়ে দুর্দান্ত পারফর্ম করছেন, বিশ্বজুড়ে টি-টোয়েন্টি লিগগুলোও খেলে বেড়াচ্ছেন। মাত্র ২০ বছর বয়সেই বড় বড় অনেক রেকর্ড গড়া হয়ে গেছে তার। বিশ্বকাপের পর আফগানিস্তান দলের অধিনায়কত্বও পেয়েছেন রশিদ খান। বিশ্বের সবচেয়ে কম বয়সী টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক এখন তিনিই। তিন ফরমেটের নেতৃত্বে আসায় ওয়ানডে খেলতে নামলে এই ফরমেটেও সম্ভবত সবচেয়ে কম বয়সী অধিনায়ক হওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করবেন রশিদ।

তবে এই ‘কম বয়সী’ কথাটাই অনেকে মানতে নারাজ। কাগজে কলমে রশিদের বয়স ২০ বছর হলেও অনেকেই সেটা নিয়ে সন্দিহান। বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আফগান অধিনায়কের বয়স নিয়ে সবচেয়ে বেশি ট্রল, সমালোচনা হয়। যদিও রশিদ এসবে কান দিতে নারাজ। অনেক জায়গায়ই রশিদ খানকে এই প্রশ্নটা শুনতে হয়-তার বয়স কি সত্যিই ২০ বছর? আফগান লেগস্পিনার কৌশলে সে সব প্রশ্ন এড়িয়ে যান। কখনই পরিষ্কার করে বলেননি যে, আমার বয়স ২০ কিংবা আমার সত্যিকারের বয়স ২০ নয়।

এবার বিবিসি বাংলার সঙ্গে এক সাক্ষাতকারে আরও একবার বয়স বিষয়ক প্রশ্নের মুখে পড়লেন রশিদ। তাকে প্রথম প্রশ্ন করা হয়, এই বয়সে জাতীয় দলে নেতৃত্ব দেয়াটা কতটা চাপের? আপনার জন্য এই বয়সে নিজেকে প্রমাণ করা কি কঠিন নয়? রশিদের জবাব, ‘ক্রিকেট মানেই চাপ। আপনি অধিনায়ক হন, ২০ বছরের হন কিংবা ৩০ বছরের, সেটা কোনো ব্যাপার নয়। ক্রিকেটে চাপ থাকবেই।’

আফগান অধিনায়কের এই কথার সূত্র ধরেই মোক্ষম এক সুযোগ নেন প্রশ্নকর্তা। তাকে জিজ্ঞেস করেন, ২০ নাকি ৩০? এটা নিয়ে কিছুটা সন্দেহ আছে কি? এবারও রশিদ কৌশলে এড়িয়ে যান প্রশ্নটা। বলেন, ‘এটা কোনো ব্যাপার না, চাপ থাকবেই। আপনার বয়স যা-ই হোক না কেন। হ্যাঁ, আমি হয়তো অনেক কম বয়সী। কিন্তু আমি সবসময়ই উপভোগ করি। উপভোগ করি আমার বোলিং আর নিজেকে, আমি শুধু কঠোর পরিশ্রম করতে চাই। মানুষ কি বলছে ভাবি না। আমি কখনো মানুষের জন্য খেলি না, ভাবি না। আমি নিজের দলের জন্য ও দেশের জন্য খেলি।’
বরেন্দ্র বার্তা/ নাসি

Close