নওগাঁশিরোনাম-২স্বাস্থ্য বার্তা

ধামইরহাটে চিকিৎসক লাঞ্ঝিত,অবশেষে দুইপক্ষের মাঝে সমঝোতা

কাজী কামাল হোসেন,নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বহির্বিভাগে চিকিৎসা নিতে আসা এক রোগী কর্তৃক চিকিৎসককে লাঞ্ঝিত করার ঘটনায় উভয় পক্ষের মাঝে সমঝোতা হয়েছে।
চিকিৎককে আক্রমণকারী রোগি মুচলেকা ও ক্ষমা চাওয়ায় এ ঘটনার রেস শেষ হয়ে যায়। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে থানায় দায়েরকৃত অভিযোগপত্র প্রত্যাহারের আবেদন করেছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তৃপক্ষ।
জানা গেছে গত সোমবার বেলা সাড়ে ১১ টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসার নেয়ার জন্য ধামইহাট পৌরসভার অন্তর্গত উত্তর চকযদু (নয়াপাড়া) গ্রামের মো.আবুল কাশেম এর মেয়ে জান্নাতুন তার দুই বোনকে নিয়ে আসে। ওই সময় বর্হিবিভাগে উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার (সেকমো) কাজী ফজলে রাব্বী শিহাব রোগিদের চিকিৎসা প্রদান করছিলেন।
লাইনে না দাঁড়িয়ে এবং অন্যান্য রোগিকে অতিক্রম করে চিকিৎসকের কক্ষে প্রবেশ করে জান্নাতুন। এভাবে লাইনভেঙ্গে নিয়ম না মেনে রুমে প্রবেশ করা ঠিক হয়নি একথা চিকিৎসক শিহাব বললে,উভয়ের মাঝে বাকবিতন্ডা বেঁধে যায়। এক পর্যায়ে জান্নাতুন ওই চিকিৎসক শিহাবকে লাঞ্ঝিত করে।
এসময় উপস্থিত অন্যান্য রোগি ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের লোকজনের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হলে জান্নাতুন তার বোনদের নিয়ে ওই স্থান থেকে সটকে পড়েন।
উদ্ভুত পরিস্থিতিতে ওই দিন বিকেলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.আসাদুজ্জামানের সভাকক্ষে জরুরী বৈঠক বসে। বৈঠক শেষে সরকারি কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগ এনে ডা.আসাদুজ্জামান বাদী হয়ে ধামইরহাট থানায় একটি অভিযাগ দায়ের করেন।
মঙ্গলবার(১৭সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সভাকক্ষে বিষয়টি নিয়ে দুই পক্ষের মাঝে এক সমঝোতা বৈঠক বসে। বৈঠকে চিকিৎসক লাঞ্ঝিতকারী জান্নাতুন ওই দিনের ঘটনার জন্য সকলের কাছে ক্ষমা চান এবং পরবর্তীতে এ ধরণের ঘটনা ঘটাবেন না বলে মুচলেখা প্রদান করলে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে বিষয়টি সুরাহা হয়।
বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.আসাদুজ্জামান, আবাসিক চিকিৎসক আরাফাত হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যানের প্রতিনিধি ধামইরহাট পৌরসভার কাউন্সিলর পৌর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তাদিরুল হক,জান্নাতুনের বাবা আবুল কাশেম, সাংবাদিক হারুন আল রশীদ প্রমুখ।
এব্যাপারে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.আসাদুজ্জামান বলেন,বিষয়টি যেহেতু সুষ্টু সমাধান হয়েছে তাই থানায় দায়েরকৃত অভিযোগপত্রটি প্রত্যাহারের আবেদন করা হয়েছে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close