নওগাঁশিরোনাম

ধামইরহাটে উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা, ভিকটিমসহ আটক-২

তাওসিফ ইসলাম ,ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর ধামইরহাটে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কর্তৃক আদিবাসী যুবতীকে অহপরণ ও জোর পূর্বক ধর্মান্তরিত করে বিয়ের করার অভিযোগে ভাইস চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করে ভিকটিমের পিতা। থানা সূত্র জানায়, উত্তর চকযদু গ্রামের শিমুল চৌধুরীর ছেলে ও ধামইরহাট উপজেলা পরিষদের অফিস সহায়ক আরিফুজ্জামান লক্ষীতাড়া গ্রামের যোসেফ হেমরমের মেয়ে অর্পিতা হেমরম (২০) এর ভালোবাসার সম্পর্ক পরবর্তীতে মুসলমান বানিয়ে এফিডেভিটের মাধ্যমে বিয়ে করে। এক পর্যায়ে ভিকটিম নিজে ধামইরহাট থানায় এসে তার বিয়ের বিষয় অবগত করলেও, ভিকটিমের পিতা উল্টো অভিযোগে করে বলেন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাবিনা এক্কা আমার মেয়েকে পুলিশের চাকুরি দেওয়ার নাম করে উপজেলা পরিষদে নিয়মিত ডেকে নিয়ে অফিস সহায়ক আরিফুজ্জামানের সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তুলতে বাধ্য করে এবং এক পর্যায়ে বিয়েতে বাধ্য করে। এমন অভিযোগ এনে ১৮/০৯/১৯ তারিখে ধামইরহাট থানায় নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাবিনা এক্কাকে ১নং আসামী ও আরিফুজ্জামানকে ২নং আসামী করে মামলা দায়ের করে ভিকটিমের পিতা যোসেফ হেমরম। থানা পুলিশ ওই রাতের ভিকটিম ও ২নং আসামীকে আটক দেখিয়ে ১৯ সেপ্টেম্বর কোর্টে প্রেরণ করে। এ বিষয়ে অভিযুক্ত উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাবিনা এক্কা বলেন, আমাকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হয়েছে,কে বাদি,কে কার নামে মামলা করেছে আমি কিছুই জানি না।”
উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সোহেল রানা বলেন, স্ত্রী ও ২ সন্তার থাকার পরও আদিবাসী মেয়েকে ধর্মান্তরিত করে বিয়ে করাই অফিস সহায়ক আরিফুজ্জামানকে বরখাস্ত করাসহ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ধামইরহাট থানার ওসি জাকিরুল ইসলাম বলেন, ভিকটিম যেহেতু প্রাপ্ত বয়স্ত, তাই বিজ্ঞ আদালতে পাঠিয়েছি, সেখানে সঠিক সমাধান আসবে। বরেন্দ্র বার্তা অপস

Close