চারঘাটশিরোনাম-২

চারঘাটে প্রতিমাতে তুলির শেষ আচড় দিতে ব্যস্ত কারিগররা

মো: সজিব ইসলাম: চারঘাট: আকাশে সাদা মেঘের ভেলা আর দিগন্তজুড়ে কাশফুল জানান দিচ্ছে দেশভূজা প্রতিমা দেবী দুর্গার আগমনের কথা। পূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হতে এখনো সপ্তাহ খানেক বাকি, তবে নিজেদের প্রধান ধর্মীয় এ উৎসবকে ঘিরে এখন আনন্দে উদ্বেলিত চারঘাটের হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন।

শাস্ত্র অনুযায়ী এবছর দেবী দুর্গা আসছেন ঘোড়ায় চড়ে, পাঁচদিন ভক্তদের মাঝে অবস্থান করে ঘোটকে (ঘোড়ায়) চড়ে প্রস্থান করবেন তিনি।

দুর্গা পূজাকে সামনে রেখে এখন প্রতিমাতে শেষ আচড় দিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন চারঘাটের প্রতিমা কারিগররা। পূজার প্রস্তুতির এ শেষ মুহূর্তে এখন যেন দম ফেরার ফুরসত নেই শিল্পীদের। দু-একদিনের মধ্যেই পোশাক-অলংকার পরিয়ে দৃষ্টিনন্দন করা হবে প্রতিমাগুলোকে।

পূজামণ্ডপকে পূর্ণাঙ্গ শৈল্পিক রূপ করে ভক্ত-দর্শনার্থীদের কাছে দৃষ্টিনন্দন করা কারুশিল্পীদেরও এখন ব্যস্ত সময় কাটছে। এ বছর উপজেলার কেন্দ্রীয় কালি মন্দিরে সবচেয়ে বড় পূজা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে।

পূজার কাজের ব্যস্ততা নিয়ে উপজেলার কেন্দ্রীয় দূর্গা মন্দির এলাকার প্রতিমা কারিগর বকুল কুমারের সঙ্গে কথা হয়। তিনি বলেন, এবছর আমরা ১৪টি পূজা মণ্ডপের কাজ করছি। গত দুই মাস ধরে আমাদের প্রতিমা তৈরির কাজ চলছে। দিন যতই ঘনিয়ে আসছে আমাদের ব্যস্ততাও ততই বাড়ছে। প্রতিদিন সন্ধ্যা থেকে পরদিন ভোর পর্যন্ত কাজ করতে হচ্ছে আমাদের।

আরেক প্রতিমা কারিগর আনন্দ পাল জানান, এখন প্রতিমাতে রং-তুলির আচড়ের কাজ চলছে। কয়েকদিনের মধ্যে পোশাক পরিয়ে বসানো হবে মূল মণ্ডপে। পূজার এ আগ মুহূর্তে নির্ঘুম রাত কাটছে আমাদের। দেবী দুর্গার আগমনী বার্তায় আনন্দে উদ্বেলিত হিন্দু সম্প্রদায়ের ভক্তরা।

কয়েকজন ভক্ত জানান, সারা বিশ্বের সব ধর্মের মানুষের জন্য মঙ্গল কামনা করে দেবী দুর্গার রাতুল চরণে পুষ্পাঞ্জলী প্রদান করবেন তারা। পাশাপাশি একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের জন্যও প্রার্থনা করবেন তারা।

উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের তথ্য মতে এবার উপজেলার ৩৭ টি পূজা মন্ডপে দূর্গোৎসব হবে। উল্লেখ্য, আগামী ০৫ অক্টোবর ষষ্ঠি পূজার মাধ্যমে শুরু হবে শারদীয় দূর্গোৎসব। ০৮ অক্টোবর বিজয়া দশমীর মধ্য দিয়ে শেষ হবে পাঁচ দিনব্যাপী এ সার্বজনীন উৎসব।
বরেন্দ্র বার্তা/ নাসি

Close