মহানগরশিরোনাম-২

রাজশাহীতে জাঁকজমক ভাবে পালিত হচ্ছে মহাসপ্তমী

মহানগর প্রতিবেদক: শারদীয় দুর্গোৎসবের মহাসপ্তমী আজ শনিবার। মণ্ডপে মণ্ডপে প্রতিমা দর্শন, দেবীর চরণে ভক্তদের অঞ্জলি প্রদান ও মহাপ্রসাদ গ্রহণ আজ শুরু হয়েছে।
আজ মহাসপ্তমীতে হবে নবপত্রিকা প্রবেশ ও স্থাপন, ষোড়শ উপাচারে অর্থাৎ ষোলটি উপাদানে দেবীর পূজা। উৎসবের দ্বিতীয় দিন সকালে ত্রিনয়নী দেবী দুর্গার চক্ষুদান করা হবে। সকালে দেবীকে আসন, বস্ত্র, নৈবেদ্য, স্নানীয়, পুষ্পমাল্য, চন্দন, ধূপ ও দ্বীপ দিয়ে পূজা করবেন ভক্তরা।
এদিকে রাজশাহী নগরীর বিভিন্ন পূজামণ্ডপ ঘুরে দেখা যায়, হিন্দুধর্মাবলম্বীদের পাশাপাশি নানা ধর্ম-বর্ণের মানুষ দল বেঁধে পূজা দেখতে আসছে। বাহারি পোশাকে আর অঙ্গসজ্জায় নিজেদের সাজিয়ে রাঙিয়ে উৎসব-আনন্দে মেতে উঠেছে শিশু-কিশোর-কিশোরী ও তরুণ-তরুণীরা। গতকাল সন্ধ্যা থেকে বিভিন্ন পূজামণ্ডপ ঝলমলে আলোকসজ্জায় রঙিন হয়ে ওঠে। আলোকসজ্জায় এবার আনা হয়েছে ভিন্নতা। শনিবার সকালে ৯.৩০ থেকে নগরীর বিভিন্ন মন্ডপে শুরু হয় মহাসপ্তমী। সেই সঙ্গে ছিল পুষ্পাঞ্জলি ও প্রসাদ বিতরণ। এ ছাড়া মন্দিরে মন্দিরে শোনা যাচ্ছে উলুধ্বনি, শঙ্খ, কাঁসর ও ঢাকের বাদ্য।
মহাসপ্তমীতে মূলত দুর্গোৎসবের মূল পর্ব শুরু হচ্ছে আজ। আজ ষোড়শ উপচারে অর্থাৎ ষোলটি উপাদানে দেবীর পূজা হবে। দেবীকে আসন, বস্ত্র, নৈবেদ্য, স্নানীয়, পুষ্পমাল্য, চন্দন, ধূপ ও দীপ দিয়ে পূজা করবেন ভক্তরা। সপ্তমী পূজা উপলক্ষে সন্ধ্যায় বিভিন্ন পূজামণ্ডপে ভক্তিমূলক সংগীত, রামায়ণ পালা, আরতিসহ নানা অনুষ্ঠান হবে। এদিক দেবালয় পূজা মন্ডপের সভাপতি ড. দেবাশীষ রায় জানান প্রতি বছরের মতো এবছরো শারদীয় দূরগা উৎসব পালিত হচ্ছে এবং অনেক আনন্দের মুহূর্ত কাটছে। সকল অশান্তি দূর হয়ে যেন এই দূর্গা উৎসবে শান্তি বয়ে আসে এবং সকলে যেন আনন্দে এই ৫ টি দিন কাটাতে পারে এটি তিনি দেবীর কাছে প্রার্থনা করেন। এছাড়াও দেবীর ভক্তবৃন্দরা বলেন তারা অনেক আনন্দের সাথে তাদের পূজার মূহুর্ত কাটাচ্ছেন। এই সময় সকল আত্মীয় সজনদের সাথে একত্রিত হয়ে উৎসব মূখর পরিবেশে তারা পূজার উৎসবে মেতে উঠেছেন। বরেন্দ্র বার্তা/ আবি/ নাসি

Close