গোদাগাড়িশিরোনাম-২

দুই যুগেও সংস্কার হয়নি গোদাগাড়ীর বাইপুর রাস্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক: ১৯৯৭ সালে দিকে তৎকালীন গোদাগাড়ী-তানোরের সংসদ সদস্য ব্যারিষ্টার আমিনুল হক গোদাগাড়ীর রিশিকুল ইউনিয়নের বাইপুর থেকে চব্বিশনগর রেলওয়ে ষ্টেশনে যাওয়ার জন্য প্রায় ১কিলোমিটার পাকা রাস্তা তৈরী করেন। সময়ে বিবর্তনে রাস্তাটি ভেঙ্গে গেলেও বিগত দুইযুগেও আর কেউ সংস্কার করেনি এই রাস্তাটি। অত্র এলাকার দুরুল হুদা. হাসিবুজ্জামান, গোলাম রব্বানী ও মুরাদ সরকার সুজনসহ আরো অনেকে অভিযোগ করে বলেন, এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন শত শত লোক ষ্টেশনসহ মাঠে যাওয়ার জন্য যাতায়াত করে। চব্বিশনগর স্টেশনে প্রতিদিন চারটি ড্রেন থামে। এখান থেকে রাজশাহী শহরের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা লেখাপড়া করতে যায়। আবার অনেকেই কাঁকনহাট, মুন্ডুমালা, রহনপুর ও চাপাই যাতায়াত করেন। এছাড়াও অনেকেই চাকরী, দিন মজুরী, রিক্সাভান চালাতে এবং বিভিন্ন কাজে রাজশাহীতে যাতায়াত করেন। তবে বর্ষা মৌসুমে সবথেকে বেশী বিড়ম্বনায় পড়েন জনগণ। তারা আরো বলেন, অত্র ইউনিয়ন পরিষদ ও তানোর-গোদাগাড়ীর জনপ্রতিনিধিগণ বার বার রাস্তাটি সংস্কার করার জন্য প্রতিশ্রুতি দিয়েও এ পর্যন্ত কোন কাজ করেননি।
এবিষয়ে জানতে চাইলে ৬নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আমিনুল ইসলাম জিয়া বলেন, এই রাস্তাটি এলজিইডি’র অন্তর্গত। বেশ কয়েকবার রাস্তাটি সংস্কার করার জন্য আবেদন করেও কোন কাজ হয়নি। এখানো এভাবেই পড়ে আছে। এছাড়াও পুকুরের মধ্যে বেশকিছু রাস্তা ভেঙ্গে চলে গেছে। ভাঙ্গন রোধ করতে তিনি নিজে থেকে ইটের রাবিশ ও ভাঙ্গা ইট ফেলে রক্ষা করার চেষ্টা করেছেন। তিনিসহ এলাকাবাসী দ্রুত সময়ের মধ্যে রাস্তাটি ভেঙ্গে নতুন কিংবা সংস্কার করার দাবী জানান। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close