চারঘাটশিরোনাম-২

চারঘাটে সরকারী জমি দখল করে দোকানঘর নির্মান

চারঘাট প্রতিনিধি: রাজশাহীর জেলার চারঘাট উপজেলার ঐতিহ্যবাহী সরদহ বাজারে সরকারী জায়গা দখল করে দোকানঘর নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে এক শ্রেনীর অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয় একের পর এক সরকারী জমি দখল করে আসলেও কতৃপক্ষের এ ব্যাপারে কার্যকারী কোনো পদক্ষেপ নেই বলে দাবী এলাকাবাসীর।

জানা যায়, বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমী সংলগ্ন ঐতিহ্যবাহী এ বাজার প্রতিনিয়ত দখল আর দুষণে বিলীন হতে চলেছে।অবৈধ দখলদাররা আইনের হাত থেকে পার পেয়ে যাচ্ছেন।এতে সরকার অনেক টাকা রাজস্ব হারাচ্ছেন।কতৃপক্ষের সঠিক নজরদারী না থাকার ফলে সরকারী জমি গুলো দখল হয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা।

সরেজমিন উপজেলার সরদহ বাজারে গিয়ে দেখা গেছে, বদলে গেছে বাজারের ভেতরের চিত্র।ফাঁকা জায়গা নেই বললেই চলে।নিজেদের খেয়াল খুশি মত দখলদাররা সরকারী জায়গা দখল করে চলেছেন।সবজি বাজারে ঢ়ুকতেই হাতের ডানপাশে নতুন দোকান নির্মান করেছেন চারঘাট পৌরসভার কার্য-সহকারী মাসুদ রানা।তিনটি ইটের পাকা দালান দোকান নির্মান করেছেন তিনি।সরকারি জমি দখল করে অবৈধ ভাবে নির্মান করা দোকান তিনটি ভাড়া দেওয়াও শুরু করেছেন।

দখলদার কার্য-সহকারী মাসুদ রানার দোকানের ভাড়াটিয়া মাহফুজ আলী বলেন,দোকান অবৈধ ভাবে নির্মান করা কিনা জানিনা।আমি মাসুদের কাছে ৫০ হাজার টাকা সিকিউরিটি জমা দিয়ে দোকান ভাড়া নিয়ে দোকানে উঠেছি।প্রতিমাসে মাসুদ কে এক হাজার টাকা ভাড়া দিতে হবে।আমি ব্যবসা করে খাই,এসব ঝামেলা বুঝিনা।তার দোকানটা ছোট সেজন্য সিকিউরিটি কম,মাসুদ পাশের দোকানটার সিকিউরিটি ১ লক্ষ টাকা চেয়েছে বলে জানান তিনি।

সরকারী জমি দখল করে দোকানঘর নির্মান করে ভাড়া দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে মাসুদ রানা বলেন,এগুলো সব মিথ্যা।কোনো সরকারী জমি দখল করা হয়নি বলে জানান তিনি।

তবে এ বিষয়ে সরদহ বাজার কমিটির সভাপতি কায়েম উদ্দীন বলেন,পৌরসভার কার্য-সহকারী মাসুদ রানা জোরপূর্বক বাজারের সরকারী জমি দখল করে দোকান ঘর নির্মাণ করেছেন।এ বিষয়ে আমরা বাজার কমিটি বাধা দিলেও কর্ণপাত করেননি।তিনি সরকারী জায়গা দখল করে অবৈধ ভাবে ঘর নির্মান বন্ধে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন।

সরদহ বাজারের সাধারন দোকানীরা জানান, মাসুদ রানা নিজেকে পৌরসভার কার্য-সহকারী পরিচয় দিয়ে প্রভাব খাটিয়ে জোরপূর্বক বাজারে অস্থিরতা তৈরি করছেন।মাসুদ রানার মত আরো অনেকেই তাদের নিজেদের ইচ্ছেমত ঘর নির্মান করছেন। এভাবে জবর দখল চলতে থাকলে খুব দ্রুতই ঐতিহ্যবাহী এ বাজারটি নাম ও পরিবেশ হারাবে।

এ ব্যাপারে চারঘাট উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মুহাম্মদ নাজমুল হক বলেন,সরকারী জায়গা দখল করে পাকা ঘর নির্মান এবং ভাড়া দেওয়ার অধিকার কারও নেই।যদিও সরদহ বাজার দেখাশোনার দায়িত্ব পৌরসভার।তবুও সরদহ বাজারের সুষ্ঠ পরিবেশ রক্ষার্থে অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান চলমান আছে।তারপরেও বিধি নিষেধ অমান্য করে কেউ ঘর নির্মান করে থাকলে অবশ্যই তাদের শাস্তির আওতায় নিয়ে আসা হবে।

বরেন্দ্র বার্তা/সই/ নাসি

Close