অর্থ ও বাণিজ্যমহানগরশিরোনাম-২

সোনাদীঘি পৌর মাকের্টের ব্যবসায়ীদের পুর্নবাসনে সিটি সেন্টারে দোকান ও শেয়ার হস্তান্তর

নিজস্ব প্রতিবেদক:নগরীর সোনাদীঘি পৌর মার্কেট ব্যবসায়ীদের পুনর্বাসন উপলক্ষে সিটি সেন্টারে দোকান হস্তান্তর ও নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান এনা প্রপার্টিজকে আনুষ্ঠানিকভাবে শেয়ার হস্তান্তর অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শনিবার সন্ধ্যায় নগর ভবনের সিটি হলরুমে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।
অনুষ্ঠানে মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, সিটি সেন্টারের নির্মাণ কাজ শেষ হলে এটি হবে বিশাল একটি কাজ। সিটি সেন্টার হবে দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয় স্থাপনা। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ এটি দেখতে আসবে। সিটি সেন্টারের পাশে সোনাদীঘি পুকুরপাড়ে থাকবে ফাঁকা জায়গা, পথসড়ক। শিশুরা, তরুণ-তরুণীরা ও বয়স্করা সবাই আসবেন এখানে। সব কিছু মিলিয়ে একটি জমজমাট পরিবেশ হবে।
মেয়র আরো বলেন, সোনাদীঘি পৌর মার্কেট ব্যবসায়ীদের সিটি সেন্টারে স্থানান্তর করা হলো। ব্যবসায়ী ভাইয়েরা যত দ্রæত দোকান সরিয়ে সিটি সেন্টারে যাবেন, তত তাড়াতাড়ি বাকি কাজ শেষ হবে। সিটি সেন্টারের বাকি কাজ শেষ করতে সকলের সহযোগিতা চাই।
অনুষ্ঠনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এনা প্রপার্টিজ লি. এর চেয়ারম্যান ও রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোঃ এনামুল হক বলেন, রাজশাহীতে দৃষ্টিনন্দন যে সিটি সেন্টার নির্মাণ হচ্ছে, তার সব কৃতিত্ব মাননীয় মেয়র খায়রুজ্জামান লিটনের। কারণ তাঁর সাহসী পদক্ষেপের কারণেই কেবল এটি সম্ভব হয়েছে। এই সিটি সেন্টার হবে বাংলাদেশের মডেল। এখানে চার তারকা মানের হোটেল করা হবে। এই ভবনে থাকবে তারকা মানের সর্বাধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা। পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপের আওতায় ১৬ তলা বিশিষ্ট সিটি সেন্টারের নির্মাণ কাজ ২০২০ সালের শেষ হলে স্থাপনাটি হবে বাংলাদেশের পাইওনিয়ার। এই সেন্টারে যেসব ব্যবসায়ীরা দোকান পাচ্ছেন তাদের অভিনন্দন জানাই। বাকি কাজ শেষ করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।
অনুষ্ঠানে সিটি সেন্টার নিয়ে প্রেজেন্ট্রেশন উপস্থাপন করেন রাসিকের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আশরাফুল হক। রাসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শাওগাতুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু ও এনা প্রপার্টিজ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক তহুরা হক। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রেজাউন নবী, সাবেক দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র ও ২১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিযাম উল আযিম, সচিব আবু হায়াত মোঃ রহমতুল্লাহ, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা শাহানা আখতার জাহান, মাননীয় মেয়রর একান্ত সচিব মোঃ আলমগীর কবির প্রমুখ।
উল্লেখ্য,পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপের (পিপিপি) আওতায় নগরীর সোনাদীঘি মোড়ে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের ১৬তলা সিটি সেন্টার নির্মাণ করছে এনা প্রপার্টিজ। মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন প্রথম মেয়াদে দায়িত্বে থাকাকালে ২০০৯ সালে এর নির্মাণকাজ শুরু হয়। তবে ২০১৩ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত সিটি সেন্টারের কাজ বন্ধ ছিল। ২০১৮ সালের ৫ অক্টোবর দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব গ্রহণের পর সিটি সেন্টারের নির্মাণ কাজে শেষ করার উদ্যোগ নেন মেয়র। এরপরই গতিশীল হয় সিটি সেন্টারের নির্মাণ কাজ।

বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close