অর্থ ও বাণিজ্যমহানগরশিরোনাম-২

লক্ষীপুর বাজারে দেশি পেঁয়াজ ১৭০!

নিজস্ব প্রতিবেদক: বেশকিছুদিন থেকেই দেশে পেয়াজের বাজার অস্থির তবে আজ তা স্বাভাবিক দামকে হার মানিয়েছে বলছেন ক্রেতারা। আজ রাজশাহীর লক্ষীপুর বাজারে গিয়ে দেখা যায় দেশি পেয়াজের বিক্রি হচ্ছে সর্বোচ্চ ১৭০ টাকা।
মোশারফ হোসেন নামে এক ক্রেতা পেয়াজের এ দাম দেখে তিনি বলেন আমাদের পেয়াজ খাওয়া ছেড়ে দিতে হবে কারণ ১৭০ টাকা কেজি পেয়াজ খাওয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব না। বিক্রেতাদের কাছে পেয়াজের উর্দ্ধমুল্য সম্পর্কে জানতে চাইলে তারা বলেন, আমাদের পেয়াজ কেনা দাম ই বেশি। যার কারণে আমাদের এত দামে বিক্রি করতে হচ্ছে।
শাহরিয়ার কবির নামে এক পেয়াজ বিক্রেতা বলেন, পেয়াজের দাম বাড়তির কারণে আমাদের পেয়াজ ব্যবসা প্রায় শেষ। আগে যেখানে ১৫০ কেজি পেয়াজ বিক্রি করতাম এখন সেখানে ৫০ কেজি পেয়াজ বিক্রি করতে হয়। আমি সকাল ৮.৩০ এ পেয়াজ বিক্রি শুরু করেছি এখন এ সাড়ে এগারটা পার হয়ে গেছে আমি মাত্র ৫-৭ কেজি পেয়াজ বিক্রি করেছি।
অন্যদিকে আজ সাহেব বাজারে দেশি পেয়াজের সর্বোচ্চ দাম ছিল ১৬০ টাকা। লক্ষীপুর বাজারে এই পেয়াজের দাম ১০ টাকা বেশির কারণ জানতে চাইলে তারা বলেন ওরা সাহেব বাজার থেকেই পেয়াজ কিনে নিয়ে যায় তাদের যাতায়াত খরচ লাগে যার কারণে দাম বেশি হয়।
সাহেব বাজারের এক বিক্রেতা বলেন, আমি যেখানে আগে ৬ বস্তা পেয়াজ বিক্রি করেছি সেখানে এখন ১ বস্তা পেয়াজ বিক্রি করতে হয়। তিনি বলেন গত সোমবার পেয়াজ বিক্রি করেছি ১৪০ টাকা কেজি গতকাল বেচলাম ১৫০ আর আজ ১৬০ টাকা কেজি। হুাময়ুন আলি নামে এক পাইকারের সাথে কথা বলে জানা যায় আগামিকাল দেশি পেয়াজের দামটা বাড়বে কারণ আজ দূর্গাপূরে কৃষকরা পেয়াজ বেশি দামে বিক্রি করেছে। তিনি বলেন এক সপ্তাহ দাম এরকম ই থাকবে তারপর বাইর থেকে পেয়াজ আসলে দামটা কমবে। বরেন্দ্র বার্তা/আজা/অপস

Close