মহানগরশিরোনাম

যুবলীগ কর্মী রাসেল ও কলেজছাত্র ফাহিম হত্যকাণ্ডে মোট আটক ৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: কলেজছাত্র আব্দুল্লাহ আল-ফাহিম (১৮) হত্যকাণ্ডের ঘটনায় একজনকে ও যুবলীগ কর্মী সানোয়ার হোসেন রাসেল (৩০) হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ৭জনকেসহ মোট ৮ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
আজ বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, কলেজছাত্র আব্দুল্লাহ আল-ফাহিম (১৮) হত্যকাণ্ডের ঘটনায় ফরিদপুর জেলার বিলসিমলা এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে রাকিব হাসান আবির (১৯)কে আটক করা হয়েছে।
এই মামলায় আজমির হাসান (২২) পলাতক রয়েছে। তিনি আর ও জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আজমির হাসান (২২) ও রাকিব হাসান আবির (১৯) ছুরিকাঘাত করে। এতে ফাহিম আহত হন। পরে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে ফাহিমের মৃত্যু হয়।
অন্যদিকে, যুবলীগ কর্মী সানোয়ার হোসেন রাসেল (৩০) হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ৭জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার রাতে নগরীর চন্দ্রিমায় থানায় রাসেল ভাই মনোয়ার হোসেন রনি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় ১৭ জনের নাম ‍উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা সাত থেকে আটজনকে আসামি করে মামলায় দায়ের করেছেন।
আজ বৃহস্পতিবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস। তিনি বলেন, বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।
গ্রেফতারকৃতরা হলেন, বুলবুল হোসেনের ছেলে আসামী রাব্বি (২৫), জয়নালের ছেলে মো. বাপ্পি (১৯), নূর মোহাম্মদ সরদারের ছেলে মো. শাহিন (২৪), মানিকের ছেলে মো. শুভ (২১), বাবু ইসলামের ছেলে চঞ্চল (১৯), জালাল উদ্দিনের ছেলে কলাম উদ্দিন (১৯), আবুল কালাম চৌধুরীর ছেলে মোজাহিদুল ইসলাম অভ্র (১৯), তারা সবাই শিরোইল কলোনী এলাকার বাসিন্দা।
প্রসঙ্গত, ১৩ নভেম্বর বুধবার দুপুরে রাজশাহী রেল ভবনে টেন্ডার নিয়ন্ত্রণকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত রাসেল ও রাজাসহ অন্তত পাঁচজন আহত হন। তাদের উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে নিলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাসেল মারা যায়। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close