শিরোনামসিরাজগঞ্জ

সিরাজগঞ্জে ট্রেন দুর্ঘটনায় রেলের পৃথক তদন্ত কমিটি, রেলের ৪ কর্মচারী আটক

ষ্টাফ রির্পোট: উল্লাপাড়া স্টেশনে রংপুর এক্সেপ্রেসে অগ্নিকাণ্ড ও বগি লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনায় চার খালাসি ও মিস্ত্রিকে আটক করেছে জিআরপি থানা পুলিশ। শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) ভোরে তাদের আটক করা হয়। আটকদের মধ্যে ৩ জনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন, খালাসি আরিফুল ইসলাম এবং মিস্ত্রি আব্দুর রাজ্জাক ও মকবুল হোসেন।
তবে সিরাজগঞ্জ জিআরপি থানার ওসি হারুন মজুমদার ও পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগ, পাকশীর বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, ওই চার জনকে আটক নয়, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনা হয়েছে।
এদিকে, দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগ, রাজশাহীর মহাব্যবস্থাপক মিহির কান্তি গুহ ও সহকারী মহাপরিচালক মিয়া জাহানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উল্লাপাড়ায় এসেছেন বলে জানা গেছে।
অন্যদিকে, সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে রেল মন্ত্রণালয় আরেকটি পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. ফারুক-উজ-জামানের নেতৃত্বে গঠিত পাঁচ সদস্যের তদন্ত দল দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে কাজ করবেন বলে জানা গেছে।
শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) সকালে পৃথক এ তদন্ত কমিটি গঠনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগের পাকশীর বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুন। এর আগে দুর্ঘটনার পরপরই পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগের রাজশাহী, পাকশী ও সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।
প্রসঙ্গত, ঢাকা থেকে লালমনিরহাটগামী রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেন বৃহস্পতিবার দুপুরে উল্লাপাড়া স্টেশনের এক নম্বর প্ল্যাটফর্ম পার হওয়ার পর হঠাৎ করে দুর্ঘটনায় পড়ে। ইঞ্জিন বাদে সাতটি বগি লাইনচ্যুত হয়। ইঞ্জিনটি হঠাৎ ওপরের দিকে উঠে লাইন থেকে ছিটকে পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে ইঞ্জিনসহ এসি বগিতে আগুন ধরে। এরপর আরও তিনটি বগিতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। হুড়োহুড়ি করে নামতে গিয়ে ২৫ জন যাত্রী আহত হন। উত্তরাঞ্চলসহ খুলনা ও রাজশাহীর সঙ্গে ঢাকার ট্রেন যোগাযোগ প্রায় সাত ঘণ্টা বন্ধ থাকায় সিডিউল বিপর্যয় ঘটে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close