অর্থ ও বাণিজ্যমহানগরশিরোনাম

ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে নগরীর এক বাড়িতেই মিললো ৩০০ বস্তা পেঁয়াজ!

দেশি পেঁয়াজ ১৮০, আমদানিকৃত ১৫০ টাকায় বিক্রির নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীতে ভ্রাম্যমান অদালতের অভিযানে ৩০০ বস্তা পেয়াজের মজুদ পাওয়া গেছে।এই আমাদনী কারকের নাম হাসিবুল ইসলাম। রবিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় রাজশাহী নগরীর সাহেব বাজার মাস্টারপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে এই মজুদের সন্ধান পাওয়া যায়।
সোমবারের মধ্যে সেই আমাদনী কারককে ১৫০ বস্তা পেঁয়াজ বিক্রি করার জন্য নিদের্শনার প্রদান করেন। সেই সাথে রাজশাহীর বাজারে সোমবার থেকেই দেশি পেঁয়াজ প্রতি কেজি ১৮০ টাকা এবং আমদানিকৃত পেঁয়াজ ১৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হবে বলে জানিয়েছেন অভিযান পরিচালনাকারী ভ্রাম্যমাণ আদালতের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু আসলাম।
তিনি বলেন, আগামী কাল (সোমবার) রাজশাহীতে বার্মিজ পেঁয়াজ ১৫০ থেকে ১৫৫ টাকা, দেশী পেঁয়াজ ১৭০ থেকে ১৮০টাকায় পাইকারী ও খুচরা মূল্যে পাওয়া যাবে। এছাড়া ব্যবসায়ী হাসিবুল ইসলামের কাছে ৩০০ বস্তা পেঁয়াজ পাওয়া গেছে তার মধ্যে ১৫০ বস্তা আগামী কালের মধ্যেই বিক্রির নিদের্শ দেয়া হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, রাজশাহীর বাজারে পেঁয়াজের সরবারহ ভালো অবস্থায় আছে। আমরা কোন ক্রমেই মজুদ করতে দিবো না। বাজার মনিটরিং জন্য ভ্রমান্যমান অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।
এর আাগ সাহেব বাজারে অভিযানে নামেন তারা। এময় তারা বাজারের বিভিন্ন দোকানদারদের বুঝিয়ে বলেন আপনারা মানুষের উপর জুলুম করবেন না। বেশি দাম চাইলে কেউ পেঁয়াজ কিনবেন না। আামদের খবর দিবেন। এসময় বাজারে অভিযানে দেখে আড়ৎদাররা তাদের আড়তে তালা দিয়ে পালিয়ে যায়।
আলাউদ্দিন নামে এক ব্যবসায়ী বলেন, আমি আগে থেকেই ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা কেজি দরে পাইকাারি পেঁয়াজ বিক্রি করে আসছি।তবে আমাদের থেকে কিনে নিয়ে গিয়ে কেউ যদি অতিরিক্ত দামে বিক্রি করে তবে আমাদের কি করার আছে।
পেঁয়াজের এক ক্রেতা গৃহিনী আসমা বেগম বলেন, পেঁয়াজের দাম সকালে ২১৫ থেকে ২২০ টাকায় কিনেছি, ম্যাজিস্ট্রেট আসার আগেও একই দাম ছিল। তবে অভিযান চালানোর পর ১৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এমন অভিযান সকালে চালানো হলেই বেশ ভাল হয়। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close