বাগমারাশিরোনাম-২

বাগমারায় কৃষককে সার-বীজের জন্য আর জীবন দিতে হয় না: এমপি এনামুল হক

বিশেষ প্রতিবেদক: রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক বলেন, আ’লীগ সরকার যতবার ক্ষমতায় এসেছেন কৃষকের কল্যাণে কাজ করে চলেছেন। কৃষির উপর বাংলাদেশের
অর্থনীতিক প্রবৃদ্ধি অনেকটাই নির্ভরশীল তাই বর্তমান সরকার ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে কৃষি প্রণোদনা বিতরণ করে যাচ্ছে। কৃষকের উন্নয়ন মানে দেশের উন্নয়ন তাই কৃষকের ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যেই আজকের এই প্রণোদনা। তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে কৃষকের উন্নয়ন হয়। এখন আর বীজ, সার বা অন্যকোন প্রণোদনায় কৃষককে অকারণে জীবন দিতে হয় না। বিএনপির সময় সার এবং বিদ্যুতের জন্য কৃষককে জীবন দিতে হয়েছে।
মঙ্গলবার সকালে উপজেলা পরিষদের হল রুমে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর আয়োজিত রবি ২০১৯- ২০ গম, ভুট্টা, সরিষা, পেঁয়াজ এবং পরবর্তী খরিপ-১ মৌসুমে গ্রীষ্মকালীন মুগ ও তিল উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিনা মূল্যে বীজ ও রাসায়নিক সার বিতরণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য কালে এসব কথা বলেন তিনি।
প্রধান অতিথি আরো বলেন, বর্তমানে দেশের ১৬ কোটি মানুষের পেটে ভাত আছে। এখন আর কাউকে না খেয়ে থাকতে হয় না। কৃষি দিয়ে দেশের অর্থনীতির উন্নতি ঘটেছে। স্বচ্ছতার মাধ্যমে কৃষকদের তালিকা তৈরি করার আহ্বান জানান। এর ফলে প্রকৃত কৃষকরাই প্রণোদনা পাবেন। বাগমারায় শাকসব্জির পাশাপাশি ব্যাপক হারে মাছ উৎপাদন করা হচ্ছে। যা থেকে অনেক অর্থ উপার্জন করছেন চাষীরা। বর্তমানে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের ফলে কৃষকরা তাদের উৎপাদিত পণ্য দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্রয় করে অনেক লাভবান হচ্ছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ রাজিবুর রহমান। উপ-সহকারী কৃষি অফিসার আজাদ আলীর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান অনিল কুমার সরকার, ভবানীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আব্দুল মালেক মন্ডল, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ, বাগমারা থানার ওসি তদন্ত মিজানুর রহমান, উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক গোলাম সারওয়ার আবুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সিরাজ উদ্দীন সুরুজ, সহ প্রচার সম্পাদক নুরুল ইসলাম, সদস্য উপাধ্যক্ষ আব্দুল বারীক, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি এমদাদুল হক, এলজিইডি প্রকৌশলী সানোয়ার হোসেন, পিআইও মাসুদুর রহমান, উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান, বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ সহ উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভার হাজার হাজার কৃষক উপস্থিত ছিলেন।
চলতি মৌসুমে কৃষি প্রণোদনার আওতায় উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভার ৫ হাজার ৮ শত জন কৃষকের মাঝে বিনামুল্যে এই প্রণোদনা বিতরণ করা হবে বলে উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে।
কৃষকের মাঝে বিভিন্ন বীজের পাশাপাশি ২০ কেজি ডিএপি, ১০ কেজি এমওপি বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানের আগে ইঁদুর নিধন কার্যক্রমের উদ্বোধন উপলক্ষে উপজেলা পরিষদ চত্বর ইঁদুর মেরে ইঁদুর নিধন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন সাংসদ এনামুল হক। বরেন্দ্র বার্তা/সরা/অপস

Close