মহানগরশিরোনাম

কর্মবিরতী স্থগিত, পেট্রোল পাম্প খুলতেই যানবাহনের ভীড়

নিজস্ব প্রতিবেদক: কমিশন বৃদ্ধিসহ ১৫ দফা দাবিতে পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন ও ট্যাংকলরি মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকা অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতী স্থগিত করা হয়। ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিন আজ সোমবার দুপুর ২টার দিকে এই ঘোষণা দেয়ার সঙ্গে সঙ্গেই রাজশাহীর পেট্রোল পাম্পগুলোতে যানবাহনের ঢল নেমে আসে। অনেকেই জালানী না পাওয়ায় মোটর সাইকেল চালাতে পারেন নি। রোববার থেকে রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা বিভাগে পেট্রোল পাম্পগুলোতে কর্মবিরতী শুরু হয়। এতে বিপাকে পড়েন এই সকল বিভাগের যানবাহন মালিকরা। সড়কে কমে আসে যানবাহনের সংখ্যা। দুপুর থেকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়া শুরু করে। এ দিন দুপুর থেকেই যানবাহনের মালিকরা তেল সংগ্রহ করতে শুরু করেন। দুপুর পর থেকে রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পাম্পে উপচেপড়া ভীড় দেখা গেছে মোটরসাইকেলের।
পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের রাজশাহী জেলার সভাপতি মনিমুল হক জানান, ঢাকায় বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) সঙ্গে তাদের নেতাদের বৈঠক হয়। সেখানে কমিশন বৃদ্ধির দাবি মেনে নেয়া হয়েছে। অন্য ১৪টি দাবির বিষয়ে দুটি মন্ত্রণালয়ের যৌথসভা হতে হবে। তাই সরকারের তরফ থেকে কয়েকদিন সময় নেয়া হয়েছে। এ জন্য ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত তারা ধর্মঘট স্থগিত করেছেন। রাজশাহী নগরীর শালবাগান এলাকার আলম ফিলিং স্টেশন, নগরীর কুমারপাড়ার গুল গোফুরসহ অন্যান্য পাম্পের সেলসম্যানরা জানান, ধর্মঘট শুরুর আগের রাতে তেল নেয়ার জন্য পাম্পে যানবাহনের সংখ্যা অস্বাভাবিক বেড়ে গিয়েছিল। আবার ধর্মঘট স্থগিতের পরও একই অবস্থা। তবে স্থগিতের পরই যানবাহনের সংখ্যা বেশি।
উল্লেখ্য গত ২৬ নভেম্বর জ্বালানি তেল বিক্রির কমিশন এবং ট্যাংকলরি ভাড়া বাড়ানোসহ ১৫ দফা দাবি ৩০ নভেম্বরের মধ্যে মেনে নেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন ও ট্যাংকলরি মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। তখন সাড়া না পেয়ে ধর্মঘট শুরু করেছিল এ দুটি সংগঠন। তবে সোমবার বাংলাদেশ জ্বালানি তেল পরিবেশক সমিতির সভাপতি সৈয়দ সাজ্জাদুল করিম বৈঠক শেষে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, তারা আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন। আমরা জনগণের ভোগান্তি চাই না। আগামী ১৫ ডিসেম্বর জ্বালানি প্রতিমন্ত্রীর আহ্বানে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে আমাদের দাবিগুলো নিয়ে আলোচনা হবে বলে আমরা আশ্বস্ত হয়েছি। সে পর্যন্ত আমরা কর্মসূচি স্থগিত রাখছি। বরেন্দ্র বার্তা/ফকবা/অপস

Close