বগুড়াশিরোনাম

বগুড়ায় জেলা আ’লীগের সম্মেলন আজ

ষ্টাফ রির্পোট: বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন আজ। সম্মেলন ঘিরে নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত। প্রার্থীদের ব্যানার, পোস্টার ও বিলবোর্ডে ছেয়ে গেছে শহর ও শহরতলি। সম্মেলন সফল করতে আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী-সমর্থকদের মিছিলে প্রকম্পিত বগুড়া শহর।
দলীয় কার্যালয়ে তিলধারণের জায়গা মিলছে না গত কয়েক দিন ধরেই। সভাপতি পদে সাতজন ও সাধারণ সম্পাদক পদে ১১ জন প্রার্থী ঘুরছেন কাউন্সিলরদের দ্বারে দ্বারে। আগামী তিন বছরের জন্য জেলা কমিটির দায়িত্বভার কাদের ওপর বর্তাচ্ছে, কে হচ্ছেন সভাপতি ও সম্পাদক এ নিয়ে দায়িত্বশীলদের মধ্যে চলছে নানা বিশ্লেষণ।
কেন্দ্রীয় নেতাদের স্বাগত জানিয়ে শহরের প্রবেশপথ বনানী, সার্কিট হাউস ছাড়াও জায়গায় জায়গায় তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে। সম্মেলনে থাকবেন ৫১৫ কাউন্সিলর, ৬০০ অতিথি ও ২৫ হাজার ডেলিগেট।
এর আগে ২০১৪ সালের ১০ ডিসেম্বর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রবীণ রাজনীতিক মমতাজ উদ্দিনকে সভাপতি ও মজিবর রহমান মজনুকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। ২১ মাস পর ২০১৬ সালের ১২ অক্টোবর ৭১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেয়া হয়েছে। গত ১৭ ফেব্রুয়ারি মমতাজ উদ্দিন মারা গেলে সহ-সভাপতি ডা. মকবুল হোসেনকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়। জেলার ১৩ সাংগঠনিক কমিটির ১২টিই মেয়াদোত্তীর্ণ। দ্বন্দ্বের কারণে একটি উপজেলায় পূর্ণাঙ্গ কমিটিই দেয়া সম্ভব হয়নি। সম্প্রতি বগুড়া শহর বা পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
দলীয় সূত্র বলছে, আজ বেলা ১০টায় শহরের আলতাফুন্নেছা খেলার মাঠে এ সম্মেলন হচ্ছে। উদ্বোধন করবেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাবেক মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। প্রধান অতিথি থাকছেন সেতুমন্ত্রী ও দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। প্রধান বক্তা থাকবেন যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক। বিশেষ অতিথি থাকবেন নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী ও দলের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, রাজশাহী সিটি মেয়র ও কেন্দ্রীয় নেতা এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন প্রমুখ। সভাপতিত্ব করবেন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডা. মকবুল হোসেন ও সঞ্চালনা করবেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান মজনু।
সম্মেলনকে কেন্দ্র করে নেতাকর্মীরা শহরের বিভিন্ন স্থানে স্থাপন করেছেন তোরণ, ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টার ইত্যাদি। সম্মেলনস্থলের আশপাশে যেসব ব্যানার ও ফেস্টুন টানানো হয়েছে সেখানে দলের মধ্যে কোন্দলের চিত্র ফুটে উঠেছে। যুবলীগের ব্যানারে জেলার সভাপতির ছবি থাকলেও সাধারণ সম্পাদকের নেই। আবার কোনটাতে প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির ছবি ব্যবহার করা হয়নি। কোনো কোনো ব্যানারে জেলা আওয়ামী লীগের প্রয়াত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন ও ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডা. মকবুল হোসেনের ছবি দেয়া হয়নি। জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক সুলতান মাহমুদ খান রনি, উপ-প্রচার সম্পাদক আল রাজি জুয়েল প্রমুখের লাগানোর ব্যানারে শুধু প্রয়াত সভাপতি ও ভারপ্রাপ্ত সভাপতির ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। এ ছাড়া ব্যানার লাগানোর সঙ্গে সম্পৃক্তদের অনেকে বিতর্কিত, মামলার আসামি ও অনুপ্রবেশকারী। জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক সুলতান মাহমুদ খান রনি ও জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ডালিয়া নাসরিন রিক্তা জানান, এবারের সম্মেলনটি হবে স্মরণকালের সেরা। আশা করছি, ত্যাগী ও পরিচ্ছন্ন নেতারাই বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আসবেন।
সম্মেলনে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট মন্তেজার রহমান মন্টু জানান, সভাপতি পদে সাতজন ও সাধারণ সম্পাদক পদে ১১ জন প্রার্থী চূড়ান্ত হয়েছেন। সভাপতি প্রার্থীরা হলেন- বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান মজনু, সহ-সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন দুলু মাস্টার, অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম মন্টু, টিএম মুসা পেস্তা, অ্যাডভোকেট মকবুল হোসেন মুকুল, আইনবিষয়ক সম্পাদক তবিবর রহমান তবি, পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক শেখ শামীম। সাধারণ সম্পাদক প্রার্থীরা হলেন- যুগ্ম সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, মঞ্জুরুল আলম মোহন ও টি জামান নিকেতা, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ কুমার রায়, আসাদুর রহমান দুলু ও শাহরিয়ার আরিফ ওপেল, দফতর সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন নবাব, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সুলতান মাহমুদ খান রনি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল আলম আক্কাস, বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক শেরিন আনোয়ার জর্জিস এবং সোনাতলা উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মিনহাদুজ্জামান লিটন। সম্মেলন নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ডা. মকবুল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান মজনু জানান, সম্মেলনের সার্বিক প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন। আশা করছি, ভালোভাবেই সম্মেলন সম্পন্ন করতে পারব। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close