জাতীয়শিরোনাম

কেরানীগঞ্জে কারখানার আগুনে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১১

বরেন্দ্র বার্তা ডেস্ক: কেরানীগঞ্জ উপজেলার চুনকুটিয়া এলাকায় অবস্থিত ‘প্রাইম পেট অ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড’র কারখানার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১১ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।
আজ বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ফয়সাল (২৫) ও জাহাঙ্গীর নামে দুই যুবকের মৃত্যু হয়েছে।
আজ বৃহস্পতিবার ভোর থেকে সকাল পর্যন্ত ঢামেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নয় জনের মৃত্যু হয়। এছাড়া গতকাল ঘটনাস্থল থেকে একজনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। সব মিলিয়ে মৃতের সংখ্যা ১১ জনে পৌঁছেছে। নিহতদের স্বজনদের আহাজারিতে ঢামেকে বেদনাবিধুর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।
নিহতরা হলেন- ইমরান, বাবুল, রায়হান, খালেক, সালাউদ্দিন, সুজন, জিনারুল ইসলাম, আলম, জাকির হোসেন, ফয়সাল ও জাহাঙ্গীর।
এর আগেও কেরানীগঞ্জের প্রাইম পেট অ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।
বুধবার বিকালে কারখানাটিতে আগুন লাগলে শ্রমিকরা পানি ও কারখানায় থাকা অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করলে তখনই তারা দগ্ধ হয়। সেখান থেকে একজনের মৃতদেহসহ ৩৫ জনকে দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে প্রেরণ করা হয়। দগ্ধদের অধিকাংশের অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল।
এ অগ্নিকাণ্ডে প্রায় ১০ হাজার স্কয়ার ফিট কারখানাটির ভেতরের সব মালামাল ও যন্ত্রাংশ পুড়ে যায়। অগ্নিকাণ্ডের ধ্বংসস্তুপের ভেতর থেকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা জাকির হোসেন (২২) নামে একজনের মরদেহ উদ্ধার করে।
বিকাল সোয়া ৪টায় কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়া হিজলতলায় প্রাইম পেট অ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ড্রাস্ট্রিস লি. এর কারখানার ভিতর গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে বলে এলাকাবাসীর ধারনা। কারখানাটিতে ওয়ান টাইম খাবার প্লেট, গ্লাসসহ বিভিন্ন আইটেম তৈরি হতো। আশপাশের মানুষ কিছু বুঝে ওঠার আগেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে।
অগ্নিকাণ্ডের কারণ বিষয়ে গণমাধ্যমের এক প্রশ্নের জবাবে ফায়ার সার্ভিস (ঢাকা জোন-৬) এর উপপরিচালক কাজী নজমুজ্জামান জানান, এ বিষয়ে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে এটি জানা যাবে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close