গোদাগাড়িশিরোনাম-২

শীতার্ত ও ছিন্নমূল মানুষকে ৩৩০টি কম্বল দিলেন গোদাগাড়ীর ইউএনও

মুক্তার হোসেন,গোদাগাড়ীঃ ছিন্নমূল ও শীতার্ত মানুষদের খুঁজে কম্বল জড়িয়ে দিলেন রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল ইসলাম সরকার। বৃহস্পতিবার চর আষারিয়াদহ ইউনিয়নে সকাল থেকে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত গ্রামে গ্রামে গিয়ে অতি দরিদ্রদের খুজে বের করে ৩৩০ টি কম্বল বিতরণ করেন। এর আগে মঙ্গলবার গভীর রাতে ও দিনে শীতার্ত ও ছিন্নমূল মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে উপজেলা সদর ডইংপাড়া প্রেসক্লাবে দৈনিক ইত্তেফাকের ৬৭ বছরে পদাপর্ণ অনুষ্ঠান থেকে শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল দেয়া শুরু করেন।এরপর রাতে রিশিকুল ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে শীতার্ত মানুষের মাঝে ১০০টি কম্বল বিতরণ করেন তিনি।শীতার্ত মানুষগুলো উপজেলা প্রশাসনের হাত থেকে একটি করে কম্বল পেয়ে আবেগ আপ্লুত হয়েছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন গোদাগাড়ী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি)খাইরুল ইসলাম,মৎস্য কর্মকর্তা শামসুল করিম,প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা সুব্রত সরকার,কৃষি কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম,প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবু বাশির প্রমূখ।গত কয়েক দিনে তাপমাত্রা কমে যায় ফলে দিনমজুর শ্রেণির মানুষ কাজেও যেতে পারছে না। তাদের কষ্ট কিছুটা লাঘব করার জন্য রাতের বেলা উপজেলা প্রশাসন এ মানবিক উদ্যোগ নিয়েছে। তবে বিত্তবান মানুষ গরম কাপড় কিনে শীত নিবারণ করতে পারলেও গরিব-ছিন্নমূল মানুষরা টাকার অভাবে শীতের গরম কাপড় কিনতে পারছেন না। তাই অসহায় মানুষের জীবনে নেমে এসেছে চরম দুর্ভোগ। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাজমুল ইসলাম সরকার বলেন,উপজেলা প্রশাসন সব সময় সাধারণ মানুষের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছে। উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের গরিব মানুষরা তীব্র শীতের মধ্যে অনেক কষ্ট করছে, এমন খবরে তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তা নিজের চোখে দেখে তাদের হাতে কম্বল দিয়েছি। তিনি বলেন, আনুষ্ঠানিকভাবে বিতরন করলে অনেক সমস্যা হয়। যাদের প্রয়োজন নেই তারাও অনেকই নিয়ে যায়। এজন্যই বাড়ি বাড়ি গিয়ে নিজের চোঁখে দেখে, সত্যিকারে যাদের প্রয়োজন, তাদেরকেই সরকারী কম্বল দিয়েছি। প্রশাসনের পাশাপাশি দেশের বিত্তবানদের শীতার্ত গরিব অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান। বরেন্দ্র বা্র্তা/অপস

Close