আন্তর্জাতিকছবি ঘরজাতীয়মহানগরশিরোনাম

২০১৯ সালের শেষ দিন আজ

অর্ণব পাল সন্তু: শেষ হচ্ছে ২০১৯ সাল। ঘটন-অঘটনের নানা বিচিত্রতায় ভরা এ বছর শেষ হতে যাচ্ছে। বছর জুড়ে রাজশাহী, সারাদেশ ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ঘটে যাওয়া ঘটনাপ্রবাহ নিয়েই এ আয়োজন।
এবছরের আলোচিত ঘটনার মধ্যে ছিল চতুর্থ ও টানা তৃতীয়বারের মত প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শেখ হাসিনার দায়িত্ব গ্রহন, অগ্নিকান্ড, নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যা ও তার বিচারের রায়, বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত শরিফকে কুপিয়ে হত্যা,ব্যাতিক্রমী রূপে ডেঙ্গু রোগের প্রাদুর্ভাব, বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা, ট্রেন দুঘর্টনা, ছেলেধরা, লবনের মুল্য বৃদ্ধির গুজব , পেঁয়াজের অস্বাভাবিক মুল্য বৃদ্ধিপদ্মা সেতুতে মাথার প্রয়োজনের গুজব, ও সন্দেহে নৃসংস ভাবে পিটিয়ে হত্যা, রুপপুরে বালিশ কেলেঙ্কারি, ভারতে বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন বাতিলের দাবি নিয়ে ছাত্র সমাজের আন্দোলন, কাশ্মীরের স্বায়ত্বশাসন বাতিল, বাবরি মসজিদ মামলার রায় , নিম্নকক্ষে ট্রাম্পের অভিসংশন, রাজশাহী পলিটেকনিকের অধ্যক্ষকে পুকুরে ফেলে দেয়া, বোয়ালিয়া থানার সামনে গায়ে আগুন দিয়ে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা, রাজাকারের তালিকা প্রকাশ,তালিকায় মুক্তিযোদ্ধার নামসহ আরো নানা ঘটনা।
রাজশাহীর আলোচিত ঘটনা
রাজাকারের তালিকায় মুক্তিযোদ্ধাদের নাম
বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম আরিফ টিপুসহ মুক্তিযুদ্ধের সংগঠকদের রাজাকারের তালিকায় নাম প্রকাশ নিয়ে বেশ আলোচিত হয় রাজশাহী। বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম আরিফ টিপুসহ মুক্তিযুদ্ধের সংগঠকদের রাজাকারের তালিকায় নাম প্রকাশ করায় নিন্দা ও হেন কাজের জন্য দোষীদের শাস্তি দাবি জানান মুক্তিযোদ্ধা সহ অনান্য সংগঠন গুলো। এ নিয়ে টিপু বেশ কয়েকটি মামলা করারও পুস্তুতি নেন তিনি।
পলিটেকনিকের অধ্যক্ষকে পানিতে নিক্ষেপ
অধ্যক্ষকে টেনেহিঁচড়ে পুকুরের পানিতে ফেলে দেওয়ার ঘটনাও ছিলো বছরের আলোচিত বিষয়। রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষকে পুকুরে ফেলে দিয়েছে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। শনিবার (২ নভেম্বর) দুপুরে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে এ ঘটনা ঘটে। পরে অন্যান্য শিক্ষকরা অধ্যক্ষ প্রকৌশলী ফরিদউদ্দিন আহম্মেদকে উদ্ধার করে।

রাজশাহী পলিটেকনিকে ছাত্রলীগের টর্চার সেল
রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে ছাত্রলীগের অপকর্ম চলছিল অনেকটা প্রকাশ্যেই। এ নিয়ে শিক্ষক কিংবা শিক্ষার্থীরা মুখ খোলার সাহস পাননি। অনেকটা নীরবেই ছাত্রলীগের বর্তমান ও সাবেক নেতাকর্মীদের হাতে হেনস্তার শিকার হচ্ছিলেন শিক্ষার্থীরা। ছুতো পেলেই তাদের ওপর অমানবিক নির্যাতন চালাতো ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। অধিকাংশ সময়ই চাঁদা আদায়ে নেয়া হতো টর্চার সেলে।
এমনই একটি টর্চার সেলের সন্ধান মিলেছে রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে। গতকাল রোববার বিকেলে কারিগরি শিক্ষা অধিদফতরের তদন্ত কমিটি এ টর্চার সেলের সন্ধান পায়। পলিটেকনিকের পুকুরের পশ্চিম পাশের ভবনের ১১১৯ নম্বর কক্ষে এ টর্চার সেল থেকে লোহার রড, পাইপ ও লাঠি উদ্ধার করা হয়। পরে সেগুলো জব্দ করেছে পুলিশ।
থানার সামনে গায়ে আগুন দিলেন কলেজছাত্রী
২৮ সেপ্টেম্বও স্বামীর নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে থানায় অভিযোগ দিতে গিয়েছিলেন এক কলেজছাত্রী। তবে পুলিশ সেই অভিযোগ না নিয়ে কলেজছাত্রীকে ফিরিয়ে দেয়। আর সেই ক্ষোভে থানার সামনেই নিজের গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয় কলেজছাত্রী। দগ্ধ কলেজ ছাত্রীর নাম লিজা (১৯)। তিনি গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার প্রধানপাড়া এলাকার আব্দুল লতিফ বিশ্বাসের পালিত মেয়ে। লিজা রাজশাহী মহিলা কলেজের বাণিজ্য দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। নগরীর পবাপাড়া এলাকার একটি মেসে থাকতেন তিনি। লিজার সহপাঠী ও তার বান্ধবীরা জানান, গত ২০ জানুয়ারি লিজার সঙ্গে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার নাচোল উপজেলার খানদুরা গ্রামের খোকন আলীর ছেলে ও রাজশাহী সিটি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র সাখাওয়াত হোসেনের (২০) বিয়ে হয়। পরিবারকে না জানিয়েই সাখাওয়াত হোসেন লিজাদের গোবিন্দগঞ্জের বাড়িতে গিয়ে বিয়ে করেন। সাখাওয়াতও রাজশাহীতে একটি ছাত্রাবাসে থাকেন। জানা গেছে, বিয়ের পর কিছুদিন স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে স্বাভাবিক সম্পর্ক থাকলেও পরে কলহ-দ্বন্দ্ব শুরু হয়। পরিবারের সম্মতি না পাওয়ায় সাখাওয়াত লিজাকে নিজের বাড়িতে নিয়ে যেতে পারেননি। এক পর্যায়ে সাখাওয়াত স্ত্রী লিজার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে গ্রামের বাড়িতে গিয়ে থাকতে শুরু করেন।
অপরাধী না হয়েও কারাভোগ
অপরাধী না হয়েও নগরীর বোয়ালিয়া থানাধীন ছোটবনগ্রাম পশ্চিমপাড়ার তোফাজ উদ্দিনের পুত্র ডাব বিক্রেতা সজল মিয়া নামে এক ব্যক্তির প্রায় দেড় মাস কারাভোগের বিষয়টি ছিল বিগত বছর রাজশাহীসহ দেশব্যাপী ব্যাপক আলোচিত ঘটনা।
আদালত সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায় নারী শিশু আইনের একটি মামলায় সজলের বড় ভাই যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি সেলিম ওরফে ফজলের পরিবর্তে সজলকে ফজল বলে দীর্ঘ ১০ বছর পর শাহমখদুম থানা পুলিশ ২০১৯ সালের ৩০ এপ্রিল গ্রেপ্তার করে কোর্টে সোপর্দ করলে তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।
এই মামলায় আদালত ২০০৯ সালের ২৮ আগস্ট সেলিম ওরফে ফজলকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ এর ৬(১) ধারায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা আনাদায়ে আরও ১ বছর সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন এবং অপর আসামিদের খালাস দেন।
রুয়েট ছাত্রীকে যৌন হয়রানির দায়ে অটোচালক গ্রেফতার
রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) এক ছাত্রীকে চলন্ত অটোরিকশার মধ্যে যৌন হয়রানি করে ধাক্কা দিয়ে রাস্তায় ফেলে দেওয়ার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এক অটোরিকশাচালককে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত অটোচালক শামসু ডলার সুমন নগরীর ভেড়ীপাড়া এলাকার মৃত আমান উল্লাহ রেন্টুর ছেলে।
এর আগে গত ১৯ আগস্ট বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে বাসায় ফেরার সময় রাজশাহীর নগর ভবন এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। ভুক্তভোগী রুয়েটের ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের শিক্ষার্থী। ঘটনার পর ওই ছাত্রী নিজেই তার ফেসবুকে ঘটনাটি তুলে ধরেন।
ফেসবুক স্ট্যাটাসে তিনি লিখে তিনি এই প্রতিবাদ করেন।যৌন হয়রানির কোনো বিচার হবে না এমন ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি লিখেন। তার ফেসবুকে ঘটনাটি তুলে ধরার পর তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। ঘটনার পরদিন ২০ আগস্ট তিনি নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।
পাওনা টাকা চাওয়ায় খুন
রাজশাহী মহানগরীতে পাওনা টাকা চাওয়ায় রমজান আলী (২৮) নামের এক দোকানি খুন হন। শনিবার বেলা ১১টার দিকে নগরীর মালদা কলোনি এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। নিহত রমজান আলী ওই এলাকার আবদুর রাজ্জাকের ছেলে। মালদা কলোনি ঈদগাহ মাঠ এলাকায় পান-সিগারেটের দোকান চালাতেন তিনি। অভিযুক্ত মো. সোহেল (২৮) একই এলাকার আরমান আলীর ছেলে। তিনি নিহত রমজানের বন্ধু ছিলেন বলে জানিয়েছে এলাকাবাসী।
পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা
রাজশাহীর বাঘায় চুরি আতঙ্কে দিনেও লাঠি হাতে নিয়ে পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা দিচ্ছেন দানেশ মণ্ডল নামের এক চাষী। মঙ্গলবার আড়ানী হামিদকুড়া গ্রামের মাঠে পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা দিতে দেখা যায়। এ বিষয়ে হামিদকুড়া গ্রামের দানেশ মণ্ডল বলেন, অতিরিক্ত দামের কারণে কদর বেড়েছে পেঁয়াজের। তাই দিনের বেলাতেও পাহারা দিতে হচ্ছে। এ ছাড়া রাত জেগেও পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা দিতে হচ্ছে।
নতুন ছকে ফিরছে জামায়াত
দীর্ঘদিন ধরেই রাজনৈতিকভাবে কোণঠাসা রাজশাহীর জামায়াত। রাজনৈতিক কর্মসূচিতে প্রকাশ্যে দেখা যায়নি দলটির নেতাকর্মীদের। তবে এবার নতুন ছকে এগুচ্ছে দলটি। সর্বশেষ প্রকাশ্য তারার মিছিল বেরও করে রাজপথে। যেকোনো মূল্যে মাঠের রাজনীতিতে ফেরা। আর এজন্যই নেতৃত্বে আনা হয়েছে পরিবর্তন। নগরীতে গড়ে তোলা হয়েছে অন্তত ছয়টি আলাদা প্রভাব বলয়। দিন দিন শক্তি বাড়ছে এসব বলয়ে।
সারাদেশ
চতুর্থবারের মতো আওয়ামী লীগের সরকার গঠন
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশভাবে জয় পায়। নির্বাচনে বাংলাদেশের বড়ো দুটি দল, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) নেতৃত্বে গঠিত মহাজোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট জোটসহ বাংলাদেশের নিবন্ধিত সর্বমোট ৩৯টি দল অংশগ্রহণ করে। ১হাজার ৮৪৮ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। যার মধ্যে ১২৮ জন ছিল স্বতন্ত্র। ২০১৯ সালে ৭ জানুয়ারি টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়ে রেকর্ড গড়েন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। ইতিমধ্যে সবচেয়ে বেশি সময় প্রধানমন্ত্রী থাকা ও জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা থাকার রেকর্ডও গড়েছেন তিনি। ওই দিন বঙ্গভবনে প্রধানমন্ত্রীকে শপথ পাঠ করান রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। পরে অপর মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের শপথ গ্রহণ করানো হয়। এ নিয়ে চতুর্থবারের মতো মন্ত্রিসভা গঠন করেছে আওয়ামী লীগ।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন
দীর্ঘ ২৮ বছরেরও বেশি সময় পর গত ১১ মার্চ অনুষ্ঠিত হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন। ঘোষিত ফলাফলে কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্ল্যাটফর্ম ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ প্যানেলের নুরুল হক নুর ১১ হাজার ৬২ ভোট পেয়ে সহ-সভাপতি (ভিপি) পদে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সম্মিলিত শিক্ষার্থী সংসদের ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন পেয়েছেন ৯ হাজার ১২৯ ভোট। এছাড়া জিএস পদে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী ১০ হাজার ৪৮৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। আর তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাধারণ কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা রাশেদ খান পান ৬ হাজার ৬৩ ভোট। এজিএস পদে ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন ১৫ হাজার ৩০১ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা ফারুক হোসেন পেয়েছেন ৫ হাজার ৮৯৬ ভোট।
চকবাজারে অগ্নিকাণ্ড ও বনানীতে এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ড
২০১৯ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের ঢাকায় চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। সেখানে একটি গ্যাস সিলিন্ডারের বিস্ফোরণ হতে সৃষ্ট আগুন পার্শ্ববর্তী ভবনসমূহে ছড়িয়ে পড়ে এবং বৈদ্যুতিক ট্রান্সমিটার বিস্ফোরিত হয়ে এলাকাটি বিদ্যুৎ-সংযোগবিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। দমকল বাহিনী পাঁচ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হলেও (সরকারি হিসাব মতে) ততক্ষণে ঘটনাস্থলে অগ্নিদগ্ধ হয়ে ৭৮ জন মারা যান।
২৮ মার্চ দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিটে রাজধানীর বনানীতে এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় অন্তত ২৬ জন নিহত এবং আহত হয়েছেন ৭০ জনেরও বেশি মানুষ। আগুন লাগার ঘটনায় করা মামলায় গ্রেপ্তার হন দুই মালিক এস এম এইচ আই ফারুক ও তাসভীর-উল ইসলাম। গত ৩১ মার্চ বনানীর আগুনের ঘটনায় এস এম এইচ আই ফারুক ও তাসভীর-উল ইসলামকে সাত দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দেন আদালত। পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালত ওই আদেশ দেন। এ মামলার এজাহারে নাম থাকা আসামি রূপায়ন গ্রুপের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী খান মুকুল আজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে জামিনের বিরোধিতা করা হয়। উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে আদালত ২০ হাজার টাকা মুচলেকায় আসামির জামিন মঞ্জুর করেন। এর আগে গত ৬ মে এই মামলায় ঢাকার আদালত থেকে জামিন পান জমির মালিক এস এম এইচ আই ফারুক। আর গত ১১ এপ্রিল জামিন পান বিএনপি নেতা তাসভীর-উল ইসলাম।
নুসরাত হত্যাকাণ্ড
যৌননিপীড়নের প্রতিবাদ করায় গত ৬ এপ্রিল নুসরাতের শরীরে আগুন দেয়া হয়। ১০ এপ্রিল রাজধানীর একটি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। তার হত্যার বিচারের দাবিতে পুরো দেশ উত্তাল হয়ে ওঠে। ২৪ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আলোচিত নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় ১৬জন আসামির সবাইকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করে। আসামিদের বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে বলে জানাযন আদালত। ফেনী জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ এই রায় ঘোষণা করেন। অভিযুক্ত ১৬ জন আসামির সবাইকে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেওয়া হয়েছে। এই মামলায় গ্রেপ্তার করা হয় ২১ ব্যক্তিকে। তাদের মধ্যে ৫ জনকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। আসামিদের মধ্যে ১২ জন ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দেন। ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে ৮৭ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হল- সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল (ডিগ্রি) মাদ্রাসার বরখাস্ত হওয়া অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলা, সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের তৎকালীন সভাপতি রুহুল আমিন, সোনাগাজী পৌরসভার কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম, মাদ্রাসার শিক্ষক হাফেজ আবদুল কাদের, প্রভাষক আফসার উদ্দিন, মাদ্রাসার ছাত্র নুর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামীম, সাইফুর রহমান মোহাম্মদ যোবায়ের, জাবেদ হোসেন ওরফে সাখাওয়াত হোসেন জাবেদ, কামরুন নাহার মনি, উম্মে সুলতানা পপি ওরফে তুহিন, আবদুর রহিম শরিফ, ইফতেখার উদ্দিন রানা, ইমরান হোসেন মামুন, মোহাম্মদ শামীম ও মহি উদ্দিন শাকিল। মামলার সাত মাসেরও কম সময়ের মধ্যে, ৬১ কার্যদিবস শুনানির পর এ রায় ঘোষণা করা হয়।
প্রকাশ্য দিবালোকে রিফাতকে কুপিয়ে হত্যা
গত ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজ রোডে স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির সামনে প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে জখম করা হয় রিফাত শরীফকে। পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। পরবর্তীতে রিফাতকে কুপিয়ে হত্যার সেই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে তা পুরো দেশবাসীকে নাড়িয়ে দেয়। হত্যাকাণ্ডের প্রধান অভিযুক্ত নয়ন বন্ড গত ২ জুলাই পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হন। এরপর তদন্ত করে গত ১ সেপ্টেম্বর বহুল আলোচিত এ মামলায় ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন পুলিশ। আদালত এ আসামিদের দুই ভাগে ভাগ করেন। এদের মধ্যে ১০ জন প্রাপ্তবয়স্ক ও বাকি ১৪ জন অপ্রাপ্তবয়স্ক। মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের আদেশের দিন ধার্য করা হয়েছে ১ জানুয়ারি।
রিফাত হত্যা মামলার প্রাপ্তবয়স্ক আসামিরা হলেন, রাকিবুল হাসান রিফাত ফরাজি (২৩), আল কাইউম ওরফে রাব্বি আকন (২১), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রেজওয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২২), মো: হাসান (১৯), মো: মুসা (২২), আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি (১৯), রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২০), মো: সাগর (১৯) ও কামরুল ইসলাম সাইমুন (২১)। এ মামলার চার্জশিটভুক্ত প্রাপ্তবয়স্ক আসামিদের মধ্যে মো: মুসা এখনো পলাতক রয়েছেন। এছাড়া সাক্ষী থেকে আসামি হওয়া নিহত রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি উচ্চ আদালতের নির্দেশে জামিনে রয়েছেন। আর অন্য সব আসামি কারাগারে রয়েছেন।
মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে নতুন করে চার্জ গঠনের তারিখ নির্ধারণ করেছেন আদালত। তবে বাদী ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীদের সময় বাড়ানোর আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত চার্জ গঠনের জন্য ৮ জানুয়ারি নতুন দিন ধার্য করেছেন।
জিআরপি থানায় গৃহবধূকে গণধর্ষ
গত ২ আগস্ট যশোর থেকে ট্রেনে খুলনায় যাওয়ার পথে খুলনা রেল স্টেশনে কর্তব্যরত জিআরপি পুলিশের সদস্যরা এক গৃহবধূকে মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগে আটক করে। গভীর রাতে ওসি উছমান গনি পাঠান ও এসআই গৌতম কুমার পালসহ পাঁচ পুলিশ সদস্য তাকে জিআরপি থানার মধ্যে ধর্ষণ করেন। পরদিন ৩ আগস্ট তাকে পাঁচ বোতল ফেনসিডিলসহ একটি মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে খুলনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলি আদালত ফুলতলায় পাঠানো হয়। গত ৪ আগস্ট আদালতে জামিন শুনানিকালে জিআরপি থানায় গণধর্ষণের বিষয়টি আদালতের সামনে তুলে ধরেন তিনি। এরপর আদালতের নির্দেশে ৫ আগস্ট (সোমবার) তার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়। ঘটনার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের স্বার্থে ৭ আগস্ট বুধবার সকালে তাদের খুলনা জিআরপি থানা থেকে পাকশী জেলা রেলওয়ে পুলিশ লাইনসে প্রত্যাহার করা হয়। ১৮ আগস্ট খুলনার জিআরপি (রেলওয়ে) থানা হাজতে গণধর্ষণের শিকার গৃহবধূর বিরুদ্ধে দায়ের করা মাদক মামলায় জামিন আবেদন না মঞ্জুর করেন আদালত। সব শেষে ২৮ আগস্ট গণধর্ষণের শিকার গৃহবধূকে ফেনসিডিল মামলায় জামিন দেন আদালত। খুলনার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফুলতলা আমলি আদালতের বিচারক ওই গৃবধূকে বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা খুলনার কো-অর্ডিনেটর অ্যাডভোকেট মোমিনুল ইসলামের জিম্মায় জামিন প্রদান করেন।
ক্যাসিনো কাণ্ড
গত ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন শহরের স্পোর্টিং ক্লাবগুলোতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযান পরিচালনা করে। ১৮ সেপ্টেম্বর ক্যাসিনো ব্যবসার বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে র্যাব। মতিঝিলের ইয়ংমেনস ক্লাব, মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়াচক্র, ওয়ান্ডারার্স ও বনানীর গোল্ডেন ঢাকা ক্লাব, কলাবাগান ক্রীড়াচক্র, ধানমণ্ডি ক্লাব, মোহামেডান স্পোর্টিং, ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাব, আরামবাগ ও দিলকুশা ক্লাবে অভিযান চালানো হয়। ওই সব ক্লাব থেকে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ক্যাসিনো বোর্ডসহ বিপুল পরিমাণ জুয়া খেলার সামগ্রী, নগদ টাকা, অস্ত্র, মদ ও বিয়ার জব্দ করে। আটক করা হয় ক্যাসিনো ব্যবসার সঙ্গে জরিত অসংখ্য যুবলীগ নেতাকর্মীকে। ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে আলোচিত ইসমাইল হোসেন সম্রাটকে ৬ অক্টোবর ভোরে কুমিল্লা থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।
২০ সেপ্টেম্বর যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সমবায় বিষয়ক সম্পাদক এসএম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জিকে শামীমকে রাজধানীর নিকেতন থেকে আটক করেছে র্যাব। এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। পরে তাকে ১৪ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। তার নিকেতনের অফিস থেকে এক কোটি ৮০ লাখ নগদ টাকা, ১৬৫ কোটি টাকার ওপরে এফডিআর-এর কাগজপত্র এবং মাদক ও আগ্নেয়াস্ত্র পাওয়া যায়। মাদক, অস্ত্র ও মানিলন্ডরিং আইনে তিনটি মামলা হয়েছে তার বিরুদ্ধে। ঢাকায় সরকারি বিভিন্ন কাজের দরপত্রের নিয়ন্ত্রক হিসেবে পরিচিত তিনি। একই দিনে আটক কলাবাগান ক্রীড়াচক্রের সভাপতি শফিকুল ইসলাম ফিরোজ দুই মামলায় ১০ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়। পরে দফায় দফায় রিমান্ডে নেওয়ার পর তাদের কাছে থেকে বেরিয়ে আসে ক্যাসিনো কাণ্ডের সঙ্গে জরিত মূল্যবান তথ্য।
বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যা
৬ অক্টোবর রাতে শেরেবাংলা হলে নিজের কক্ষ থেকে আবরারকে ডেকে নিয়ে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা নৃশংসভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। পরের দিন তার বাবা বরকতুল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এ ঘটনায় ২৫ জনকে আসামি করা হয়। তাদের মধ্যে ২১ আসামি কারাগারে রয়েছেন।
এর মধ্যে এজাহারভুক্ত ১৬ জন এবং এজাহারের বাইরে পাঁচজন আসামি রয়েছেন। এ ছাড়াও পলাতক চার আসামির সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ দেয় আদালত। এ ঘটনায় বুয়েট থেকে আজীকন নিষিদ্ধ হন ১৯ জন। সেই সঙ্গে বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়।
আসামিদের কাছ থেকে হত্যাকাণ্ডের নির্মম বর্ণনা এবং সাধারণ শিক্ষার্থীদের রুখে দাড়াবার প্রত্যয়ে ভিন্ন এক মাত্রা পায় এই হত্যাকাণ্ড।
পেঁয়াজের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধি
দেশে সবচেয়ে বেশি আলোচিত কৃষিপণ্যের নাম পেঁয়াজ। দফায় দফায় দাম বেড়ে যাওয়ায় হালি কিংবা জোড়া হিসেবেও বিক্রি হয়েছে পেঁয়াজ। একটি বড় আকারের পেঁয়াজের দাম ৮ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়েছে। চার মাসে পেঁয়াজের মূল্য বেড়েছে ৪০০ গুণ। পেঁয়াজের এমন অস্বাভাবিক দামে হিমশিম খেতে হয়েছে নিম্ন ও মধ্যবিত্ত ভোক্তাদের। দেশের ইতিহাসে এই প্রথম পেঁয়াজের দাম এত বেশি হওয়ায় এক ধরনের দুর্লভ বস্তুতে পরিণত হয়েছে পণ্যটি।
জুলাইয়ের শুরু থেকে হঠাৎ করেই বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়ে যায়। তখন সরবরাহ ও আমদানি স্বাভাবিক থাকলেও একদিনেই এর দাম কেজিপ্রতি ৩০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৪৫ টাকা করা হয়। সেই থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত চার মাসে মোট ২৪ বার পেঁয়াজের দাম ওঠানামা করেছে। সব শেষে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ২৮০ টাকা দরেও বিক্রি হয়েছে। বর্তমানে পেঁজের বাজার স্থিতিশীল রয়েছে।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভয়াবহ রেল দুর্ঘটনা
ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথে ‏ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মন্দভাগ রেলস্টেশনে ১২ নভেম্বর দিবাগত রাত তিনটার দিকে বড় ধরনের ট্রেন দুর্ঘটনা ঘটেছে। চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী আন্তনগর তূর্ণা নিশীথা সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী আন্তনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের মাঝামাঝি বগিতে ঢুকে পড়লে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় ১৬ জন প্রাণ হারান। দুর্ঘটনায় তূর্ণা নিশীথা এক্সপ্রেস ট্রেনের লোকোমাস্টার তাছের উদ্দিন, সহকারী লোকোমাস্টার অপু দে এবং গার্ড মো. আবদুর রহমানকে দায়ী করেছে এই ঘটনায় গঠিত তিনটি তদন্ত কমিটি। তাদের ইতিমধ্যে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

এ বছর হারালাম যাদের
আ.লীগের সাধারন সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম
গীতিকার আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল
কবি আল মাহমুদ
আলোর ফেরিওয়ালা পলান সরকার
কৌতুক অভিনেতা টেলি সামাদ
ভাষাসৈনিক, নাট্যকার অধ্যাপক মতাজ উদ্দিন আহমেদ
স্যার ফজলে হোসেন আবেদ
পদার্থবিদ অজয় রায়
ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকা
ন্যাপ নেতা অধ্যাপক মোজাফফর আহমেদ
বীরাঙ্গনা আফিয়া খাতুন
বীরাঙ্গনা রাহেলা

বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close