ছবি ঘরজাতীয়শিরোনাম

‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’

বরেন্দ্র বার্তা ডেস্ক: রবিবার (৫ জানুয়ারি) বিকাল সাড়ে ৫টার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে করে ঠাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী বান্ধবীর বাসায় যাচ্ছিলেন। কুর্মিটোলা বাসস্টেশনে নামার পর তাকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি অনুসরণ করতে থাকে। মাঝপথে তাকে ধরে নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। ঘটনাটি সন্ধ্যা ৭টা থেকে ৮টার মধ্যে ঘটে। রাত ১০টার দিকে জ্ঞান ফেরে ওই ছাত্রীর। পরে তিনি রিকশায় করে বান্ধবীর বাসায় যান। সেখান থেকে বান্ধবীসহ অন্য সহপাঠীরা তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।
এদিকে ওই ছাত্রীর বাবা সোমবার সকালে ক্যান্টনমেন্ট থানায় অজ্ঞাতপরিচয় একজনকে আসামি করে মামলা করেছেন বলে ওসি কাজী শাহান হক জানান।
স্বাস্থ্য পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ। সোমবার (৬ জানুয়ারি) দুপুরের পর মেডিক্যাল পরীক্ষা সম্পন্ন করেছেনে তারা। এদিন বিকাল সোয়া তিনটার দিকে সোহেল মাহমুদ বলেন, ‘ভিকটিমের শরীরে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। তার গলা চেপে ধরা হয়েছিল, গলায় ক্ষত আছে।’
ডা. সোহেল মাহমুদ বলেন, ‘তাকে ঝোঁপঝাড়ের ভেতরে ফেলার সময় ঝোঁপের গাছের খোঁচায় তার (ছাত্রীর) শরীরের বিভিন্ন জায়গা ছিলে যাওয়ার মতো হয়েছে।’
তিনি বলেন, ‘ঘটনার এক পর্যায়ে ভিকটিম জ্ঞান হারায়। জ্ঞান ফিরে এলে সে দেখে ধর্ষক সেখানে তখনও উপস্থিত। ধর্ষক পেছনে ফিরে মেয়েটির ব্যাগে কিছু একটা খোঁজাখুঁজি করছিল। সেই সুযোগে মেয়েটি সেখানে থেকে পালিয়ে আসে।’
ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর চিকিৎসায় ৭ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড
ধর্ষণের শিকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই ছাত্রীর চিকিৎসায় গাইনি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. সালমা রউফকে প্রধান করে ৭ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। তাদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ীই এখন থেকে মেয়েটির চিকিৎসা চলবে।
আজ সোমবার (৬ জানুয়ারি) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি ওই ছাত্রী ও চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে।
ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন বলেন, মেয়েটির মেন্টালি ট্রমা ছাড়াও শারীরিক কিছু আঘাত রয়েছে। পাশাপাশি সে কিছু সমস্যার কথা উল্লেখ করেছে এবং আমরাও কিছু সমস্যা চিহ্নিত করেছি। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা তাকে চিকিৎসা দিচ্ছে। পাশাপাশি তাকে ঢামেকের নাক কান গলা বিভাগ নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে।

ঘটনাস্থলে পড়েছিল ছাত্রীর বই-হাতঘড়ি-ইনহেলার
ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ব্যাগ, বই, হাতঘড়ি, চাবির রিং, ইনহেলারসহ বেশ কিছু আলামত।
সোমবার (০৬ জানুয়ারি) সকালে কুর্মিটোলায় ঝোপঝাড়ের মধ্য থেকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা এসব উদ্ধার করেন।
ক্যান্টনমেন্ট থানা পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘ভিকটিমের শরীরে জখম রয়েছে। নিজেকে রক্ষা করতে তিনি চেষ্টা করেছিলেন।’
র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) ছাড়াও পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) একটি টিম ঘটনাস্থল পর্যবেক্ষণ করেছেন। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটিই ঘটনাস্থল।
ছাত্রী ধর্ষণে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রী ধর্ষণে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।
সোমবার (৬ জানুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইনস মাঠে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, গতকালকের ঘটনার তদন্ত চলছে, সত্যতা যাচাই করা হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সবগুলো সংস্থা ঘটনাটি তদন্ত করছে।
আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আগে অনেক বড় বড় ঘটনা তদন্ত করে বের করেছে, তাই এ ঘটনায়ও দ্রুত সময়ের মধ্যে হবে এবং দোষীদের দ্রুত সময়ের মধ্যে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান তিনি।
ধর্ষকের শাস্তির দাবিতে কুর্মিটোলায় ঢাবি শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ
ঢাবি শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঘটনাস্থলের সামনে সড়ক অবরোধ করেছেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় অপারধীর শাস্তি ও বিচারের দাবি জানান তারা।
সোমবার (৬ জানুয়ারি) বিকেল ৩টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকটি বাসে করে শিক্ষার্থীরা ঘটনাস্থলে আসেন। তারা সেখানে ব্যানার নিয়ে মানববন্ধন করেন। পরে তারা সড়ক অবরোধ করে অবস্থান নেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা সেখানে অবস্থান করছেন।
শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে রাস্তায় শুয়ে পড়েন। ধর্ষণের প্রতিবাদ, ধর্ষককে গ্রেফতার এবং বিচারের দাবিতে শিক্ষার্থীরা নানা স্লোগান দেন। ‘ধর্ষকের কালো হাত ভেঙে দাও গুঁড়িয়ে দাও’, ‘ধর্ষকের ফাঁসি চাই’, ‘আমার বোন ধর্ষিত কেন, ফাঁসি ফাঁসি ফাঁসি চাই’—স্লোগান দিচ্ছেন তান সহপাঠীরা।
ঢাবি শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনায় জবি ও বাকৃবিতে বিক্ষোভ
শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। আজ সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাস্কর্য চত্বর থেকে শিক্ষার্থীরা মিছিল শুরু করে। মিছিলটি পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে রফিক ভবনের নিচে এসে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়। এ সময় তারা জড়িতদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।
এদিকে এ ঘটনায় দোষীদের কঠোর শাস্তি চেয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সোমবার বেলা ৩টার দিকে শাখা ছাত্রলীগের কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন তারা। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন মিলনায়তনের সামনে মানববন্ধনের আয়োজন করেন।
এদিকে একই দাবিতে শাখা ছাত্র ইউনিয়নের নেতাকর্মীরাও দুপুরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করে।
‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ স্লোগানে উত্তাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
সহপাঠী ধর্ষণের শিকার হওয়ায় ক্ষোভে ফুঁসছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা। সোমবার (৬ জানুয়ারি) সকাল থেকেই বিচারের দাবিতে ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ স্লোগানে বিক্ষোভ ও মিছিল করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা এবং বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন।
বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে সমাবেশ করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। সেখানে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ ও ডাকসুতে ছাত্রলীগের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। তারা ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি চেয়ে স্লোগান দেওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন। নারী নির্যাতন প্রতিহত করার আহ্বান জানিয়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান বলেন, ছাত্রলীগ সব ধরনের যৌক্তিক আন্দোলনের পাশে থাকবে।
একই সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদল প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে। ধর্ষণ ও নির্যাতনে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে আয়োজিত এ সভায় ছাত্রদলের অনেক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক ও বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক আকতার হোসেনের নেতৃত্বে ক্যাম্পাসে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। এছাড়া ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুরুসহ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ-এর কর্মীরা দুপুরে শাহবাগ অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। এরপর একটি মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করেন তারা। এসময় নুরু বলেন, মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন থামানো যাবে না।
দুপুরে পর সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে ক্যাম্পাসে আরও কয়েকটি মিছিল দেখা যায়। এছাড়া রাজু ভাস্কর্যের সামনে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। বিক্ষোভ মিছিল করেছে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনও। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close