পাবনাশিরোনাম-২

পাবনা’র র‌্যাবের অভিযানে ১ মাদক ব্যবসায়ী ও ১ ভূয়া মেজর গ্রেফতার

শফিক আল কামাল ,পাবনা প্রতিনি:পাবনা’র সুজানগর ১ মাদক ব্যবসায়ী ১ ভূয়া মেজর পরিচয় দানকারি প্রতারককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব ১২। ে
সুজানগরে আটক মাদক ব্যবসায়ীর নাম মো. মাসুদ শেখ (২৭), সে সুজানগর থানার নওয়া গ্রামের মৃত আব্দুল শেখের ছেলে।
পাবনা ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার মো. আবুল কাশেম জানান, গোপন সংবাদের ভিক্তিতে র‌্যাবের একটি বিশেষ আভিযানিক দল ০৭’ জানুয়ারী দুপুর পৌনে ২টায় আমিনপুর থানার উদয়পুর অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় মাসুদ শেখের নিকট থেকে ৫০০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেটসহ তাকে গ্রেফতার করা হয়। মাসুদ শেখ দীর্ঘদিন যাবৎ ঐ এলাকায় মাদক ব্যবসা করে আসছে। তার বিরুদ্ধে সুজানগর থানায় একটি এজাহার দায়ের করা হয়েছে।

আটক ভূয়া মেজর পরিচয় দানকারি প্রতারক মো. মাহমুদ হোসেন বাবু

অন্যদিকে, পাবনা’য় র‌্যাব-১২’র অভিযানে মো. মাহমুদ হোসেন বাবু (২৭), নামের ১ ভূয়া মেজর পরিচয় দানকারি প্রতারককে গ্রেফতার করা হয়। সে রাজশাহী জেলার বোয়ালিয়া থানার হেতেমখাঁ কাদিরগঞ্জ মহল্লার মো. সিরাজ উদ্দিন আহম্মেদের ছেলে।
পাবনা ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানীকমান্ডার মো. আবুল কাশেম জানান, গোপন সংবাদের ভিক্তিতে র‌্যাবের একটি বিশেষ আভিযানিক দল ০৭’ জানুয়ারী সন্ধ্যা পৌনে ৭টায় পাবনা জেলার সাঁথিয়া থানার দাড়ামোধা’য় অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় ভূয়া মেজর পরিচয় দানকারি মো. মাহমুদ হোসেন বাবুকে গ্রেফতার করা হয়। সে সেনাবাহিনীর মেজর পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন ব্যক্তিকে চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ অত্মসাৎ করে মানুষকে প্রতারনা করে আসছিল। সাঁথিয়া থানার দাড়ামোধা গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দীন জোয়াদ্দার এর মেয়ে মোসা. সিমলা খাতুন (১৮) কে সেনাবাহিতে চাকুরী নিয়ে দিবে বলে ৬,০০০০০/-(ছয় লক্ষ) টাকা নেয়। সেই টাকা ফেরত না দিয়ে আত্মসাৎ করে। সে সিমলা খাতুন ও তার পরিবারকে অর্থিক প্রলোভন দেখিয়ে মৌখিকভাবে বিয়ের কথা বলে। দির্ঘ্যদিন একসাথে স্বামীরুপে বসবাস করে সিমলা খাতুনের সাথে শারিরিক সম্পর্ক করে আসছিল। এক পর্যায়ে বিয়ের রেজিষ্ট্রেশন না করে তালবাহানা করতে থাকে। এমনকি কাবিন নামায় সাক্ষর না করে বিয়ের বিষয়টা অস্বীকার করে। মেয়ের বাবা-মা ও সাঁথিয়া থানার দাড়ামোধা গ্রামের জনগন একপর্যায়ে আসামীর ভুয়া মেজর পরিচয় জানতে পেরে কৌশলে র‌্যাবকে খবর দেয়। র‌্যাব সদস্যরা তাকে গ্রেফতার করে সাঁথিয়া থানায় সোপর্দ করে। তার বিরুদ্ধে সাথিয়া থানায় একটি এজাহার দায়ের করা হয়েছে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close