বাগমারা

শিক্ষার্থীরা আগামী দিনের ভবিষ্যৎ- এমপি এনামুল হক

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাগমারা আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক বলেছেন, শিক্ষার্থীদের সকল গুণে গুনান্বিত করতে হবে। শিক্ষার্থীদের শুধু লেখাপড়ায় মনোযোগী রাখলে হবে না। লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলার ব্যবস্থা রাখতে হবে। মচমইল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় উপজেলার একটি ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠা থেকে অদ্যবধি ভাল ফলাফল উপহার দিয়ে আসছে প্রতিষ্ঠানটি। ভালো শিক্ষার্থী তৈরিতে মচমইল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা কঠোর পরিশ্রম করে থাকে। একজন ভালো শিক্ষার্থী কেবল একটি প্রতিষ্ঠানের সুনাম অর্জন করে না। ভালো শিক্ষার্থী দেশ ও দশের কল্যাণে কাজ করে থাকে। বুধবার সকালে মচমইল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের আয়োজনে বিদ্যালয় চত্বরে নবীনবরণ, বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে মুঠোফোনের মাধ্যমে এ সকল কথা বলেন তিনি। প্রধান অতিথি আরো বলেন, মচমইল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে একটি বড় খেলার মাঠ থাকলেও সেখানে হাট বসানোর কারনে এতো দিন শিক্ষার্থীরা খেলাধুলা করতে পারেনি। সেই স্কুলের মাঠ থেকে হাট সরিয়ে নেয়ার ফলে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখার পাশাপাশি খেলাধুলা করতে পারছে। শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা করার সুযোগ দিতে হবে। এর মাধ্যমে দেহের গঠন মজবুত হয়। সেই সাথে মনও ভালো থাকে। সে কারনে লেখাপড়াতেও তারা ভালো মনোযোগী হয়। সর্বশেষ তিনি শিক্ষক-শিক্ষার্থী, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য সহ সকলের সুস্বাস্থ্য কামনা করেন।
বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, বাগমারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অনিল কুমার সরকার এর সভাপতিত্বে এবং সহকারী শিক্ষক আব্দুস সালামের পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসির উদ্দীন খাঁন।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মচমইল ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ কুমার প্রতীক দাশ রানা, বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক আব্দুল খালেক মল্লিক, আহসান হাবীব, সাবেক শিক্ষা অফিসার গোলাম রহমান, সহকারী প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম, বিশিষ্ট সমাজসেবক আহাদ আলী সরদার, মচমইল উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুল মজিদ শেখ, প্রভাষক রফিকুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম। এ সময় বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক-শিক্ষার্থী, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য, অভিভাবকবৃন্দ সহ গন্যমান্য ব্যক্তিগণ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে বিদ্যালয়ের ২৩০ জন নবীন শিক্ষার্থীকে বরণ করা হয়। পরে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বরেন্দ্র বার্তা/সরা/অপস

Close